মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ঢাকা

হিন্দু হয়েও রোজা রাখেন নীলাম, শিখবেন আরবি ভাষাও!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ ২০২৪, ০৫:১৭ পিএম

শেয়ার করুন:

হিন্দু হয়েও রোজা রাখেন নীলাম, শিখবেন আরবি ভাষাও!
ছবি: খালিজ টাইমস

হিন্দু ধর্মের অনুসারী ২৬ বছরের তরুণী নীলাম গোকুল সিং। বেশ কয়েক বছর ধরে পবিত্র রমজান মাসে রোজা পালন করে আসছেন তিনি। মরিসাসের নাগরিক নীলাম শুরুতে বন্ধুদের দেখাদেখি রোজা রাখলেও এখন তিনি আত্মোপলব্ধির কারণে নিজেই রোজা পালন করেন। এই বছরই আরবি ভাষা শিক্ষা শুরু করবেন বলেও জানিয়েছেন এই তরুণী।

নীলাম গত দুই বছর ধরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবাস করছেন। এর আগে তিনি পড়ালেখা করেছেন মালয়েশিয়ায়। সেখানে থাকাকালীন রোজা পালন শুরু করেন এই হিন্দু তরুণী।


বিজ্ঞাপন


নীলম খালিজ টাইমসকে বলেন, মালয়েশিয়ায় মুসলিম জনসংখ্যা অনেক। আমি সেখানে ২০২১ সালে রমজানের রোজা রাখা শুরু করি। মালয়েশিয়ায় আমার অনেক মুসলিম বন্ধু আছে। আমরা একসাথে সেহরি এবং ইফতার করতাম। এটি আমার জন্য তাদের সংস্কৃতির সঙ্গে সংহতি এবং উপলব্ধির বিষয় ছিল। যদিও আমি একজন হিন্দু।

আরও পড়ুন: আল্লাহু আকবর ধ্বনিতে আবারও মুখরিত আল আকসা প্রান্তর

মালয়েশিয়া থেকে দুই বছর আগে ফিনটেক কোম্পানিতে চাকরি নিয়ে দুবাই আসেন নীলাম। তিনি বলেন, 'আমি এখানে রোজা রেখেছিলাম কারণ আমার চারপাশের সবাই পবিত্র মাসে রোজা রাখতেন। এটি আমাকে বুঝতে সাহায্য করেছে যে, খাবার এবং পানি ছাড়া কাজ করা কতটা কঠিন।'

রোজা পালন নীলামকে নতুন উপলব্ধি দিয়েছে। তিনি বলেন, 'এতে রোজার আধ্যাত্মিক দিকটি উপলব্ধি করা যায়। এর মাধ্যমে ব্যক্তিরা নিজেদেরকে শুদ্ধ করে। এটি একটি টিমওয়ার্কের মতো, যা আপনাকে এমনকিছু দেখায় যা নিজের সম্পর্কের বিষয়গুলো উন্মোচন করতে পারে।'


বিজ্ঞাপন


নীলাম বলেন, আমি সেহরিতে ঘুম থেকে উঠি এবং ফ্রিজে যা থাকে সেগুলো খেয়ে সারাদিন রোজা থাকি। কিন্তু ইফতার খুব স্পেশাল। আমি দিনের শেষে আমার সহকর্মীদের সঙ্গে খাবারের অপেক্ষায় থাকি। খাবারে সাধারণত খেজুর, জুস, ফল, শাকসবজি এবং মাংস থাকে।'

রোজার বিষয়ে নীলম বলেন, 'এই সময়ে কিছু খাবার বা ক্রিয়াকলাপ থেকে বিরত থাকার মাধ্যমে আমি আমার নিজের অভ্যাস, আকাঙ্ক্ষা এবং চিন্তার ধরণ সম্পর্কে সচেতনতা অনুভব করি।'

আরও পড়ুন: রমজানে ছাড়ের প্রতিযোগিতায় আমিরাতের ব্যবসায়ীরা

ইফতারে ঐক্যের প্রতীক হিসেবে দেখেন নীলাম। তিনি বলেন, এটি একটি সম্প্রদায়ের অনুভূতি জাগিয়ে তোলে।'

আমিরাতের সংস্কৃতিকে আলিঙ্গন করার জন্যও রোজা ভালো মাধ্যম বলে মনে করেন নীলাম। তিনি বলেন, একজন অমুসলিমের জন্য দীর্ঘ ৩০ দিন রোজা রাখতে সংকল্প প্রয়োজন।

আমিরাতের সংস্কৃতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে আরবি ভাষা শিখতে চান নীলম। তিনি বলেন, 'আমি নিজেকে দীর্ঘমেয়াদী সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাসিন্দা হিসাবে দেখছি। তাই আমি এখন আরবি শিখতে চাই যা আমি সম্ভবত এই বছরের শেষের দিকে শুরু করব। এটি শুধুমাত্র সামাজিকভাবে অন্যদের সাথে মিশে যেতে সাহায্য করবে না তবে এটি কাজের ক্ষেত্রেও উপকারী হবে।'

একে

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর