বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

কাতারে যেসব কারণে নিষিদ্ধ হতে পারেন দর্শকরা

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২২, ০১:০২ পিএম

শেয়ার করুন:

কাতারে যেসব কারণে নিষিদ্ধ হতে পারেন দর্শকরা

ঘন্টা কয়েকের অপেক্ষা। এরপরই পর্দা উঠছে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ এর। অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে কোটি কোটি ফুটবলপ্রেমীর। এরমধ্যেই কাতারে পৌঁছে গেছে বিভিন্ন দেশ থেকে খেলা দেখতে আসা অসংখ্য সমর্থক। তবে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে হওয়া এবারের বিশ্বকাপ অন্যবারের থেকে অনেকাংশেই আলাদা।

মধ্যেপ্রাচ্যের দেশ কাতার সংরক্ষণশীল মানসিকতায় বিশ্বাসী। ফলে পর্যটকদের জন্য দেশটিতে চালু আছে একাধিক নিয়ম-কানুন। যা সেদেশে খেলা দেখতে আসা সমর্থকদের চিন্তায় রেখেছে।


বিজ্ঞাপন


আরও পড়ুন- সৌন্দর্যে নায়িকাদেরও হার মানায় যেসব ফুটবলারের সঙ্গী

অতীতের বিশ্বকাপ আসরগুলোতে দেখা গেছে লেট নাইট পার্টি, মদ্যপানসহ আরও নানা ধরণের উন্মাদনা। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সমর্থকরা এক হয়ে আনন্দে মেতে উঠেছেন বিগত সময়ে। তবে কাতারের মাটিতে এবার সেই সুযোগ পাচ্ছেনা দর্শকরা। দেশটির বিভিন্ন বাঁধাধরা নিয়মের জন্য নানা বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে এবারের খেলা দেখতে আসা ফুটবল সমর্থকদের। জেনে নেয়া যাক এবারের বিশ্বকাপে কাতার সরকার কি কি নিয়ম রেখেছে খেলা দেখতে আসা সমর্থকদের জন্য।

অ্যালকোহল

স্টেডিয়ামে বিয়ার পান করতে করতে খেলা দেখা! ফুটবলটা এভাবেই উপভোগ করেন ইউরোপিয়ান বা আমেরিকান সমর্থকরা। কিন্তু তাদের জন্য এবারের বিশ্বকাপটা সম্পূর্ণ আলাদা। বিশ্বকাপের স্টেডিয়ামগুলোতে ‘বিয়ার’ নিষিদ্ধ করেছে আয়োজক দেশ কাতার। টুর্নামেন্টের দুই দিন আগে (শুক্রবার) ‘ইউটার্ন’ নেয় তারা।


বিজ্ঞাপন


প্রথমে অবশ্য নিষিদ্ধই ছিল, কিন্তু পরে মাঠে বিয়ার রাখার অনুমতি দেয় কাতার। কিন্তু রাজ পরিবার থেকে সরাসরি চাপ প্রয়োগের পর বদলে ফেলা হয় এই সিদ্ধান্ত। এখন কেবল স্টেডিয়ামের বাইরে ‘অ্যাক্টিভেশন জোনেই’ বিয়ার পাবেন সমর্থকরা। তবে মাঠ নিতে পারবেন না।

তবে কাতারের এই সিদ্ধান্তের ফলে আইনি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে ফিফা। কেননা বিয়ার প্রস্তুতকারক কোম্পানি বুডউইজার বিশ্বকাপের অন্যতম স্পনসর। যদি মাঠে বিয়ার পান করা নিষিদ্ধ হয়, তাহলে বুডউইজারের সঙ্গে ৭৫ মিলিয়ন ডলারের (প্রায় ৭৭১ কোটি টাকা) চুক্তি ভঙ্গ করবে ফিফা। 

ড্রাগস

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে সকল ধরণের ড্রাগস নিষিদ্ধ। ব্যবহারে হতে পারে জেল-জরিমানা কিংবা মৃত্যুদন্ডও।

যৌনতা

কাতারে বিবাহবহির্ভুত সম্পর্ক অপরাধের সামিল। তবে বিশ্বকাপের জন্য দেশটিতে এর কিছুটা ছাড় দেওয়া হয়েছে। শুধুমাত্র পর্যটকদের জন্যই থাকছে এই সুযোগ। রাস্তায় হাত ধরে হাঁটলেও নেই কোনো সমস্যা। তবে প্রকাশ্যে ঘনিষ্ঠ হলে কর্তৃপক্ষের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার মুখে পড়তে হবে সমর্থকদের। সমকামী যৌনতার ক্ষেত্রে দেয়া হয়েছে তিন বছরের জেলের বিধান।

আরও পড়ুন- বিশ্বকাপ শুরুর আগে রেকর্ডবুকে যারা

পোষাক বিধি

এবারের বিশ্বকাপে পর্যটকদের হাঁটু ও কাঁধ ঢাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়াও স্থানীয় সংষ্কৃতিকে সম্মান দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে কাতার সরকার।

আপত্তিকর অঙ্গভঙ্গি

মধ্যমা (মিডল ফিঙ্গার) দেখানো বা কটূ কথা বললে গ্রেফতার করা হতে পারে কাতারে আসা সমর্থকদের। তাছাড়াও কারও অনুমতি ছাড়া ছবি তোলা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করেছে কাতার সরকার।

এফএইচ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর