সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

বিধবা নারীর সাদা পোশাক পরা কি ইসলামি নির্দেশনা?

মো. মারুফুল আলম
প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:০৭ পিএম

শেয়ার করুন:

বিধবা নারীর সাদা কাপড় পরা কি ইসলামি নির্দেশনা?

বিধবা নারীর সাদা পোশাক পরার রীতি অনেক পুরোনো। এটি কি শুধুই সামাজিক প্রথা, নাকি ইসলামের সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক রয়েছে—জানার কৌতূহল রয়েছে অনেকের। এর উত্তরে আলেমরা বলেন, স্বামীর মৃত্যুর পর সাদা পোশাক পরার বাধ্যবাধকতা একটি কুসংস্কার মাত্র। এর সঙ্গে ইসলামের সম্পর্ক নেই। 

তবে হ্যাঁ, সাদা রংকে ত্যাগ, নির্মলতা ও শুভ্রতার প্রতীক মনে করা হয়। সেই হিসেবে কোনোরকম বাধ্যবাধকতা ছাড়াই কোনো বিধবা যদি সাদা কাপড় পরে, তাতে কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু এটিকে ইসলামি বিধান মনে করার কারণ নেই। কেননা ইসলামে নারীদের জন্য যেকোনো সময় যেকোনো রংয়ের পোশাক পরার অনুমতি রয়েছে। 


বিজ্ঞাপন


আরও পড়ুন: স্ত্রী মারা গেলে মোহরানার টাকার কী হবে?

স্বামী মারা গেলে নারীদের জন্য ইসলামের বিধান হলো- ৪ মাস ১০ দিন ইদ্দত পালন করা। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে এসেছে, ‘তোমাদের মধ্যে যারা স্ত্রী রেখে মৃত্যুমুখে পতিত হয়, তাদের স্ত্রীরা চার মাস ১০ দিন প্রতীক্ষায় থাকবে। অতঃপর যখন তারা ইদ্দতকাল পূর্ণ করবে, তখন তারা নিজদের ব্যাপারে বিধি মোতাবেক যা করবে, সে ব্যাপারে তোমাদের কোনো পাপ নেই। আর তোমরা যা কর, সে ব্যাপারে আল্লাহ সম্যক অবগত।’ (সুরা বাকারা: ২৩৪)

সহিহ বুখারির বর্ণনায়, স্বামীর মৃত্যুতে নারী ৪ মাস ১০ দিন হিদাদ পালন করবে। (সহিহ বুখারি: ৫৩৩৪) এখানে হিদাদ দ্বারা উদ্দেশ্য হলো- মহিলা তার ইদ্দতকালীন সময়ে সুগন্ধি, সুরমা, মেহেদি, অলঙ্কারাদিসহ পোশাক-আশাকের ক্ষেত্রে যাবতীয় সাজসজ্জা ত্যাগ করবে। (আল জামে লিআহকামিল কোরআন, কুরতুবি: ৩/১১৮)

আরও পড়ুন: ইদ্দত পালন ছাড়া দ্বিতীয় বিয়ে করলে কি বৈধ হবে?


বিজ্ঞাপন


কাজেই রঙিন কাপড় যদি চাকচিক্যপূর্ণ না হয়, তা পরিধান করতে কোনো অসুবিধা নেই। সুতরাং ইদ্দত অবস্থায় সাদা কাপড় পরা আবশ্যক নয় এবং একে জরুরি মনে করা ঠিক নয়।

উল্লেখ্য, ইদ্দত অবস্থায় নারীর জন্য সুগন্ধি ও সাজগোজ ত্যাগ করা শরিয়তের গুরুত্বপূর্ণ বিধান। একে সামাজিক প্রথা বা কুসংস্কার মনে করা অন্যায়। বরং আল্লাহ এবং পরকালে বিশ্বাসীদের উচিত এই বিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া। নারীদের কর্তব্য উক্ত বিধান পালনে যত্নশীল হওয়া।

(আলমাবসুত, সারাখসি: ৬/৫৯; আদ্দুররুল মুখতার: ৩/৫৩০-৫৩২; মিরকাতুল মাফাতিহ: ৬/৪৫২; তাকমিলাতু ফাতহিল মুলহিম: ১/২৩১; বাদায়েউস সানায়ে: ৩/৩৩০; ফাতহুল বারি: ৯/৪০১, ৩৯৫)

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর