সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০২৪, ঢাকা

প্রকৃতি

হুরহুরে ফুলে ফুরফুরে মন 

নিশীতা মিতু
প্রকাশিত: ০২ নভেম্বর ২০২৩, ০৪:১৮ পিএম

শেয়ার করুন:

হুরহুরে ফুলে ফুরফুরে মন 

যান্ত্রিক জীবনে কাজের চাপ নিত্যসঙ্গী। একটু অবসর মেলানোই যেন কঠিন। তবুও মন মাঝেমধ্যে বলে ওঠে, আহা যদি কাজকে ফাঁকি দিয়ে কটা দিন প্রকৃতির মাঝে হারিয়ে যাওয়া যেত। অবসাদগ্রস্ত মনকে সতেজ করার ক্ষমতা প্রকৃতিরই আছে হয়তো। তাইতো পাখির গান কিংবা ফুলের ঘ্রাণ মন ভরিয়ে দেয় আমাদের। 

রাস্তার পাশে অবহেলায় বেড়ে উঠে যে ফুল তাতেও থাকে অপার সৌন্দর্য। ধরুন হাঁটতে হাঁটতে পথের ধারে অচেনা এক ফুল দেখে থমকে দাঁড়ালেন। সবুজ ডগার ওপর ভর করে ঠায় দাঁড়িয়ে রয়েছে গাছটি। বাতাসে দোল খাচ্ছে পাতা। গাছের ঠিক মাথাজুড়ে একগুচ্ছ রঙিন ফুল। যেন কোনো কিশোরী মেয়ে ফুল জমিয়ে তোড়া বানিয়েছে। 


বিজ্ঞাপন


hurhure2

এমনই এক বুনো ফুল হুরহুরে। অদ্ভুত নাম তাই না? এ ফুলের সৌন্দর্য দেখে মন ফুরফুরে হওয়াই স্বাভাবিক। আমাদের দেশে অবশ্য খুব একটা দেখা যায় না একে। যা আছে তা সংখ্যায় নগণ্য। একে বিলুপ্ত ফুল বলা যায় তাই। 

হুরহুরে ফুলের আরও কিছু নাম রয়েছে। এই যেমন- নুনিরলতা, সূর্য্যাবর্ত্ত, হুলহুলে। ফুলের পুংকেশরগুলো চারপাশে মাকড়শার মতো ছড়িয়ে থাকে বলে ইংরেজিতে এই ফুলকে ‘ওয়াইল্ড স্পাইডার ফ্লাওয়ার’ বা বন্য মাকড়সা ফুল বলে। বৈজ্ঞানিক নাম Cleome gynandra। 

hurhure3

ফুলটির আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকা। বহু শাখাপ্রশাখায় বিস্তৃত ঝোপ আকৃতির গুল্ম জাতীয় গাছ। ৬০-৯০ সে.মি উঁচু হয়। কখনো কখনো উচ্চতা পৌঁছায় ১২০ সে.মি তে। কাণ্ড সবুজ, শক্তপোক্ত, আঠালো এবং সুন্দর গন্ধযুক্ত। কাণ্ডের গায়ে কাঁটা থাকে।

হুরহুরের পাতা একান্তর ভাবে সজ্জিত। এর বোঁটা লম্বা, ফলক করতলাকারের মতো খণ্ডিত। প্রতি পত্রদন্ডে ৩- টি পত্রক ছড়িয়ে থাকে আঙুলের মতো। ২-১০ সেমি লম্বা ও ২-৪ সেমি চওড়া পত্রকগুলি ডিম্বাকার বা উপবৃত্তাকার। পাতার কিনারা খুব সূক্ষ্মভাবে করাতের মতো দাঁড়াযুক্ত বা ঢেউ খেলানো। পাতার রঙ সবুজ ছাড়াও গোলাপি, বেগুনি রঙের হতে পারে। কাণ্ড ও পাতা উভয়ই খাওয়া যায়।

hurhure5

ডালের আগায় লম্বা মঞ্জরিদণ্ডে পর্যায়ক্রমে ফুল ফোটে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাদা রঙের ফুলের দেখা দেখা মেলে। তবে হালকা বেগুনি, বেগুনি, গোলাপি প্রভৃতি রঙেও হুরহুরে হয়। ফুলের বোঁটা লম্বা, পাপড়ি খোলা, অসমান। বৃতি ৫-৮ মি.মি। পাপড়ি ৪টি, পুংকেশর ৬টি।

শীতের প্রথম ভাগ থেকে শুরু বর্ষা-শরৎ পর্যন্ত এই গাছে ফুল ফোটে। বীজ দূরবাহী ও বৈরী পরিবেশে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখতে সক্ষম। এর বীজ দেখতে অনেকটা শামুকের মতো। 

hurhure4

স্বাস্থ্যের জন্য কিন্তু হুরহুরে বেশ উপকারি বলা যায়। এ গাছের কচি কাণ্ড খেলে শীতল অনুভূতি হয়। দূর হয় ক্লান্তি। এমনকি রক্তচাপও এক তৃতীয়াংশ পর্যন্ত কমে যায়। খিঁচুনি, কানের প্রদাহ, ফোড়া ও পোকামাকড়ের কামড় উপশমে পাতা ব্যাবহার করা হয়। গোল কৃমি প্রতিরোধে ভালো কাজ করে এর বীজ।

এই উদ্ভিদ থেকে যে তেল পাওয়া যায় তাতে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, কীটনাশক এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবাইরাল উপাদান। গাছগুলো তাপ এবং খরা সহ্য করতে পারে। টিকতে পারে উচ্চমাত্রার সালফার-ডাই-অক্সাইড বা ক্লোরিন এর উপস্থিতিতেও। শক্তিশালী শোষণ ক্ষমতা থাকায় এটি পরিবেশকে সৌন্দর্যমণ্ডিত করার পাশাপাশি বায়ুকে পরিশোধন করে বাতাসকে নির্মল করে। 

hurhure6

হুরহুরে ফুল কিন্তু কেবল মানুষের পছন্দ নয়। মৌটুসি পাখিও এগুলোকে বেশ পছন্দ করে। এরপর রাস্তার ধারে সাদা কিংবা বেগুনি রঙা এই ফুলের প্রাকৃতিক তোড়া দেখলে আপনার মন ফুরফুরে হবে নিশ্চয়ই। 

এনএম

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর