শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪, ঢাকা

পদ্মা সেতুর রেল সংযোগের পরামর্শ ব্যয় বাড়ছে ৩০১ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩ মে ২০২৩, ০৪:৫৩ পিএম

শেয়ার করুন:

পদ্মা সেতুর রেল সংযোগের পরামর্শ ব্যয় বাড়ছে ৩০১ কোটি টাকা
ফাইল ছবি

বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতুর রেল সংযোগের পরামর্শক ব্যয় ৩০১ কোটি ৪২ লাখ টাকা বাড়ছে। পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের মেয়াদ বাড়ায় এই ব্যয় বাড়ানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে সরকার।

বুধবার (৩ মে) এই প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এতে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।


বিজ্ঞাপন


সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান সাংবাদিকদের বলেন, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীন ‘পদ্মা সেতু রেল সংযোগ’ প্রকল্পে নিয়োজিত পরামর্শক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ আর্মি ইন অ্যাসোসিয়েশন উইথ বিআরটিসি, বুয়েটকে মেয়াদ ২০২৪ সালের মে পর্যন্ত বৃদ্ধির জন্য ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ৩০১ কোটি ৪২ লাখ টাকা ব্যয় বৃদ্ধির ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সাঈদ মাহবুব জানান, এই ব্যয় বাড়ানোর ফলে এই খাতের মোট ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২৪২ কোটি ২৭ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। মেয়াদ বাড়ানোর কারণেই এই ব্যয় বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ এপ্রিল পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের ব্যয় বাড়ানোর অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। পাশাপাশি প্রকল্পের মেয়াদ ২০২৪ সাল পর্যন্ত করা হয়।

একনেক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছিলেন, নির্মাণসামগ্রীর দাম বৃদ্ধি, ২২টি পিলারে পরিবর্তন, নদীশাসন, সংস্কার ও ঠিকাদারের অনিষ্পত্তি দাবির কারণে পদ্মা সেতুর নির্মাণ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে দুই হাজার ৪১২ কোটি ১৩ লাখ টাকা। প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে ২০২৪ সাল পর্যন্ত।


বিজ্ঞাপন


গত ৪ এপ্রিল পরীক্ষামূলকভাবে পদ্মাসেতুতে ট্রেন চলে। প্রথম যে ট্রেনটি পদ্মা সেতু পার হয়, তার ইঞ্জিন আনা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র থেকে। সেটি টেনে নিয়ে গেছে চীন থেকে আনা সাতটি কোচ। আগামী বছরের জুনে ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে যশোর পর্যন্ত ১৭২ কিলোমিটার রেল চলাচল করবে। লেভেল ক্রসিংবিহীন এই রেলপথে ৩২টি রেল কালভার্ট, ৩৭টি আন্ডারপাস এবং ১৩টি রেল সেতুর কাজ শেষ হয়েছে। পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তের রেল স্টেশনসহ নতুন ১৪টি স্টেশন নির্মাণ এবং পুরোনো ছয়টি স্টেশন উন্নয়ন চূড়ান্ত পর্যায়ে।

গত বছরের ২৫ জুন উদ্বোধন করা হয় স্বপ্নের পদ্মা সেতু। পরদিন থেকে সেতুটি যানচলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়। শুরুর দিন থেকে পদ্মা সেতুতে রেল চলাচল করবে বলা হলেও তা প্রায় এক বছর পিছিয়ে যায়।

জেবি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর