খেলা দেখতে গিয়ে স্বাস্থ্য যেন ‘অফসাইডে’ না যায়

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪২ এএম
খেলা দেখতে গিয়ে স্বাস্থ্য যেন ‘অফসাইডে’ না যায়

কাতারে খেলছে ৩২টি দল। তবে তাদের ফ্যান ছড়িয়ে রয়েছে পুরো বিশ্বে। ইতোমধ্যে বিশ্বকাপ ফুলবলকে কেন্দ্র করে নিজের কর্মব্যস্ত জীবনকে নতুন করে সাজিয়েছেন অনেকে। প্রিয় দলের খেলা দেখা চাই। তার সঙ্গে চালিয়ে যেতে হবে অফিস, ব্যবসাসহ দৈনন্দিন জীবনের সব কাজ। 

বাংলাদেশি সময় অনুযায়ী এবার গ্রুপের পর্বের খেলাগুলো সন্ধ্যানাগাদ বেশি হলেও শেষ ১৬, কোয়ার্টার, সেমি আর ফাইনালের বেশিভাগ ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে রাত ৯টা আর ১টার দিকে। কাজের ফাঁকে প্রিয় দলের খেলা তো অবশ্যই দেখবেন। তবে তার ছাপ যে শরীরে না পড়ে। বিশ্বকাপের সময়ে শারীরিক সুস্থতা নিশ্চিতে সচেতন হওয়া জরুরি। কোনোরকম অফসাইড (অনিয়ম) করলে ভুগতে হবে দীর্ঘদিন। 

football

মানসিক উদ্বেগ রাখুন নিয়ন্ত্রণে 

খেলায় হার-জিত থাকবেই। প্রিয় দলের হার কিংবা অতিরিক্ত ভালো পারফর্ম্যান্স অনেকে সহজে নিতে পারেন না। উত্তেজিত হওয়া কিংবা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়া কোনোটিই কিন্তু শরীরের পক্ষে ভালো হয়। প্রায়ই শোনা যায় খেলা দেখতে গিয়ে হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোক করে মৃত্যু হয়েছে কারোর। উত্তেজিত হলে শরীরের রক্তচাপ বেড়ে যায়। বৃদ্ধি পায় হৃদস্পন্দনও। তাই ঘটতে পারে অঘটন। 

football

নিজের মনোবল শক্ত করেই খেলা দেখুন। জিততেই হবে এমন চ্যালেঞ্জ না নিয়ে খেলা উপভোগ করুন। যদি খেলা দেখতে দেখতে মনে হয় বুকে বা মাথায় বেশি চাপ পড়ছে তবে স্ক্রিন থেকে চোখ সরান। পানি পান করুন। জোরে জোরে শ্বাস নিন। স্থির হয়ে বসুন। নিজের জীবন থেকে ফুটবল ম্যাচ বড় নয়— এই বিষয়টি মাথায় রাখবেন। 

football

অনিদ্রা যেন সঙ্গী না হয় 

সুস্থ থাকতে পরিমিত ঘুম জরুরি। খেলা দেখার চক্করে ঘুমের যেন ব্যাঘাত না ঘটে সেদিকে খেয়াল রাখুন। রাতের ১টায় ম্যাচ থাকলে তার আগে সন্ধ্যানাগাদ ঘুমিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন। রাত জেগে খেলা দেখলে সকালে তা পুষিয়ে নিন। আর যদি সকালে কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার তাড়া থাকে তবে আগেই ঘুমিয়ে নিন। যেভাবেই হোক দিনে যেন অন্তত ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমাতে পারেন সেভাবে রুটিন সাজান। 

football

অনেকে ঘুম তাড়াতে চা বা কফিতে ভরসা রাখেন। এতে ক্যাফেইন থাকে। যা স্নায়ুকে আরও উত্তেজিত করে দেয় এবং উদ্বেগের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। তাই এসব পানীয় যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভালো। 

>> আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের আসর মাতিয়েছে যত ‘মাস্কট’

ধূমপান নয় 

রাত জেগে খেলা দেখবেন আর সঙ্গী হবে সিগারেট— এমন পরিকল্পনা থাকলে তা বাদ দিন। এমনিই ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। রাত জাগার ফলে ধূমপানের পরিমাণ বাড়ালে তা মন্দ বৈ ভালো কিছু বয়ে আনবে না। 

football

স্বাস্থ্যকর খাবারে ভরসা রাখুন 

পরিবারের সবাই মিলে খেলা দেখবেন। খিদা তো লাগবেই। তাই চিপস, কোক, পপকর্ন, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চিকেন ফ্রাই, পিৎজা ইত্যাদি ভাজাপোড়া রাখছেন পাশে। এতে কিন্তু স্বাস্থ্যের ক্ষতিই হচ্ছে। খেলার সময় খেতে হলে স্বাস্থ্যকর খাবার খান। ঘরে তৈরি খাবারে ভরসা রাখুন। পর্যাপ্ত পানি পানের অভ্যাস করুন।

footballবন্ধু বা পরিবারের কারোর প্রিয় দল হেরে গেলে তাকে হেয় করা বা তাকে নিয়ে ঠাট্টা করার অভ্যাস ত্যাগ করুন। এতে তিনি মানসিকভাবে আরও দুর্বল হয়ে পড়েন। অতিরিক্ত মানসিক চাপ স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। আর আপনার প্রিয় দলটি হেরে গেলে নিজেই নিজেকে বোঝান। এবার হেরেছে তো কী হয়েছে, পরেরবার ঠিকই জিতবে— এমন ভাবনায় দূর করুন মনের অশান্তি। 

>> আরও পড়ুন: সৌন্দর্যে নায়িকাদেরও হার মানায় যেসব ফুটবলারের সঙ্গী

খেলা দেখার পাশাপাশি যত্ন নিন নিজের শরীরের। মনে রাখবেন, সুস্থভাবে বেঁচে থাকার বিকল্প কিছু নেই। 

এনএম