শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪, ঢাকা

১৩ তলা সমান উঁচু পদ্মা সেতু

আসাদুজ্জামান লিমন
প্রকাশিত: ০৮ জুন ২০২২, ০৩:০৪ পিএম

শেয়ার করুন:

১৩ তলা সমান উঁচু পদ্মা সেতু

উদ্বোধনের দ্বারপ্রান্তে এসে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পদ্মা সেতু। বাঙালির গল্প-আড্ডায় উঠে এসেছে গর্বের এই সেতু। তাই একে নিয়ে আগ্রহেরও কমতি নেই। নানা মনে নানান জিজ্ঞাসা। অনেকেই দেশের দীর্ঘ এই সেতুটি সম্পর্কে খুঁটিনাটি তথ্য জেনে নিচ্ছেন। এসব তথ্যে নিজেকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি অন্যদেরও জানিয়ে দিচ্ছেন। পদ্মা সেতু নিয়ে যতগুলো বিষয় জানার আছে তার মধ্যে অন্যতম হলো এর পিলারের সংখ্যা কত? ইতোমধ্যে এর দৈর্ঘ্য জানলেও উচ্চতা নিয়ে সবার মনে রয়েছে কৌতূহল। 
 
পদ্মা সেতুর ৪২টি পিলার। এই পিলারগুলোতে বসেছে ৪১টি স্প্যান। সেতুর এক ও ৪২ নম্বর পিলার ট্রানজিশন পিলার। এই পিলার দুইটি এক একটি ১৩ তলা সমান উঁচু। মাঝখানের পিলারগুলোর উচ্চতা কম বেশি আছে। তবে সবচেয়ে বেশি উঁচু দুই ট্রানজিশন পিলার হিসাবে ধরলে পদ্মা সেতু ১৩ তলা সমান উঁচু। 

pillarপদ্মা সেতুর উচ্চতার বিষয়টি নিশ্চিত করলেন পদ্মা সেতুর নির্মাণকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানির (এমবিইসি) প্রকৌশলী জাহিদ। 


বিজ্ঞাপন


তিনি জানান, পদ্মা সেতুর প্রথম এবং ৪২ নম্বর পিলার ১৩ তলা সমান উঁচু। এই দুইটি পিলারকে বলা হয় ট্রানজিশন পিলার। বর্তমানে এই দুই পিলারের দুই পাশে দুইটি অস্থায়ী সিঁড়ি বানানো হয়েছে। এই সিঁড়ি দিয়ে সেতু নির্মাণের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী ও শ্রমিকরা ওঠা-নামা করছেন। সিঁড়িগুলো দিয়ে উঠতে ও নামতে রীতিমতো ঘাম ঝরাতে হয়। কেননা, ঝুঁকি নিয়ে বেশ কসরত করে লোহার সিঁড়ি বেয়ে সেতুতে উঠতে হয়।  

২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে। কিন্তু এখনই ট্রানজিশন পিলারে ওঠা-নামার সিঁড়িগুলো খুলে ফেলা হবে না। সিঁড়িগুলো থাকবে আরও কিছু দিন। এমনটাই জানালেন সেতুর প্রকৌশলীরা।  

pillarসেতুর ১ নম্বর ট্রানজিশন পিলার মাওয়া প্রান্তে। ৪২ নম্বরটি জাজিরা প্রান্তে। ১ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যান এবং ৪২ নম্বর পিলারে সেতুর শেষ স্প্যান বসেছে। 

সেতুতে যতগুলো পিলার আছে তার মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এই দুটি। এর নির্মাণ ব্যয়ও বেশি। পিলার দুইটিতে পাইলেরও সংখ্যাও অন্যগুলোর তুলনায় বেশি। এই দুইটিতে ১৬টি করে পাইল দেওয়া হয়েছে। মাঝ নদীর পিলারগুলোতে পাইল রয়েছে ৬টি করে।


বিজ্ঞাপন


এই পিলার দুইটি থেকে সেতুতে ওঠা-নামার তিনটি করে সংযোগ সড়ক বের হয়েছে। যারা দুইটি হচ্ছে সড়ক পথ। একটি রেল পথ। সড়ক পথের একটি সেতুতে ওঠার জন্য। আরেকটি সেতু থেকে নামার জন্য। রেল পথ একটিই। 

pilarট্রানজিশন পিলার দুইটির আরেকটি বিশেষত্ব হচ্ছে- এই দুইটি পিলার মূল সেতু এবং সংযোগ সেতুর বন্ধন তৈরি করেছে। 

অন্যসব পিলারের তুলনায় এই দুইটি পিলার দেখতেও আলাদা। এগুলোর ডানা সদৃশ্য কাঠামো রয়েছে। যা সেতুর মূল সড়ক পথের দুই পাশ দিয়ে জেগে উঠেছে। 

এজেড

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর