মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

বিধ্বস্ত এলাকায় ৩০ হাজার বাড়ি বানাবে তুরস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০১:৩৪ পিএম

শেয়ার করুন:

বিধ্বস্ত এলাকায় ৩০ হাজার বাড়ি বানাবে তুরস্ক

জোড়া ভূমিকম্প থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের জন্য আগামী মাসে ব্যাপকভাবে বাড়ি নির্মাণ শুরু করবে তুরস্ক। এরই মধ্যে ভূমিকম্প-বিধ্বস্ত প্রদেশে নতুন বসতি স্থাপনের এলাকা চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এরদোয়ান সরকার। দেশটি জানিয়েছে, ৩০ হাজার বাড়ি নির্মাণ করা হবে।

তুরস্কের পরিবেশ, নগরায়ণ এবং জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মুরাত কুরুম শুক্রবার ভূমিকম্প পরবর্তী পুনর্নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরুর বিষয়ে বলেন, নির্মাণ কাজ মার্চের মধ্যে শুরু হবে। খবর টিআরটি ওয়ার্ল্ডের


বিজ্ঞাপন


কুরুম বলেন, নতুন নির্মাণের জন্য জমি চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রদেশগুলোতে ৬ ফেব্রুয়ারির ভূমিকম্পের ফলে তুরস্কে প্রায় ৪০ হাজার লোকের মৃত্যু হয়েছে। কয়েক হাজার ভবন ভেঙে পড়েছে বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

তিনি বলেন, নতুন ভবনগুলো তিন থেকে চার তলার বেশি হবে না এবং পরিকল্পনা করা হবে স্থানীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও রীতিনীতি অনুযায়ী।

কুরুম বলেন, তুরস্ক শতাব্দীর বিপর্যয়কর ভূমিকম্পে হওয়া ক্ষতির মূল্যায়ন চালিয়ে যাচ্ছে। প্রায় ৭,৩২৮ জন বিশেষজ্ঞ ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে নিয়োজিত রয়েছেন। এ পর্যন্ত তারা ৬ লাখ ৮৪ হাজার ভবনের প্রায় ৩০ লাখ অ্যাপার্টমেন্ট পরিদর্শন করেছেন।

মন্ত্রী বলেন, ৯০,৬০৯টি ভবনের মধ্যে ৩ লাখ ৪৫ হাজার অ্যাপার্টমেন্ট হয় সম্পূর্ণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত, অথবা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত অথবা জরুরিভাবে ভেঙে ফেলার প্রয়োজন।


বিজ্ঞাপন


তুর্কি কর্মকর্তারা বলছেন, বিধ্বংসী ভূমিকম্পে ১ কোটি ৩০ লাখের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

দক্ষিণ তুরস্ক এবং উত্তর সিরিয়ায় কাহরামানমারাসে দুটি বিশাল ভূমিকম্পের বারো দিন পরও ধ্বংসস্তূপে মিলছে প্রাণ। এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা প্রায় ৪৬ হাজারে পৌঁছেছে। গত ৬ ফেব্রুয়ারি তুরস্ক ও সিরিয়ায় ৭.৮ ও ৭.৬ মাত্রার তীভ্র ভূমিকম্প আঘাত হানে।

তুরস্কের অন্তত দশটি প্রদেশ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে, শুক্রবার পর্যন্ত তুরস্কে নিহত হয়েছে ৩৯ হাজার ৬৭২ জন। একই সময় পর্যন্ত সিরিয়ায় মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজারের বেশি মানুষের।

একে

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর