প্রত্যাশার চাইতে বেশি মানুষ উপস্থিত যশোরের জনসভায়!

জেলা প্রতিনিধি
যশোর
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০২:০৯ পিএম
প্রত্যাশার চাইতে বেশি মানুষ উপস্থিত যশোরের জনসভায়!

খুলনা বিভাগ আওয়ামী লীগের আয়োজন ক্ষমতাসীন দলটির জনসভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে যশোরে। জেলার শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে এরই মধ্যে জনসভা শুরু হয়েছে। উপস্থিত হয়েছেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতারা। দুপুরে যোগ দেবেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 
বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) এই জনসভাকে কেন্দ্র করে খুলনা বিভাগের সকল জেলা থেকেই নেতাকর্মীরা এসেছেন জনসভাস্থলে। ফরিদপুর, মাদারীপুর, বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকেও নেতাকর্মীরা যোগ দিয়েছেন এই জনসভায়। 
 
২৯ ডিগ্রী তাপমাত্রা ও বিপুল মানুষের চাপ অনেকটা অস্বস্তিকর পরিবেশের সৃষ্টি করেছে জনসভাস্থলের আশেপাশে। তবুও নেতাকর্মীদের আসার কমতি নেই। ঘাটতি দেখা যায়নি বাদ্য-বাজনা ও উৎসবমুখর পরিবেশের। হইহুল্লোড় আর আনন্দে যেন সূর্যের তাপ গায়েই লাগছে না। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর আগমনের আনন্দ ছাপিয়ে গেছে তীব্র গরম। সকাল থেকে নেতাকর্মীদের উপচে পড়া ভিড় দুপুরের আগেই জনসভাস্থলকে জনসমুদ্রে পরিণত করেছে। 
 
সভাস্থলে আগতরা মূল মাঠে অবস্থা করবে। এভাবেই সব কিছু ঠিকঠাক করা হয়েছিল। কিন্তু দুপুরেই আগেই নেতাকর্মীদের স্রোত সে সিদ্ধান্ত বদলে বাধ্য করেছে। 
 
পূর্ব নির্ধারিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, স্টেডিয়ামের গ্যালারি ফাঁকা থাকবে। সেখানে নির্বাপত্তাকর্মী ছাড়া কেউ থাকবে না। তবে নেতাকর্মীদের উপস্থিতি যেন আওয়ামী লীগের প্রত্যাশাকেও হার মানিয়েছে। উপস্থিতিদের সামাল দিতে শেষমেষ গ্যালারিও খুলে দেওয়া হয়েছে। সেখানে বসার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে জনসভায় আগত বিপুল সংখ্যক নারী ও পুরুষদের। 
 
প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালের ২৬ ডিসেম্বর যশোর শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে জনসভা করেছিল তৎকালীন আওয়ামী লীগ। সে জনসভায় ভাষণ দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার ৫০ বছর পর এসে এই শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে জনসভা করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। পিতার ৫০ বছর পর এখানে ভাষণ দেবেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।

বলা হচ্ছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এই জনসভার মধ্য দিয়ে নিজেদের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। ফলে জনসভাকে ঘিরে উজ্জীবিত যশোর আওয়ামী লীগ।

প্রতিনিধি/কারই/এএস

টাইমলাইন