ছয় মিনিটে মন্ত্রিসভার তিন সদস্যের পদ্মা সেতু পার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২২, ১১:৪১ পিএম
ছয় মিনিটে মন্ত্রিসভার তিন সদস্যের পদ্মা সেতু পার
কোলাজ : ঢাকা মেইল

ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে ক্ষণ গণনা। দেশের সর্বস্তরের মানুষের অপেক্ষা কবে আসবে ২৫ জুন। কারণ সেদিন খুলে দেওয়া হবে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দুয়ার। অবসান হবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরিঘাটে বসে থাকার কষ্টের। তবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের আগেই পদ্মা সেতু পার হলেন সরকারের মন্ত্রিসভার তিন সদস্য।

তারা হলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। 

রোববার (১২ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ঢাকায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে যাওয়া হয় পদ্মা সেতু এলাকায়। দিনভর ঘুরে ঘুরে সার্বিক প্রস্তুতি দেখেন সাংবাদিকরা। 

এদিন পদ্মা সেতু এলাকায় ওবায়দুল কাদেরসহ মন্ত্রীসভার একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সদস্য, পদ্মা পারের কয়েকটি নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্যরা ছিলেন। 

সেতু এলাকায় নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও সেতু বিভাগের সচিব। 

এদিকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিনে ড. মোহাম্মদ ইউনুস, বেগম খালেদা জিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর কথা বলেন সেতুমন্ত্রী। জানিয়েছেন উদ্বোধনের পরদিন সকাল থেকে সেতুতে টোল দিয়ে চলবে পরিবহন।

অন্যদিকে সেতু বিভাগের সচিব জানিয়েছেন টোল আদায় প্রক্রিয়া কেমন হবে সেসব বিষয় নিয়ে।

পদ্মা সেতু পার হওয়ার সময়ে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লাইভ করেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি স্বপ্নের পদ্মা সেতু পার হওয়া নিয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেন ফেসবুক লাইভে। এ সময় তার পাশে বসা পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমকেও কথা বলতে শোনা যায়।

জাতীয় পতাকাবাহী গাড়ির সামনের আসনে এ সময় বসা ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

অনেকটা ধারা বর্ণনা দিতে দিতে সেতু পার হন তারা। খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বলে বোঝানো যাবে না আজকে কেমন অনুভূতি হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়তার প্রমাণ এই পদ্মা সেতু।

অন্যদিকে পদ্মা পাড়ের জেলা শরিয়তপুরের সংসদ সদস্য এনামুল শামীম পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। বলেন, ফেরিঘাটে লম্বা সময় বসে থাকার আর প্রয়োজন হবে না। 

নিজের দুর্ভোগে পড়ার কাহিনি বর্ণনা করতে গিয়ে উপমন্ত্রী বলেন, একদিন বাড়ি থেকে ঢাকায় ফেরার সময় রাত হয়ে যাওয়ায় কোনোভাবে আর ফেরি পার হতে পারিনি। মন্ত্রীসভার সদস্য হওয়ার পরও বাড়ি ফিরে যেতে হয়েছে। পরের দিন চাঁদপুর দিয়ে ঢাকায় পৌঁছেছি। এমন হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন ঘাটের দুইপাড়ে দুর্ভোগে পড়তেন। সামনে থেকে আর কষ্ট হবে না। এ সময় তাকে বলতে শোনা যায়, উদ্বোধনের দিনে ১০ লাখ লোকের সমাগম করতে চায় আওয়ামী লীগ। 

এদিকে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে কেন্দ্র জমকালো আয়োজন ও সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। 

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ওইদিন সকাল ১০টায় মাওয়া প্রান্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুধী সমাবেশে বক্তব্য দেবেন। তারপর ১১ বা সাড়ে ১১টায় তিনি ওপাড়ে যাবেন।

পদ্মা সেতু পার হতে কতটুকু সময় লাগবে সে ব্যাপারে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘অনলি সিক্স মিনিট’। 

এনামুল হক শামীমকে বলতে শোনা যায়, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিনের কেমন আয়োজন হবে এবং সেতুর সবশেষ অবস্থা দেখতে আজকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী পদ্মা সেতুর এ পাড় ঘুরে দেখলেন।

বিইউ/এইউ

টাইমলাইন