রোববার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

বিশ্বকাপের সৌন্দর্য নষ্ট করেছে নতুন প্রযুক্তি!

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১০:০৪ এএম

শেয়ার করুন:

বিশ্বকাপের সৌন্দর্য নষ্ট করেছে নতুন প্রযুক্তি!

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে পর্দা ওঠা ফুটবল বিশ্বকাপের ২২তম আসর ঢেলে সাজানো হয়েছে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তির ব্যবহারে। ফিফার মতে, এর মাধ্যমে নানাবিধ সুবিধা পাচ্ছেন ফুটবলাররা। তবে এবারের আসরে ব্যবহৃত কিছু প্রযুক্তি নষ্ট করেছে ফুটবলের সৌন্দর্যকে, দাবি নেটিজেনদের।

২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে প্রথমবারের মত ব্যবহার করা হয় ভিডিও অ্যাসিস্টেড রেফারি বা ভিএআর প্রযুক্তি। এরপর এতে আনা হয় বেশ কিছু নতুন সংযোজন। এবারের বিশ্বকাপে মোট ৪২টি ব্রডকাস্ট ক্যামেরার ফুটেজ এবং তার মধ্যে থাকা আটটি সুপার স্লো মোশন ক্যামেরার চিত্র বিশ্লেষণ করছে ভিআর। যা রেফারিদের গোল এবং গোল সম্পর্কিত সব সিদ্ধান্ত, পেনাল্টি, লাল কার্ড ও মাঠে যেকোন ঘটনার সঙ্গে জড়িত খেলোয়াড়দের পরিচয় নির্ণয়ে সিদ্ধান্ত দিচ্ছে।


বিজ্ঞাপন


আরও পড়ুন- আর্জেন্টিনার শেষ ষোলোতে ওঠার শঙ্কা

তাছাড়াও ফাউল ও গোলের ক্ষেত্রে ফুটবলারদের বাগবিতণ্ডার দ্রুত সমাধান ভিএআরের মাধ্যমে সমাধান করা হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপে। তবে এই প্রযুক্তি নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন বিতর্কের। প্রযুক্তির এমন চুলচেরা বিশ্লেষণে খেলার মোমেন্টাম অনেকাংশেই নষ্ট হচ্ছে বলে দাবি ফুটবলপ্রেমীদের।

তাছাড়াও কাতার বিশ্বকাপে বড় বিতর্কের নাম সেমি অটোমেটেড অফসাইড টেকনোলজি। নিখুঁতভাবে অফসাইডের ব্যাপারে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে সিদ্ধান্ত দিচ্ছে এই প্রযুক্তির ব্যবহার। ম্যাচ চলাকালীন সময়ে বলের পাশাপাশি প্রতিটি খেলোয়াড়ের অবস্থান নির্ধারনের মত সক্ষমতা আছে এই সিস্টেমের। তাছাড়াও ফুটবলারদের হাত-পায়ের অবস্থান অফসাইডের ফাঁদে আছে কিনা সেটারও বিশ্লেষণ করা হচ্ছে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে।


বিজ্ঞাপন


আরও পড়ুন- ক্যামেরুন-সার্বিয়ার বাঁচা-মরার লড়াই

সেমি অটোমেটেড অফসাইড টেকনোলজি শেষ করেছে ফুটবলারদের স্বাধীনতা, দাবি নেটিজেনদের। বুটের আধা ইঞ্চি অফসাইডে থাকলেও সেটাকে অফসাইড ধরা স্পোর্টসম্যানশিপ নষ্ট করার শামিল বলে ধারণা করছেন ফুটবল বোদ্ধারা।

এফএইচ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর