রোববার, ২৬ মে, ২০২৪, ঢাকা

কম্পিউটারের ‘মাউস’ কেন ইঁদুরের নামে রাখা হলো?

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১ এপ্রিল ২০২৩, ০২:৪৭ পিএম

শেয়ার করুন:

কম্পিউটারের ‘মাউস’ কেন ইঁদুরের নামে রাখা হলো?

কম্পিউটারে দ্রুত কাজ করতে মাউসের বিকল্প নেই। লেখালেখি ছাড়া যেকোনো কাজের ক্ষেত্রেই মাউস ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু ছোট এই ডিভাইসটির নাম কেন মাউস রাখা হলো? মাউস ইংরেজি শব্দ, যার অর্থ হলো ইঁদুর। কেন কম্পিউটারের এই গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রের নামকরণ ইঁদুরের নামে রাখা হলো? চলুন জেনে নিই ‘মাউস’ নামকরণের ইতিহাস।

১৯৬০ সালে ডগলাস কার্ল অ্যাঙ্গেল বার্ট মাউস আবিষ্কার করেন। ওই সময় এই ডিভাইসটিকে ‘পয়েন্টার ডিভাইস’ বলা হতো। তিনি প্রথম মাউস তৈরি করেন, যা কাঠ দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল। এছাড়া তাতে দুটি ধাতব চাকাও ছিল।


বিজ্ঞাপন


first-mouse
কাঠের তৈরি প্রথম মাউস এবং আবিষ্কারক ডগলাস কার্ল অ্যাঙ্গেল বার্ট (ইনসার্টে)

মাউস আবিষ্কারের পর দেখা যায়, এই ছোট্ট যন্ত্রটি দেখতে একটি লুকিয়ে থাকা ইঁদুরের মতো লাগছে। তাছাড়াও এর পেছন থেকে বেরিয়ে আসা তারটি ইঁদুরের লেজের মতো ছিল। শুধু তাই নয়, ইঁদুর যেভাবে দ্রুত সব কাজ করে, তেমনি মাউসও সব কাজ দ্রুত করতে পারে। মূলত এসব কারণেই ডিভাইসটির নাম দেওয়া হয় ‘মাউস’।

তবে মাউস বা পয়েন্টার ডিভাইস ছাড়াও এর আরেকটি নাম ‘টার্টল’, যার অর্থ কচ্ছপ। কারণ, এটির খোলস কচ্ছপের মতো শক্ত এবং এর আকারও প্রায় একই রকম। কিন্তু কচ্ছপের গতি খুবই কম হওয়ায় ‘টার্টল’ না হয়ে এটি ‘মাউস’ হিসেবেই স্বীকৃতি পায়।

বর্তমানে প্রযুক্তির উন্নতির কারণে লেজ ছাড়া মাউসের ব্যবহার রয়েছে। এগুলো মূলত ব্লুটুথ প্রযুক্তিতে কম্পিউটারের সঙ্গে যুক্ত হয়, যা ওয়্যারলেস মাউস হিসেবে পরিচিত।


বিজ্ঞাপন


এমএইচটি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর