শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪, ঢাকা

১০ ডিসেম্বর সমাবেশ হবেই: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:১০ পিএম

শেয়ার করুন:

১০ ডিসেম্বর সমাবেশ হবেই: মির্জা ফখরুল

আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় বিএনপির পূর্বঘোষিত সমাবেশ হবে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তবে অপ্রীতিকর কিছু ঘটলে সেজন্য সরকার দায়ী থাকবে বলে জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ হবে। সমাবেশের ব্যবস্থা করার দায়িত্ব সরকারের, অন্যথায় এর দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে।


বিজ্ঞাপন


বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও দলের প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ নানা দাবিতে দেশের নয়টি বিভাগীয় শহরে সমাবেশ করে বিএনপি।

পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী আগামী শনিবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকায় মহাসমাবেশ করার কথা রয়েছে দলটির। অন্যান্য সমাবেশগুলো শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হলেও ঢাকার কর্মসূচি ঘিরে বিপত্তি দেখা দিয়েছে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে ডিএমপির পক্ষ থেকে অনুমতি দেওয়া হলেও নয়াপল্টনে সমাবেশ করতে অনড় অবস্থানে আছে বিএনপি। এ নিয়ে বিতর্ক ও আলোচনার মধ্যেই গতকাল বিকালে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। নয়াপল্টনের এই সংঘর্ষে গুলিতে প্রাণ হারান একজন।


বিজ্ঞাপন


এরপর বিএনপি কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে বিএনপির মধ্যসারির বেশ কয়েকজন নেতাসহ তিন শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সমাবেশের বিষয়ে সর্বশেষ অবস্থান জানাতে গুলশানে সংবাদ সম্মেলনে আসেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, নয়াপল্টন ছাড়া প্রশাসন যদি আমাদের অন্য কোনো প্রস্তাব দেন সেটি অনুকূলে হলে আমরা ভেবে দেখব। তবে আমরা নয়াপল্টনেই শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করতে চাই। এর ব্যবস্থা করার দায়িত্ব সরকারের।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, গতকাল নয়াপল্টনে পুলিশ যে ঘটনা ঘটিয়েছে এটা গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মারার শামিল। আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়ে গণআন্দোলনের ভীত হয়ে দেশকে পুলিশে রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।

নয়াপল্টন থেকে অবিলম্বে পুলিশ প্রত্যাহার করতে হবে এবং সেখানে সমাবেশ করার পরিবেশ ও তৈরি করতে হবে এর দায়িত্ব সরকারের। বলেন ফখরুল।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেডএম জাহিদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ইমরান সালে প্রিন্স, বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলাম, নাজিম উদ্দিন আলম, জহির উদ্দিন স্বপন, তাইফুল ইসলাম টিপু, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়ায় উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার ও শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

এমই/এমআর

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর