সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪, ঢাকা

মেট্রোরেলের প্রথম দিনই সার্ভারে সমস্যা!

খলিলুর রহমান
প্রকাশিত: ২৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৫২ এএম

শেয়ার করুন:

মেট্রোরেলের প্রথম দিনই সার্ভারে সমস্যা!

রাজধানীবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন ছিল মেট্রোরেল। গতকাল বুধবার ওই স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে প্রথম যাত্রী হিসেবে টিকিট কেটে অতিথিদের নিয়ে মেট্রোভ্রমণ উপভোগও করেছেন তিনি। তাই আজ বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) সকাল থেকে জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে মেট্রোরেলের দুয়ার। কিন্তু সকালেই সার্ভার সমস্যা ও টিকিট মেশিনটি বিকল হয়ে যাওয়ার ঘটনায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক যাত্রীই। 

বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে রাজধানীর উত্তরা দিয়াবাড়ি স্টেশনে গিয়ে দেখা গেছে, বাহিরে যাত্রীদের লম্বা লাইন। গেইটে দুইজন আনসার সদস্য দাঁড়িয়ে আছেন। প্রথম ৫ জন করে পরে ১০ জন করে প্রবেশ করার অনুমতি দিচ্ছেন তারা। পরবর্তীতে এক সাথে ৪০ থেকে ৫০ জন যাত্রী প্রবেশের অনুমতি দেন তারা। পরে চলন্ত সিঁড়ি দিয়ে টিকিট কাউন্টারে গিয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন যাত্রীরা। 


বিজ্ঞাপন


এ সময় এই প্রতিবেদকও প্রবেশ করেন। পরে চলন্ত সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠে আরেকটি লাইনে দাঁড়াতে হয়। এ সময় অন্যান্য যাত্রীদের মতো তিনিও টিকিট মেশিনের মাধ্যমে কার্ড সংগ্রহের চেষ্টা করেন। প্রথমে ১০ টাকার নোট দেন। পরবর্তীতে ৫০ টাকার একটি নোট মেশিনে দেন তিনি। কিন্তু মুহূর্তের মধ্যে টাকা বের হয়ে আসে।

পরবর্তীতে দায়িত্বরত মেট্টোরেলের কর্মকর্তারা জানান, লাল নোট থাকায় টাকা নিচ্ছে না মেশিন। এসময় জাকারিয়া নামের ওই কর্মকর্তার কাছ থেকে নিয়ে দুটি ২০ টাকার নোট ও একটি ১০ টাকার নোট দেন। পরে ১০ টাকার নোট ও একটি ২০ টাকার নোট মেশিন নিলেও অপর আরেকটি ২০ টাকার নোট বেরিয়ে আসে। অনেক বার চেষ্টা করার পরও ওই টাকা মেশিন নেয়নি। পরবর্তীতে ওই কর্মকর্তা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন সার্ভারে সমস্যা হচ্ছে।

কিচ্ছুক্ষণ পর আরেক কর্মকর্তা এসে তার কাছ থেকে নতুন আরেকটি ২০ টাকার নোট দেন। তখন সেই টাকা মেশিন ভেতর প্রবেশ করে এবং কাঙ্খিত সেই কার্ড চলে আসে। পরে উত্তরা থেকে আগারগাঁও স্টেশনে যাত্রা করেন তিনি।

station


বিজ্ঞাপন


শুধু এই সমস্যা নয়, সকাল সাড়ে ৮টার পরে উত্তরা স্টেশনে টিকিট ভেন্ডিং মেশিন বিকল হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এ সময় সাময়িক টিকিট দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। 

সরেজমিনে দেখা যায়, যাত্রীরা প্রবেশ করে টিকিট কাটা শুরু করলে ৮টা ৩৫ মিনিটের দিকে টিকিট মেশিনটি বিকল হয়ে যায়। পরে স্টেশনের এক নির্দেশনায় বলা হয় কাউন্টার থেকে টিকিট কিনতে।

আমিনুল ইসলাম নামের এক যাত্রী ঢাকা মেইলকে বলেন, আমি মেশিনে টাকা দিয়ে টিকিট পাইনি। পরে বাধ্য হয়ে টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট নিয়েছি। প্রথম দিনেই টিকিট সিস্টেমের এই বিষয়টি ভালো লাগল না। 

এ ব্যাপারে মেট্রোরেলের অতিরিক্ত স্টেশন কন্ট্রোলার সোহেল রানা সাংবাদিকদের বলেন, কারিগরি ত্রুটিতে টিকিট ভেন্ডিং মেশিন বন্ধ রয়েছে। ভেতরে কাজ চলছে। আশা করছি দ্রুতই ঠিক হয়ে যাবে।

এদিকে উত্তরা থেকে আগারগাঁও স্টেশন ঘুরে দেখা গেছে, যাত্রীদের সহযোগিতা করছেন রোভার স্কাউটের সদস্যরা।

station

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই উত্তরা উত্তর স্টেশন ও আগারগাঁও স্টেশনে ৩৬ জন রোভার স্কাউট স্বেচ্ছাসেবী হিসেব কাজ করছেন। 

ডিএমটিসিল সূত্রে জানা গেছে, রোভার স্কাউটদের মেট্রোরেল চত্বরে বহিরাগত অনুপ্রবেশ পর্যবেক্ষণ, মেট্রোরেলের সম্পত্তি চুরি বা ক্ষতি ঠেকানো, যাত্রী ও অন্যদের সহযোগিতা করা এবং মেট্রোরেল চত্বরে আগুন এবং অন্যান্য অনিরাপদ ঘটনার তাৎক্ষণিক সমাধান ও ক্ষতি হ্রাস করতে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে।

তাদের তাত্ত্বিক এবং সরেজমিনে প্ল্যাটফর্ম পরিদর্শন করানোর মাধ্যমে যাত্রীদের সেবায় প্রশিক্ষিত করা হয়েছে। তবে বিশেষভাবে জনসাধারণের এবং মেট্রোরেলের সহকর্মীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করা এবং অনভিপ্রেত যেকোনো ঘটনা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানানো এবং স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমস্ত সম্ভাব্য সহায়তা প্রদান করার বিষয়টি বিশেষভাবে রোভার স্কাউট সদস্যরা নজরে রাখছেন। 

ঢাকা জেলা রোভারের লিডার এবং এ কার্যক্রমের সমন্বয়ক তৌহিদুজ্জামান নিপু বলেন, রোভার স্কাউট সদস্যরা দেশের কল্যাণে এবং বিভিন্ন প্রয়োজনে স্বেচ্ছাসেবার মাধ্যমে সহযোগিতা করেন। মেট্রোরেল যেহেতু আমাদের দেশে প্রথমবারের মতো যাত্রা করেছে তাই সাধারণ মানুষ যেন বাহনটি সহজেই ব্যবহার করতে পারেন সেজন্য ডিএমটিসিএল এবং বাংলাদেশ স্কাউটসের যৌথ উদ্যোগে এসব রোভাররা কাজ করছেন। 

কেআর/এএস

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর