সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪, ঢাকা

মেট্রোরেলের যাত্রীদের নিরাপত্তায় যা থাকছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:২৫ এএম

শেয়ার করুন:

মেট্রোরেলের যাত্রীদের নিরাপত্তায় যা থাকছে

ছয় দিন পরেই চালু হতে যাচ্ছে স্বপ্নের মেট্রোরেল। ২৮ ডিসেম্বর থেকে বহুল প্রতীক্ষিত এই রেল ব্যবস্থা চালু হবে। তবে যাত্রীরা চড়ার সুযোগ পাবেন উদ্বোধনের পরদিন থেকে।

মেট্রোরেল ব্যবহার করে যারা চলবেন তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন কর্তৃপক্ষ। সেজন্য যাত্রীদের নিরাপত্তায় বেশ কিছু উন্নত প্রযুক্তি যুক্ত করা হয়েছে। বিশেষ প্রয়োজনে ট্রেনের ভেতর থেকে যাত্রীরা নিরাপত্তার দায়িত্বে যারা রয়েছেন তাদের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। ট্রেনের ভেতরে সিসি ক্যামেরা থাকবে। কন্ট্রোলরুম থেকে সব সময় ট্রেনের ভেতরের পরিস্থিতি দেখা যাবে।


বিজ্ঞাপন


আপৎকালে মেট্রোরেলের ভেতর থেকে বাইরে যাওয়ার জন্য জরুরি বহির্গমন দরজা রাখা হয়েছে। মেট্রোস্টেশন, রুট অ্যালাইমেন্ট ও মেট্রো ট্রেনে অনাকাঙ্ক্ষিত আগুন লাগলে সেটাও স্বয়ংক্রিয়ভাবে নেভানোর জন্য অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা রয়েছে। মেট্রোরেলে যাতায়াতকারী যাত্রীদের নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করতে স্বতন্ত্র বিশেষায়িত এমআরটি পুলিশের কার্যক্রম থাকবে।

শুরুর দিকে প্রতিদিন সকালে চার ঘণ্টা চলবে মেট্রোরেল। উত্তরা উত্তর থেকে আগারগাঁও স্টেশনে আসতে মাঝে শুধু পল্লবী স্টেশনে থামবে। উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত দীর্ঘ ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার মেট্রো রেল নির্মাণের কাজ চলমান।

এর মধ্যে উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশ উদ্বোধন করা হবে ২৮ ডিসেম্বর। এই রুট চালু হওয়ার পর আগারগাঁও থেকে যাত্রী পরিবহনে মেট্রো স্টেশন এলাকায় বিআরটিসির ডিপো থাকবে। ট্রেন থেকে নামা যাত্রীদের বিআরটিসির বাস সার্ভিস পরিবহনে সহায়তা করবে।

২০৩০ সালের মধ্যে ঢাকায় মোট ছয়টি মেট্রোরেল লাইন নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। উত্তরার দিয়াবাড়ী থেকে মতিঝিল ও কমলাপুর পর্যন্ত এমআরটি-৬ নামে পরিচিত এ রুটটি সবার আগে চালু হচ্ছে। উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত এ মাসেই চালু হচ্ছে। আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশ ২০২৩ সালে চালুর কথা রয়েছে।


বিজ্ঞাপন


এরপর কমলাপুর থেকে বিমানবন্দর এবং নতুনবাজার থেকে পূর্বাচল পর্যন্ত লাইনের কাজ ২০২৪ সালে শুরুর কথা। এটি মেট্রোরেল লাইন-১ রুট নামে পরিচিত। কমলাপুর থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত হবে পাতাল রেল। আর নতুন বাজার থেকে পূর্বাচল পর্যন্ত অংশ আবার উড়াল পথে। সাড়ে ৫২ হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পের কাজ ২০২৬ সালে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও তা দেরি হতে পারে বলে মনে করছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

আর আগামী বছরের ডিসেম্বরে এমআরটি লাইন-৫ এর উত্তরের রুটের কাজও শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এই রুট সাভারের হেমায়েতপুর থেকে শুরু হয়ে গাবতলী, মিরপুর ও গুলশান হয়ে ভাটারা এলাকায় গিয়ে শেষ হবে।

টিএই/এমআর

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর