রোববার, ২৬ মে, ২০২৪, ঢাকা

মেট্রোরেলে থাকবেন একাধিক নারী চালক, উদ্বোধনে চালাবেন মরিয়ম

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৫৪ পিএম

শেয়ার করুন:

মেট্রোরেলে থাকবেন একাধিক নারী চালক, উদ্বোধনে চালাবেন মরিয়ম

অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে আগামী বুধবার (২৮ ডিসেম্বর)। ওইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন স্বপ্নের মেট্রোরেল। দেশের প্রথম মেট্রোরেলে চালকের আসনে থাকছেন পাঁচ থেকে ছয় জন নারী। ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানির তথ্যমতে— মরিয়ম আফিজা উদ্বোধনী দিনই চালকের আসনে বসার প্রস্তুতি শেষ করেছেন। শুরুতে চলবে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত। এই অংশের ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার পথে রয়েছে নয়টি স্টেশন। যেখানে থাকছে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। 

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম এ এন সিদ্দিক বলেন, পুরুষ চালকদের সঙ্গে নারী চালক এই ট্রেন চালাতে প্রস্তুত। উদ্বোধনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সবগুলো ট্রেন চালানোর জন্য পর্যাপ্ত চালক নিয়োগ করা হয়েছে, যাদের মধ্যে পাঁচ-ছয়জন নারী সদস্যও আছেন, তাদের প্রশিক্ষণও আমরা শেষ করেছি।


বিজ্ঞাপন


নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) থেকে কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতকোত্তর শেষ করে মেট্রোরেলের চালক হিসেবে নিয়োগ পান মরিয়ম আফিজা। গত বছরের ২ নভেম্বর চালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। টানা ১ বছর প্রশিক্ষণ নিয়ে চালক হিসেবে নিজেকে তৈরি করেছেন মেট্রোরেলের এই নারী চালক। উদ্বোধনের দিন মেট্রেরেলের প্রথম যাত্রী হবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর দায়িত্ব পেলে সেদিন ট্রেন চালানোর প্রস্তুতি নিয়ে রাখার কথা জানিয়েছেন তিনি।

ইতোমধ্যে মরিয়ম আফিজা চট্টগ্রামের হালিশহরে রেলওয়ের ট্রেনিং একাডেমিতে দুই মাসের প্রশিক্ষণ নিয়ে ঢাকায় ফিরে আরও চার মাস প্রশিক্ষণ নেন। বর্তমানে উত্তরার দিয়াবাড়িতে মেট্রোরেলের ডিপোতে কারিগরি ও প্রায়োগিক প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। সেখানে মেট্রোরেলের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জাপানের মিতসুবিশি-কাওয়াসাকি কোম্পানির বিশেষজ্ঞরা ট্রেন পরিচালনার কারিগরি ও প্রায়োগিক নানা প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। 

মেট্রোরেলের নারী চালক হতে পেরে উচ্ছ্বসিত মরিয়ম আফিজা। তিনি বলেন, ২০২১ সালের ২ নভেম্বরে আমি নিয়োগ পাই। এর আগে চালক হিসেবে কোথাও কাজ করিনি। নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে আমি কয়েকটি ট্রেনিং করেছি। এখনও ট্রেনিংয়ের মধ্যেই আছি। সঠিকভাবে সব প্রশিক্ষণ নেওয়া এবং প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করতে পেরেছি বলে আমি মনে করি। আরও দক্ষতা অর্জনের জন্য প্রতিনিয়ত প্রশিক্ষণ নিচ্ছি এবং শিখছি।

লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার করপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা মরিয়ম আফিজা। তিনি বলেন, নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই স্বপ্ন বুনছি সেই মাহেন্দ্রক্ষণের। মেট্রোরেল বাংলাদেশে প্রথম। তাই আগ্রহ থেকেই এই চাকরির আবেদন করেছিলাম। বাংলাদেশের জন্য মেট্রোরেল যেমন স্বপ্নের মতো, ঠিক তেমনি মেট্রোরেল আমার কাছেও একটা স্বপ্ন। আমি নিজে ট্রেন চালাব— এটা ভেবে এখনই বেশ আনন্দ লাগছে। 


বিজ্ঞাপন


নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিস্ময় প্রকল্প মেট্রোরেল। তিনি সব সময় নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছেন। তার অংশ হিসেবে আমাদের শিক্ষার্থী নারী চালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছে। মরিয়ম আফিজার এমন সাফল্যে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার আনন্দিত।

মেট্রোরেলের লাইন নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালে মেট্রোরেল প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। জাপানের উন্নয়ন সহযোগিতা সংস্থা জাইকার সঙ্গে ঋণচুক্তি হয় পরের বছর। মূল কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে। এই প্রকল্পের আওতায় উত্তরা (দিয়াবাড়ি) থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেলের কাজ চলছে। উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশের কাজ শেষ হয়েছে। পুরো মেট্রোরেলের দৈর্ঘ্য ২০ কিলোমিটারের কিছু বেশি। এর মধ্যে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত পথের দৈর্ঘ্য ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার। এই পথে নয়টি স্টেশন রয়েছে— উত্তরা উত্তর (দিয়াবাড়ি), উত্তরা সেন্টার, উত্তরা দক্ষিণ, পল্লবী, মিরপুর-১১, মিরপুর-১০, কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া ও আগারগাঁও। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ২৪ সেট মেট্রো ট্রেন নিয়ে শুরু হবে এমআরটি লাইন-৬ এর যাত্রা। প্রতি সেট মেট্রো ট্রেনে প্রাথমিকভাবে ছয়টি করে কোচ থাকবে। পরে আরও দুটি কোচ যোগ করে কোচের সংখ্যা আটটিতে উন্নীত করা হবে।

ডব্লিউএইচ/এইউ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর