সোমবার থেকে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৬ জুন ২০২২, ০৯:২২ পিএম
সোমবার থেকে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ
খুলে দেওয়ার প্রথম দিনেই মোটরসাইকেলের ঢল নামে পদ্মা সেতুতে। ছবি: ঢাকা মেইল

বহুল কাঙ্ক্ষিত পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ার প্রথম দিনেই রোববার ঢল নামে মোটরসাইকেলের। এতে দুর্ঘটনায় দুজন আহত হয়েছেন। এই পরিপ্রেক্ষিতে আগামীকাল সোমবার (২৭ জুন) ভোর ৬টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। 

রোববার (২৬ জুন) রাতে সেতু বিভাগ থেকে এই নির্দেশনা জারি করা হয়। সরকারি তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ থাকবে।

এদিকে রোববার রাতে পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মারাত্মক আহত হয়ে দুজন সেতুর ওপর পড়ে আছেন। পাশে রক্তের ছোপ। সেতুর ২৭ ও ২৮ নম্বর পিলারের মাঝখানে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর পদ্মা সেতু শনিবার (২৫ জুন) উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরদিন রোববার (২৬ জুন) ভোর ছয়টা থেকে যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় সেতুটি।

প্রথম দিনেই পদ্মা সেতুতে ঢল নামে মোটরসাইকেলের। সেতুটি খুলে দেওয়ার আট ঘণ্টায় ১৫ হাজারের বেশি যানবাহন যাতায়াত করে। এর মধ্যে প্রায় ৬০ ভাগ মোটরসাইকেল।

পদ্মা সেতু দেখার জন্য এক মোটরসাইকেলে তিনজনকেও বাহন করতে দেখা যায়। সেতুতে নামা কিংবা দাঁড়িয়ে ছবি তোলা নিষিদ্ধ থাকলেও প্রথম তিন তোয়াক্কা করা হয়নি এই নিয়মের।

SS

রোববার সেতু এলাকায় শত শত যুবককে মোটরসাইকেল নিয়ে পদ্মা সেতুতে ঘুরতে দেখা গেছে। কোনোটিতে দুইজন আবার কোনো বাইকে তিনজন করে এসেছেন। বাইকে করে স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে সেতু দেখতে এসেছেন সেলিম। সেতুর মাঝে আসার পর একপাশে বাইক রেখে ছবি তুলে নিজেদের স্মরণীয় করে রাখার চেষ্টা করছেন। তবে সেলিম হোসেন ছাড়া অন্য দুজনের কারও মাথায় হেলমেট ছিল না।

পরিবার নিয়ে এভাবে আসা নিরাপদ কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে ঢাকা মেইলকে সেলিম বলেন, ‘সামনে তো ভিড় বেড়ে যাবে। তখন সেতুতে দাঁড়ানোও যাবে না। আর টোল একশো টাকা করে। খুব বেশিও না। মাত্র দুইশো টাকায় আমাদের টাকার পদ্মা সেতু দেখার সুযোগ মিস করতে চাইনি।’

প্রথম দিনের প্রথম আট ঘণ্টায় ভোর ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সেতুতে টোল আদায় হয়েছে ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকার। এসময় গাড়ি চলাচল করেছে ১৫ হাজার ২০০টি। এর মধ্যে ৬০ শতাংশই মোটরসাইকেল। ২৪ ঘণ্টায় সেতু থেকে দুই কোটি টাকা টোল আদায়ের প্রত্যাশা করছে কর্তৃপক্ষ।

জেবি

 

টাইমলাইন