মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ঢাকা

জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব আখতার হোসেন অবসরে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২২, ০৪:২০ পিএম

শেয়ার করুন:

জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব আখতার হোসেন অবসরে

জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আখতার হোসেনকে চাকরি থেকে অবসর দিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।


বিজ্ঞাপন


উপসচিব এ বি এম ইফতেখারুল ইসলাম খন্দকার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ (২০১৮ সনের ৫৭ নং আইন) এর ধারা ৪৩ (১) (ক) অনুযায়ী ৩০ অক্টোবর থেকে আখতার হোসেনকে সরকারি চাকরি থেকে অবসর প্রদান করার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, তার অনুকূলে ১৮ মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ ল্যাম্পগ্র্যান্টসহ ৩১-১০-২০২২ থেকে ৩০-১০-২০২৩ সাল পর্যন্ত এক বছরে অবসর-উত্তর ছুটি পিআরএল মঞ্জুর করা হলো। বিধি অনুযায়ী তিনি অবসর ও অবসর-উত্তর ছুটিকালীন সুবিধাদি প্রাপ্য হবেন।

আরও পড়ুন: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব মকবুল হোসেন অবসরে

এর আগে ২০২১ সালের ২৮ ডিসেম্বর মো. আখতার হোসেনকে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব করা হয়। তার আগে ওই বছরের ২ জুন আখতারকে সিনিয়র সচিব পদে পদোন্নতি দেয় সরকার।


বিজ্ঞাপন


জননিরাপত্তা বিভাগে দায়িত্ব পালনের আগে ২০১৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে যোগদান করেন আখতার হোসেন। এই পদে যোগদানের আগে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তার আগে মার্চ ২০০৯ থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত স্থানীয় সরকার বিভাগে উপসচিব ও যুগ্মসচিব পদে কর্মরত ছিলেন।

আরও পড়ুন: এবার তিন এসপিকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠাল সরকার

১৯৯৬ সালের জুলাই থেকে ২০০১ সালের জুন পর্যন্ত পাঁচ বছর পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে সিনিয়র সহকারী সচিব ও মন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব পদে কাজ করেছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে সমাজ বিজ্ঞানে ১৯৮৩ সনে বিএসএস (অনার্স) এবং ১৯৮৪ সনে সমাজবিজ্ঞানে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া চাকুরিরত অবস্থায় সরকারের অনুমতি নিয়ে এলএলবি ও এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) প্রশাসন ক্যাডারে ১৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৮ সালে যোগদান করেন মো. আখতার হোসেন এরপর দীর্ঘ ৩৪ বছর সরকারি চাকরিতে পেশাগত অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন।

AKTERচাকরি জীবনের শুরুতে তিনি ১০ বছরের অধিককাল ফেনী, চাঁদপুর, কক্সবাজার ও ঝালকাঠী জেলায় সহকারী কমিশনার, উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আরও পড়ুন: সিআইডির দুই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অবসরে

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বেগম মাহবুবা আক্তারের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তিনি এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক।

তার পুত্র নাফিজ ইমতিয়াজ এবং কন্যা জেরিন তাসনিম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাড়শোনা করছেন।

ডব্লিউএইচ/এমআর

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর