শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪, ঢাকা

কন্টেইনার দিয়ে নির্মিত স্টেডিয়ামে খেলবেন মেসি-নেইমাররা

রেজওয়ান আহমেদ
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৪৮ পিএম

শেয়ার করুন:

কন্টেইনার দিয়ে নির্মিত স্টেডিয়ামে খেলবেন মেসি-নেইমাররা

একটি গোটা ফুটবল স্টেডিয়াম বহন করে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে-এমন কথা কি কেউ কখনো শুনেছেন আগে! অবিশ্বাস্য হলেও এমন বিস্ময়কর স্টেডিয়ামেই ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২ আয়োজন করতে যাচ্ছে কাতার। আর বিশ্বকাপ ঘরে তোলার লড়াইয়ে এ মাঠে খেলবেন লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও নেইমার জুনিয়ররা।  

বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ হিসেবে কাতার একের পর চমক দিয়েই চলেছে। আর এ তালিকায় রয়েছে "স্টেডিয়াম-৯৭৪" যা কিনা চাইলেই এক দেশ থেকে আরেক দেশে নিয়ে যাওয়া যাবে।


বিজ্ঞাপন


শুধুমাত্র ৯৭৪ টি শিপিং কন্টেইনার ও মডিউলার স্টীল দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে এই স্টেডিয়ামটি। রাজধানী দোহা থেকে ১০ কি.মি পূর্বে উপকূলবর্তী বাণিজ্যিক নগরী রাস-বু-আবৌদে নির্মিত এ স্টেডিয়াম দেশটির দীর্ঘদিনের বাণিজ্যিক ঐতিহ্যকেই প্রকাশ করে।৯৭৪ সংখ্যাটি কাতারের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোড হলেও নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ফেনউইক ইরিবারেন আর্কিটেক্টস এর দাবী নির্মাণশৈলীর কারণেই এমন নাম রাখা হয়েছে।

শিপিং কন্টেইনার দিয়ে তৈরি হলেও আলো বাতাস চলাচলের প্রাকৃতিক সুব্যবস্থা থাকায় অন্যান্য স্টেডিয়ামের তুলনায় এখানে তাপমাত্রা থাকবে কম। উপকূলবর্তী হওয়ায় এরাবিয়ান গাল্ফ থেকে ভেসে আসা শীতল বাতাস স্টেডিয়ামটির তাপমাত্রা রাখবে সহনীয়। একসাথে ৪০০০০ হাজার দর্শক এখানে খেলা উপভোগ করতে পারবেন।দর্শকদের জন্য খাবারের জায়গা থেকে শুরু করে প্রার্থনা কক্ষ,বাথরুম ব্যবস্থা সহ আধুনিক সব সুযোগই রাখা হয়েছে স্টেডিয়ামটিতে।

গ্রুপ পর্বের ছয়টি এবং রাউন্ড অব সিক্সটিনের একটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে এই স্টেডিয়ামে। মেসি-রোনালদো,নেইমার-এমবাপে'রা নিজেদের গ্রুপ পর্বের একটি করে ম্যাচ খেলবেন এ মাঠেই। ২০২১ সালের নভেম্বরে ফিফা আরব বিশ্বকাপের ম্যাচ দিয়ে স্টেডিয়ামটির উদ্বোধন হয়।

চমকপ্রদ তথ্য এই যে,স্টেডিয়ামটিতে ব্যবহৃত শিপিং কন্টেইনার গুলোতে করেই বিশ্বকাপের অন্য সাতটি ভেন্যু নির্মাণের প্রয়োজনীয় সামগ্রী পরিবহন করা হয়েছে এবং এগুলো রি-সাইকেল করা স্টীল দিয়ে তৈরি যা কাতারের সাশ্রয়ী এবং টেকসই নির্মাণের প্রতিশ্রুতিকেই নির্দেশ করে।


বিজ্ঞাপন


বিশ্বকাপের পর্দা নামার সাথে সাথে বিশেষ এ স্টেডিয়ামেরও পর্দা নামবে।স্টীলের কাঠামো ও শিপিং কন্টেইনার খুলে পুনরায় ব্যবহার করা হবে অন্য কাজে।চাইলে অন্য কোনো দেশও নিয়ে গিয়ে স্টেডিয়াম হিসেবে ব্যবহার করতে পারবে এ স্টেডিয়ামের উপকরণগুলো।

এমএএম 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর