যশোরে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা

দলে দলে সমাবেশে আসছেন আ.লীগ নেতাকর্মীরা

জেলা প্রতিনিধি
যশোর
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২, ১১:২৪ এএম
দলে দলে সমাবেশে আসছেন আ.লীগ নেতাকর্মীরা
ছবি : ঢাকা মেইল

যশোরে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থলে সকাল হতেই দলে দলে যোগ দিচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। যশোরের বিভিন্ন উপজেলা এবং ইউনিয়ন থেকে সারি-সারি মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থল যশোর শামস্ উল হুদা স্টেডিয়ামে জড়ো হচ্ছেন নেতাকর্মীরা। স্লোগান আর বাদ্যযন্ত্রের তালে উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে গোটা শহরজুড়ে। 

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সকালে সরেজমিনে শহর ঘুরে দেখা যায়, শহরের পালবাড়ি মোড়, মনিহার, চাচড়া মোড়, চাচড়া ডালমিল রোড দিয়ে নেতাকর্মীদের মিছিল নিয়ে দলে দলে যশোর স্টেডিয়ামের দক্ষিণপাশে প্রবেশদ্বারে জড়ো হতে থাকেন। 

বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল যোগে শহরমুখী হচ্ছে নেতাকর্মীরা। শহরের বাইরে ২০টি স্পটে তাদের গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। গাড়ি পার্কিং করে ২-৩ কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে মিছিল করতে করতে নেতাকর্মীরা এগিয়ে যাচ্ছেন জনসমাবেশস্থলের দিকে। 

ঝিনাইদহ, মাগুরা, নড়াইল, খুলনা থেকেও অসংখ্য নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়েছেন।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থেকে এসেছেন পারভেজ। তিনি বলেন, সকালে নেতাকর্মীরা বাসে চড়ে যশোরে এসেছি। প্রধানমন্ত্রীর কথা শোনার জন্য।

JASSHAR

যশোর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু বলেন, ভোর থেকে বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা যশোরে আসছেন। পুরো শহরে নেতীকর্মীরা অবস্থান করছেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা শহরের প্রত্যেকটি সড়কে সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন। নেতাকর্মীদের মিছিল নিয়ন্ত্রণেও তারা সহযোগিতা করছেন।

অন্যদিকে স্টেডিয়ামে ভিআইপি ফটক ও প্রবেশদ্বারে রয়েছে এসএসএফ, র্যাব, সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক টিম। সমাবেশস্থলে প্রবেশ করতে সকলকে নিবিঢ়ভাবে দেহ তল্লাশি করা হচ্ছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বেলা ২টা থেকে শুরু হবে জনসভায়। এ জনসভায় প্রধানমন্ত্রী যশোর এবং দক্ষিণাঞ্চলের জন্য নতুন কি বার্তা দেবেন তা শোনার জন্য অধীর অপেক্ষায় রয়েছেন সাধারণ মানুষ।

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দলীয় ব্যানারে ঢাকার বাইরে প্রধানমন্ত্রীর এটিই প্রথম জনসভা। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে গোটা যশোর জেলা এখন নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা হয়েছে। 

নেতাকর্মীরা বলছেন, আওয়ামী লীগের স্মরণকালে এটিই সবচেয়ে বৃহত্তম জনসমাবেশ হতে চলছে। বৃহত্তর যশোর জেলাসহ খুলনা বিভাগের ১০ জেলা থেকেও কয়েক লাখ নেতাকর্মী এ সমাবেশে যোগদান করবেন। ফলে এ জনসমাবেশ জনসমুদ্রে রূপ নেবে বলে মনে করছেন নেতাকর্মীরা।

প্রতিনিধি/এইচই

টাইমলাইন