সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪, ঢাকা

রংপুরে দূরপাল্লার বাস সংকট, লোকাল বাসের ভাড়াও ‘তিনগুন’

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৬ আগস্ট ২০২২, ০৬:০০ পিএম

শেয়ার করুন:

রংপুরে দূরপাল্লার বাস সংকট, লোকাল বাসের ভাড়াও ‘তিনগুন’

তেলের দাম বাড়ায় এবং বাসের ভাড়া পুননির্ধারণ না হওয়ায় রংপুর থেকে ঢাকাগামী দূরপাল্লার বাসের টিকিট সীমিত পরিসরে বিক্রি হচ্ছে। অনলাইনে মিলছে না কোনো টিকিট। তবে বেশি ভাড়ায় টিকিট বিক্রি করছে কোনো কোনো কাউন্টার। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। 

শনিবার (৬ আগস্ট) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গতকালের বিক্রিত টিকিটের কিছু বাস ছেড়ে গেছে সকালে। সেটির সংখ্যাও কম। যেখানে প্রতিদিন গড়ে ৩০-৩৫টা বাস ছাড়ে সেখানে তেলের দাম বাড়ায় ১০-১২টি বাস ছেড়েছে। অধিকাংশ বাস নানান অজুহাতে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়নি।


বিজ্ঞাপন


ঢাকা থেকে টিকিটের দাম পুননির্ধারন না হওয়া পর্যন্ত দূরপাল্লার বাসের টিকিট বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে অনেক কাউন্টার। অনলাইনেও টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। তবে ভাড়া বেশি দিলে পাওয়া যাচ্ছে টিকিট কিছু কিছু কাউন্টারে।

আব্দুর রহিম নামের একজন জানান, তিনি রাতের টিকিট নিতে এসেছেন কিন্তু কাউন্টার থেকে টিকিট দিচ্ছে না।

রংপুর কামার পাড়া বাসস্ট্যান্ড সমিতির সভাপতি মাহফুজার রহমান নবীন জানান, তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে কিন্তু বাসের ভাড়া এখনও নির্ধারণ করা হয়নি, যার কারণে কেউ কেউ টিকিট বিক্রি বন্ধ রেখেছে। ভাড়া নির্ধারণ হলেই এ সমস্যার সমাধান হবে। 

এদিকে মডার্ণ মোড় থেকে সকাল থেকে বগুড়া-গাইবান্ধা, রাজশাহীর উদ্দেশে অন্যান্য দিনের মতো বাস ছেড়ে যায়নি। সকাল থেকে ২-১ টা বাস ছেড়ে গেছে বগুড়ার উদ্দেশ। পর্যাপ্ত বাস না ছাড়ায় যাত্রীরা বাস সংকটে পড়েছেন। যে বাসগুলো ছেড়ে যাচ্ছে, সেগুলো তিনগুণ ভাড়া নিচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত রংপুর থেকে বগুড়ার ভাড়া ১৮০ টাকা, গাইবান্ধা ১২০ টাকা, রাজশাহী ৪০০ টাকা ছিল। তেলের দাম বাড়ায় এখন গাইবান্ধার ভাড়া ২৫০-৩০০ টাকা, বগুড়া ৩০০-৩৫০ টাকা, রাজশাহী ৭০০ টাকা নিচ্ছে বলে অভিযোগ যাত্রীদের।


বিজ্ঞাপন


অন্যদিকে কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, নীলফামারী, ঠাকুরগাঁওসহ বিভিন্নরুটের বাসের ভাড়া এখনও সরকার কর্তৃক নির্ধারণ না হলেও বেশি ভাড়া মেয়ায় যাত্রীরা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। 

সফরসঙ্গী বাসের কন্ট্রাক্টর ভোলা মিয়া ঢাকা মেইলকে বলেন, তেলের দাম বাড়ায় আমাদের বাসের ভাড়া এখনও নির্ধারণ না করায় সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বেশি ভাড়া দিতে চাচ্ছে না। এ নিয়ে তর্কবির্তক সকাল থেকে লেগেই আছে।  জন্য ট্রিপ বাতিল করছি। কেননা আগে বগুড়া যাতায়াতে ৫০০০ হাজার টাকার তেল লাগতো এখন তেল লাগবে ৭০০০ টাকা। যাত্রীরা ভাড়া বেশি দিতে চাচ্ছে না।  বাধ্য হয়ে বাস বন্ধ রাখতে হচ্ছে। 

তবে এ বিষয়ে জানতে চেয়েও বাস মালিকদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

প্রতিনিধি/এএ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

টাইমলাইন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর