মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

ভোটের প্রস্তুতিতে আ.লীগ, আন্দোলনে ছন্নছাড়া বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০২৩, ১০:২১ পিএম

শেয়ার করুন:

ভোটের প্রস্তুতিতে আ.লীগ, আন্দোলনে ছন্নছাড়া বিএনপি
মনোনয়ন ফরম বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ছে। ইতোমধ্যে ভোটের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় দেশে এই মুহূর্তে যে নির্বাচনী আমেজ থাকার কথা সেটা নেই। তবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তফসিল ঘোষণার পর পুরোপুরি নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করেছে। অন্যদিকে বিএনপি গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে মহাসমাবেশ ঘিরে সহিংসতার পর অনেকটা ছন্নছাড়া। শীর্ষ নেতাদের অনেকেই কারাগারে, কেউ কেউ পালিয়ে আছেন। তবে সমমনা দলগুলোকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে। আর বিগত সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিলেও শীর্ষ নেতৃত্ব নিয়ে দলটিতে আবার শুরু হয়েছে টানাপোড়েন।

আরও পড়ুন: চার কারণে সমঝোতা ছাড়াই নির্বাচনের পথে আ.লীগ


বিজ্ঞাপন


শনিবার (১৮ নভেম্বর) নিজের মনোনয়ন ফরম কেনার মধ্য দিয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভাপতি শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা কার্যালয় থেকে চলে যাওয়ার পর থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। টানা চার দিন অনলাইনে ও সরসরি কার্যালয় থেকে দলটির মনোনয়ন ফরম কেনা ও জমা দেওয়া যাবে।

আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনার জন্য ইতোমধ্যে ১৫টি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। সেসব কমিটি দলকে টানা চতুর্থবারের মতো  ক্ষমতায় নেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। নির্বাচন ছাড়া এখন আর আওয়ামী লীগ কোনো কিছু নিয়ে ভাবছে না। 

প্রথম দিন ক্ষমতাসীন দলের মোট এক হাজার ৭৪ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ফরম বিক্রির প্রথম দিনেই দলের ফান্ডে এসেছে প্রায় পাঁচ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।


বিজ্ঞাপন


শনিবার (১৮ নভেম্বর) বিকেল সোয়া ৫টায় আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এই তথ্য জানান। তিনি জানান, শনিবার সকাল থেকে সরাসরি এক হাজার ৬০টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। একই সময়ে অনলাইনে বিক্রি হয়েছে আরও ১৪টি মনোনয়ন ফরম।

আরও পড়ুন: আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব ১৫ উপকমিটির কাঁধে

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরমের দাম বাড়িয়ে এবার ৫০ হাজার টাকা করা হয়েছে। এতে মোট বিক্রির পরিমাণ ৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।

প্রথম দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ পরিচিত মুখ অনেকেই মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

BBB2
নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসছেন না বিএনপির নেতাকর্মীরা। ছবি: সংগৃহীত

আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনার জন্য ইতোমধ্যে ১৫টি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। সেসব কমিটি দলকে টানা চতুর্থবারের মতো  ক্ষমতায় নেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। নির্বাচন ছাড়া এখন আর আওয়ামী লীগ কোনো কিছু নিয়ে ভাবছে না।

আরও পড়ুন: জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭ জানুয়ারি

এদিকে গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে মহাসমাবেশ ডেকে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা। এতে নয়াপল্টনে আয়োজিত লাখো জনতার মহাসমাবেশ কয়েক মিনিটের মধ্যে পণ্ড হয়ে যায়। এরপর থেকে টানা কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ অনেক কেন্দ্রীয় নেতা কারাগারে আছেন। নাশকতার মামলায় আসামি হওয়ায় পলাতক আছেন দলের বেশির ভাগ নেতা। ছন্নছাড়া এই অবস্থায় দলটি নির্বাচন নিয়ে আপাতত ভাবছে না। নির্বাচনী কোনো প্রক্রিয়ার সঙ্গেও জড়িত নেই। এমনকি নির্বাচন কমিশন থেকে দেওয়ার চিঠিরও কোনো জবাব দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেনি বিএনপি।

আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। শেষ পর্যন্ত কোনো ধরনের রাজনৈতিক সমঝোতা না হলে ২০১৪ সালের মতো আরেকটি একতরফা নির্বাচন হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই। 

তফসিল ঘোষণার প্রতিবাদে আগামীকাল রোববার (১৯ নভেম্বর) থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতালের ডাক দিয়েছে বিএনপি। দলটি হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে বলে জানা গেছে। অসহযোগের ডাক দিতে পারে বলেও আভাস পাওয়া গেছে।

দেশের তৃতীয় বৃহত্তম দল জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে। তবে দলটির শীর্ষ নেতৃত্ব নিয়ে টানাপোড়েন রয়েছে। শনিবার (১৮ নভেম্বর) দলের চেয়ারম্যান জি এম কাদের এবং প্রধান পৃষ্ঠপোষক বেগম রওশন এরশাদের পক্ষ থেকে পৃথক চিঠি নির্বাচন কমিশনে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এই অবস্থায় দলটির শীর্ষ নেতৃত্ব নিয়ে দেবর ও ভাবির মধ্যে আবারও দ্বন্দ্বের আশঙ্কা করছেন দলের নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন: সংঘাতের শঙ্কা নিয়ে ছাড়ল ‘নির্বাচনী ট্রেন’

গত ১৫ নভেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। শেষ পর্যন্ত কোনো ধরনের রাজনৈতিক সমঝোতা না হলে ২০১৪ সালের মতো আরেকটি একতরফা নির্বাচন হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

তফসিল ঘোষণার সময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ‘সংলাপের মাধ্যমে রাজনৈতিক মতভেদের’ অবসান ঘটানোর আহ্বান জানালেও এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগ বা বিএনপি কোনো দলের পক্ষ থেকেই সংলাপ আয়োজন করার দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শর্তহীন সংলাপের আহ্বান জানালেও ক্ষমতাসীন দল জানিয়েছে, এখন আর সংলাপের সময় নেই।

জেবি

 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর