লেভানডভস্কি তরুণ খেলোয়াড়দের জন্য রোল মডেল: মিচনিউইচ

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০২২, ০৮:০৯ এএম
লেভানডভস্কি তরুণ খেলোয়াড়দের জন্য রোল মডেল: মিচনিউইচ

১৯৩৮ সালে প্রথমবারের মতো ফুটবল বিশ্বকাপে অংশ নেয় পোল্যান্ড। এরপর আরও আটটি আসরে অংশ নিলেও সবশেষ ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপের পর গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরোতে পারেনি দলটি। তাই এবার নিজেদের নবম বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে শেষ ষোলোতে ওঠার মিশন নিয়ে কাতারে পা রাখতে যাচ্ছে রবার্ট লেভানডভস্কি বাহিনী।

১৯৭৪ ও ১৯৮২ সালে তৃতীয় স্থানে থেকে বিশ্বকাপ মিশন শেষ করে পোল্যান্ড।  এবারের বিশ্বকাপে দলটির প্রতিপক্ষ আর্জেন্টিনা, মেক্সিকোর মতো শক্তিশালী দল। তাদের গ্রুপের অন্য প্রতিপক্ষ সৌদি আরব। দলের নতুন কোচ চেসলো মিচনিউইচ গত ৩১ জানুয়ারি ডাগআউটের দায়িত্ব নিয়ে দলকেও রেখেছেন দারুণ ছন্দে। পোল্যান্ডকে আরেকবার তুলেছেন বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায়। এবার তিনি স্বপ্ন দেখছেন দীর্ঘ ৩৬ বছর পর প্রথমবার গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরোনোর।

আরও পড়ুন- মেসির সঙ্গে খেলা স্বপ্নের মতো: লেভানডভস্কি

কাতার বিশ্বকাপের শেষ ষোলোতে ওঠার প্রসঙ্গে পোলিশ কোচ মিচনিউইচ বলেন, ‘নকআউট পর্বে উঠলে আমাদের প্রত্যাশা পূরণ হবে, ভক্ত ও সাংবাদিকদেরও। আমাদের দারুণ একটি দল, বিশ্বমানের তারকা রবার্ট লেভানডোভস্কিসহ আরও খেলোয়াড় আছে যারা ইউরোপের সেরা লিগগুলোতে তাদের ক্লাবের হয়ে শীর্ষস্থানীয় ভূমিকা রাখে। দলে আছে কিছু প্রতিভাবান তরুণ খেলোয়াড়। তরুণ ও অভিজ্ঞতার মিশেলে পাওয়া দল আমাদের জন্য একটা সুযোগ। অবশ্যই নকআউটে ওঠা হবে সাফল্য, কিন্তু আমরা জানি কঠিন কাজ অপেক্ষা করছে’।

আসন্ন কাতার বিশ্বকাপে পোল্যান্ড দলের তুরুপের তাস রবার্ট লেভানডভস্কি। পোলিশ ফুটবলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলের মালিক এই তারকা স্ট্রাইকার। ১৩৪ ম্যাচে যার গোলসংখ্যা ৭৬টি। চলতি মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখ ছেড়ে যোগ দিয়েছেন কাতালান ক্লাব বার্সেলোনায়। বার্সার জার্সি গায়ে ১৯ ম্যাচে করেছেন ১৮ গোল।

আরও পড়ুন- লেভানডফস্কির নেতৃত্বে পোল্যান্ডের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা

৩৪ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকারের উপস্থিতি সবসময়ই বাড়তি উদ্দীপনা যোগায় দলকে। এমন প্রসঙ্গে মিচনিউইচ জানান, ‘রবার্ট চমৎকার খেলোয়াড় এবং সে এমন যাকে প্রত্যেক দল তাদের লাইনআপে চায়। যদিও সে একজন স্ট্রাইকার, কিন্তু শুধু গোল করার চেয়েও আমাদের জন্য সে অনেক বেশি কিছু করে। সে একজন সত্যিকারের অধিনায়ক, শুধু মাঠে নয়, মাঠের বাইরেও। তরুণ খেলোয়াড়দের জন্য সে একজন রোল মডেল’।

কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রতিপক্ষ নিয়ে মিচনিউইচ বলেন, ‘কোনও সন্দেহ নেই যে আমরা আমরা তিনটি শক্তিশালী দলের সঙ্গে খেলতে যাচ্ছি। তিনটিই হবে আমাদের জন্য কঠিন ম্যাচ। আমরা আমাদের প্রতিপক্ষদের পর্যবেক্ষণে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার সহকর্মী ও আমি এরই মধ্যে মেক্সিকো ও আর্জেন্টিনার ম্যাচ স্টেডিয়ামে বসে সরাসরি দেখেছি। এদের অনেক খেলোয়াড় ইউরোপে খেলে, তাই আমরা চেষ্টা করেছি তাদের ক্লাব ম্যাচগুলোতেও চোখ রাখতে। কিন্তু আমি সবসময় আসন্ন প্রতিপক্ষকে নিয়ে মনোনিবেশ করি। আমাদের প্রথম ম্যাচ মেক্সিকোর বিপক্ষে, তাই আমাদের সবার মনোযোগ এখন শুধু তাদের নিয়েই’।

এফএইচ

টাইমলাইন