শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪, ঢাকা

রেড কার্পেটে মেজাজ হারালেন টম হ্যাঙ্কস

আলমগীর কবির
প্রকাশিত: ২৪ মে ২০২৩, ০৭:১০ পিএম

শেয়ার করুন:

রেড কার্পেটে মেজাজ হারালেন টম হ্যাঙ্কস

কান চলচ্চিত্র উৎসবে সিনেমার প্রিমিয়ারে যোগ দিতে রেড কার্পেট দিয়ে যাওয়ায় সময় মেজাজ হারালেন বিশ্বখ্যাত হলিউড অভিনেতা টম হ্যাঙ্কস। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই অভিনেতার নতুন ছবি ‘অ্যাস্টেরয়েড সিটি’র প্রিমিয়ার হয়েছে। যেখানে যাওয়ার সময় এক কর্মীকে তিরস্কার করতে দেখা গেছে তাকে।

৬৬ বছর বয়সী এই অভিনেতা তার স্ত্রী রিটা উইলসনকে সাথে নিয়ে যাচ্ছিলেন। তখন অল্পবয়সী এক কর্মী তাদের কিছু একটা বলছিলেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে আঙুল উচিয়ে কথা বলেন টম হ্যাঙ্কস।


বিজ্ঞাপন


হ্যাঙ্কসের স্ত্রী রিটাও একজন অভিনেত্রী ও প্রযোজক। ‘অ্যাস্টেরয়েড সিটি’ সিনেমায়ও তিনি অভিনয় করেছেন। ঘটনার সময় হ্যাঙ্কসের হাত চেপে ধরে ঘটনা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন রিটা।

পরে অবশ্য জানা যায়, রেড কার্পেটে ছবির জন্য পোজ দেওয়ার সময় কিছু একটা বলছিলেন ওই কর্মী, এতেই ক্ষিপ্ত হন টম হ্যাঙ্কস।

>> আরও পড়ুন: কানে সেরা ‘ট্রায়াঙ্গেল অব স্যাডনেস’

একইদিন কান উৎসবে ভারতীয় সিনেমা নিয়ে কথা বলেন ভারতীয় নির্মাতা কানু বেহেল। যিনি এর আগে ‘তিতলি’ নির্মাণ করে কানসহ বিশ্বের নামকরা অনেক উৎসবে প্রশংসিত ও সম্মানিত হয়েছেন।


বিজ্ঞাপন


Canees Festivalমঙ্গলবার বিকেলে ভারতীয় প্যাভিলিয়নে কানু বেহেল ও ছবিটির প্রধান অভিনেতা মুহিত আগারওয়ালা কথা বলেন তাদের ছবি ‘আগ্রা’ প্রসঙ্গে। কান উৎসবের ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট বিভাগে বুধবার (২৪ মে) রাতে (কান সময় রাত সাড়ে ৮টা) পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের থিয়েটার ক্রয়েজেটে এই ছবির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়।

ছবিটি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে উঠে আসে বাংলাদেশ প্রসঙ্গও। আলাপে এলো বাংলাদেশের নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী এবং ক্রিকেটার মোহাম্মদ আশরাফুল ও সাকিব আল হাসানের নাম।

>> আরও পড়ুন: ‘কর্ম-আসক্ত মা-বাবার অবহেলাই সন্তানকে বিপথগামী করে’

বাংলাদেশের বিষয়ে প্রশ্ন শুনেই যেন মুগ্ধতার হাসি কানু বেহেলের চোখেমুখে। বললেন, আমি কলকাতায় চার বছর ছিলাম। ফলে একটু একটু বাংলা বলতে পারি।

এরপর কানু বেহেল বলেন, আমি সবসময় ঢাকা যেতে চাই। আবিষ্কার করতে চাই দেশটির সৌন্দর্য। এখনও সেই সুযোগ হয়নি। হয়ে যাবে আশা করছি।

বাংলাদেশের সিনেমা নিয়ে আপনার কোনো অভিজ্ঞতা আছে? তার উত্তর, অবশ্যই। ২০২১ সালে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এসেছিল। সেটা আমি কানেই দেখেছি। অসাধারণ সিনেমা। এর বাইরে বাংলাদেশের সিনেমা বলতে আমি বুঝি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীকে। তিনি সম্ভবত দেশটির অন্যতম সিনেমা নির্মাতা। আমি মনে করি, এখন বাংলাদেশ তথা ঢাকা হচ্ছে ক্রমবর্ধনশীল ফিল্মের অন্যতম স্থান। বাংলাদেশের সিনেমা এখন অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের পাশাপাশি পাকিস্তানও দারুণ সব সিনেমা নির্মাণ করছে। এটা ভালো লাগার বিষয়।

>> আরও পড়ুন: Cannes 2023: রেড কার্পেটে ‘রক্তাক্ত’ শরীরে এক নারীর প্রতিবাদ!

এরপরই কথা হয় কানু বেহেলের পাশে বসে থাকা ‘আগ্রা’ সিনেমার অন্যতম অভিনেতা মুহিত আগারওয়ালের সঙ্গে। তাকেও বাংলাদেশের ব্যাপারে প্রশ্ন করায় বললেন, আমি বাংলাদেশের সিনেমা সম্পর্কে খুব বেশি জানি না- এটা বলতে দ্বিধা নেই। তবে অনেক আগে একটা ছবি দেখেছি। দারুণ লেগেছে। কিন্তু সিনেমার নাম এখন মনে পড়ছে না। তবে বাংলাদেশে আমার অনেক বন্ধু আছে। আমি লন্ডনে পড়াশোনা করেছি, সেই সূত্রে প্রচুর বাংলাদেশি বন্ধু পেয়েছি। আমি বাংলাদেশ নিয়ে খুবই আগ্রহী। কখনও দেশটিতে ঘুরতে যেতে পারলে ভালো লাগবে।

/জেএম

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর