মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪, ঢাকা

আগ্রহ বেশি মেট্রোরেলের স্থায়ী কার্ডে, নিতে হলে করতে হবে নিবন্ধন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৪ পিএম

শেয়ার করুন:

আগ্রহ বেশি মেট্রোরেলের স্থায়ী কার্ডে, নিতে হলে করতে হবে নিবন্ধন

মেট্রোরেল উদ্বোধনের পরদিন থেকে অর্থাৎ আগামী বৃহস্পতিবার থেকে স্থায়ী ও অস্থায়ী টিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন যাত্রীরা। আপাতত স্টেশন থেকে সংগ্রহ করা যাবে ১০ বছর মেয়াদী স্থায়ী কার্ড। পরে স্টেশনের বাইরে থেকেও এটি সংগ্রহ করা যাবে। মোবাইলের মতো রিচার্জ করে যাতায়াত করতে পারবেন যাত্রীরা। তবে জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে করতে হবে নিবন্ধন।

মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ বলছে, সাধারণ যাত্রীদের মধ্যে স্থায়ী কার্ড নেওয়ার জন্য আগ্রহ বেশি লক্ষ্য করছেন।


বিজ্ঞাপন


আগামী বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) উদ্বোধন করা হবে মেট্রোরেল। শুরুতে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত রুটে চলবে মেট্রোরেল।

উদ্বোধনের দিনে মেট্রোরেলের প্রথম টিকিট কেটে উত্তরা থেকে আগারগাঁও যাত্রা করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি স্থায়ী কার্ড কিনে ভাড়া পরিশোধ করবেন বলে জানা গেছে।

সরকার মেট্রোরেলের সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করেছে ২০ টাকা। এরপর প্রতি দুই স্টেশন পর ১০ টাকা করে ভাড়া যোগ হবে। উত্তরা উত্তর স্টেশন থেকে আগারগাঁও স্টেশন পর্যন্ত ভাড়া হবে ৬০ টাকা।

যদিও এই ভাড়া নিয়ে যাত্রী কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে আপত্তি জানানো হয়েছে। তারা ভাড়া ৫০ শতাংশ কমানোর দাবি করেছে।


বিজ্ঞাপন


কেমন হবে মেট্রোরেলের টিকেট
মেট্রোরেল চলাচল করতে আগ্রহীদের দুই ধরনের টিকেট কাটার সুযোগ পাবেন। সিঙ্গেল যাত্রার টিকেট ও স্থায়ী কার্ড নিয়ে পরে রিচার্জ করে চলাচল করা যাবে।

মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রথম দিকে স্থায়ী ও এক যাত্রার (সিঙ্গেল জার্নি) কার্ড মেট্রোরেল স্টেশন থেকেই কিনতে হবে। বাইরে পাওয়া যাবে না। ১০ বছর মেয়াদি স্থায়ী কার্ড কিনতে হবে ২০০ টাকা দিয়ে। এই কার্ডে যাতায়াতের জন্য টাকা ভরা (রিচার্জ) যাবে। 

প্রথমবার কার্ডটি নেওয়ার সময় চারশো টাকা লাগবে। যার দুইশো টাকা জামানত হিসেবে রাখা হবে। আর দুইশো টাকা রিচার্জ করা থাকবে যা যাত্রী ব্যবহার করতে পারবে। আবার কার্ড জমা দিয়ে জামানতের টাকা ফেরত নিতে পারবেন যাত্রীরা।

অন্যদিকে এক যাত্রার কার্ড নির্ধারিত ভাড়া পরিশোধ করে নিতে হবে। ট্রেন থেকে নামার সময় তা রেখে দেওয়া হবে। নামার সময় কার্ড জমা না রাখলে যাত্রীরে বের হতে পারবেন না। পর্যায়ক্রমে স্টেশনের বাইরেও মেট্রোরেলের কার্ড বিক্রির জন্য কিছু প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক বলেছেন, তারা স্থায়ী কার্ডের প্রতি মানুষের বেশি আগ্রহ দেখেছেন। এই কার্ডে মুঠোফোনে আর্থিক সেবা (এমএফএস) ও ব্যাংক কার্ডের মাধ্যমেও টাকা ভরার ব্যবস্থা করা হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাধারণ যাত্রীদের জন্য আগামী বৃহস্পতিবার সকাল থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হবে। প্রথমে উত্তরা ও আগারগাঁও স্টেশন থেকে টিকিট কাটা যাবে। তবে টিকিট কাটার আগে নিবন্ধন করে নিতে হবে। বৃহস্পতিবার ডিএমটিসিএলের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিবন্ধনের সুযোগ দেওয়া হবে। নিবন্ধন করতে নিজের নাম, পিতা-মাতার নাম, ফোন নম্বর ও ই-মেইল লাগবে।

যারা স্থায়ী কার্ড সংগ্রহ করবেন তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে গেলে হবে। তবে সিঙ্গেল যাত্রার কার্ড নিতে কিছু প্রয়োজন হবে না বলে জানা গেছে।

বিইউ/এইউ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর