সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪, ঢাকা

অভিবাসী নৌকা ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে যুক্তরাজ্য, হচ্ছে নতুন আইন

অভিবাসন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬ মার্চ ২০২৩, ০৮:৪৩ পিএম

শেয়ার করুন:

অভিবাসী নৌকা ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে যুক্তরাজ্য, হচ্ছে নতুন আইন

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ক্রমেই বেড়ে চলেছে অভিবাসন প্রত্যাশীদের সংখ্যা। সম্প্রতি ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর এর বিভিন্ন পরিসংখ্যানে এই চিত্র উঠে আসে। এক্ষেত্রে তাদের আশ্রয়ের ব্যাপারে ইইউভুক্ত দেশগুলোর নিয়মকানুনে শিথিলতা থাকলেও ঠিক উল্টো পথেই হাঁটছে যুক্তরাজ্য। অভিবাসীদের ঠেকাতে নতুন আইন পাস করতে যাচ্ছে দেশটি।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় চড়ে ইংলিশ চ্যানেল দিয়ে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমাচ্ছেন অভিবাসন প্রত্যাশীরা। সেখানে তাদের আটক করে দ্রুত নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে চায় দেশটি। আর তাই নতুন একটি আইন করতে চলেছে যুক্তরাজ্য সরকার। মঙ্গলবার (৭ মার্চ) এ সংক্রান্ত একটি বিল প্রস্তাব করার কথা রয়েছে।


বিজ্ঞাপন


ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার প্রস্তাব করতে যাওয়া বিলটিতে অনিয়মিত পথে যুক্তরাজ্যে আসা অভিবাসন প্রত্যাশীদের আটক এবং তাদের দ্রুত নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়টিও থাকবে।

বিলটি আইন আকারে পাশ হলে, অনিয়মিত অভিবাসীরা যুক্তরাজ্যে এসে আশ্রয় চাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন। এমনকি দেশটিতে তাদেরকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে।

uk-suella-braverman
যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব সুয়েলা ব্র্যাভারম্যান

নতুন এই বিল নিয়ে গত রোববার (৫ মার্চ) দেশটির স্বরাষ্ট্র সচিব সুয়েলা ব্র্যাভারম্যান বলেন, ‘ব্রিটেনকে অবশ্যই নৌকা আসা বন্ধ করতে হবে। এ আইনের মধ্য দিয়ে যদি কেউ অনিয়মিত পথে যুক্তরাজ্যে আসেন, তাহলে তাকে আটক করে দ্রুত তার নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে।’

যুক্তরাজ্যে অভিবাসনের ক্ষেত্রে আইনি এবং নিরাপদ পথেই আসতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গত বছর, যুক্তরাজ্যে আসা আশ্রয়প্রার্থীদের একটি অংশ রুয়ান্ডায় পাঠানোর একটি উদ্যোগ নিয়েছিল সরকার। কিন্তু আইনি চ্যালেঞ্জের মুখে সেটি এখনও বাস্তবায়ন করতে পারেনি দেশটি।

আরও পড়ুন: ৩৬ শতাংশ মানুষ নিজ দেশ ছেড়ে বিদেশে যেতে চান

rishi-sunak
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক

ব্রেক্সিটের সময় সীমানায় নজরদারি কঠোর করার প্রতিশ্রুতি দিলেও অনিয়মিত অভিবাসীর প্রবেশ বন্ধ করতে পারেনি যুক্তরাজ্য। দেশটিতে গত বছরেও ৪৫ হাজার অনিয়মিত অভিবাসী এসেছে। তাই পরিস্থিতি মোকাবিলায় চাপে পড়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক।

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনের দৌড়ে এগিয়ে আছে বিরোধী দল লেবার পার্টি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক নিজের দলকে জিতিয়ে আনতে চান। আর তাই এই অনিয়মিত অভিবাসীদের প্রবেশ রোধে বেশি জোর দিচ্ছেন তিনি।

uk-migrantsএদিকে, ইংলিশ চ্যানেল দিয়ে অভিবাসন প্রত্যাশীদের থামাতে ইউরোপীয় দেশগুলোর সঙ্গে আরও আলাপ-আলোচনা করা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের সচিব ক্রিস হিটন-হ্যারিস।

সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস

এমএইচটি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর