রোববার, ১৪ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য সেনেগাল-ডাচ লড়াই

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২২, ১০:৫২ পিএম

শেয়ার করুন:

প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য সেনেগাল-ডাচ লড়াই

কাতার বিশ্বকাপ-২২ এর ফুটবল নেশায় যখন বুঁদ হয়ে আছে পুরো বিশ্ব, ঠিক তখনই দ্বিতীয় দিনের হাইভোল্টেজ ম্যাচে আজ রাত ১০ টায় আল থুমামা স্টেডিয়ামে মাঠে নামলো বর্তমান আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন লায়স অব টেরেঙ্গা খ্যাত সেনেগাল। যাদের প্রতিপক্ষ ইউরোপ জায়ান্ট নেদারল্যান্ডস। অন্যদিকে গত বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পায়নি লুইস ফন গালের দল। এক আসর বিরতি দিয়ে এবার আবারও বিশ্বকাপে খেলতে এসেছে ডাচরা। তবে আজ ম্যাচের শুরু থেকেই আগ্রাসী ভূমিকায় গতিময় ফুটবল খেলতে থাকে দুই দল। একে অপরের শিবিরে কয়েক দফা আক্রমণ আর পালটা আক্রমণের পরেও গোলশূণ্য অবস্থায় শেষ হয়েছে সেনেগাল-নেদারল্যান্ডস মধ্যেকার প্রথমার্ধ।

সোমবার দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে ‘এ’ গ্রুপের এই ম্যাচে গতিময় ফুটবল উপহার দেয় দুই দলই। 


বিজ্ঞাপন


তবে ফুটবল ঐতিহ্য ও শক্তিতে বেশ এগিয়ে সমৃদ্ধ ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ডস। কিন্তু তৃতীয় বিশ্বকাপ খেলতে আসা সেনেগাল যে ছেড়ে কথা বলবে না সেটা ম্যাচের প্রথমার্ধে তারা দেখিয়ে দিয়েছে।

আল থুমামা স্টেডিয়ামে ম্যাচটির প্রথমার্ধে বলের দখলে এগিয়ে ছিল ডাচরা। ম্যাচের ৫৩ ভাগ সময় নিজেদের পায়ে রাখেন ডাচ ফুটবলাররা। দখলে এগিয়ে থাকলেও আক্রমণে দুদলই ছিল প্রায় সমানে-সমান। বিরতির আগ পর্যন্ত সেনেগাল শিবিরে ৫বার আক্রমণ করে নেদারল্যান্ডস। যেখানে তারা ৩টি শট জালের লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিল। তবে তার একটিও লক্ষ্যবস্তুতে নিতে পারেনি ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং-স্টিভেন বার্গুইনরা। 

অপরদিকে সেনেগালের নিয়ন্ত্রণে ছিল ৪৭ ভাগ। বিপরীতে ৬ বার আক্রমণে যায় সেনেগাল। যার একটি আবার ছিল লক্ষ্যে। তবে সেখান থেকে সেনেগালও গোল আদায় করতে পারেনি। তবে দুই দলই লক্ষ্যে রাখতে পারেনি একটি শটও। ফলে প্রথমার্ধে মেলেনি গোলের দেখা।

সেনেগালের বিপক্ষে ম্যাচটিতে নেদারল্যান্ডসই পরিষ্কারভাবে ফেভারিট। পরিসংখ্যান-পারফর্ম অন্তত সেটাই বলে। তবে সেনেগালও যে ছাড় দেওয়ার মতো নয়, সেটা বিরতির আগ পর্যন্ত দেখিয়েছে তারা। অক্ষত রেখেছে জাল। ফলে লায়ন্স অব তেরাঙ্গা খ্যাত সেনেগালের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।


বিজ্ঞাপন


ইউরোপের গতির সাথে সমান বলের পজিশন পায়ে রেখেছে আলিউ সিসের শিষ্যরা। ফলে দুই দল গোল দেওয়ার যেমন সুযোগ তৈরি করেছে, তেমনি গোল হজম করারও শঙ্কায় পড়েছিল। দ্বিতীয়ার্ধে ওই গতি ও আক্রমণাত্মক ফুটবল ধরে রাখতে পারলে ডাচদের বিপদে ফেলে দিতে পারে টেরেঙ্গা খ্যাত সেনেগাল।

এসটি
 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর