রোববার, ১৪ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

নাটকীয় ম্যাচে হারের দায় নিজের কাঁধে নিলেন আবাহনী কোচ  

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ৩০ মে ২০২৩, ০৯:২৫ পিএম

শেয়ার করুন:

নাটকীয় ম্যাচে হারের দায় নিজের কাঁধে নিলেন আবাহনী কোচ  

বাংলাদেশের ফুটবলের দুই ঐতিহ্যবাহী দল আবাহনী ও মোহামেডান লড়াই মানেই যেন সমর্থকদের প্রবল উত্তাপ। কিন্তু আগের সেই উন্মাদনা এখন আর দেখা যায় না। তবে আজ দীর্ঘ ১২ বছর আবারো দুই জায়ান্টের শিরোপার লড়াই। কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে হাইভোল্টেজ এই ম্যাচ ছিল নাটকীয়তায় ভরা। ইউরোপিয়ান ফুটবলেও এমন উত্তেজনা, রোমাঞ্চকর লড়াই সচরাচর দেখা যায় না, কাব্যিকভাবে ম্যাচে কিভাবে ফিরতে হয় তা দুই দলই দেখিয়েছে। পিছিয়ে পড়ে নাটকীয়ভাবে ফিরে আসা কি ছিল না দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে। 

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত সময়ে ৩-৩ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচটি অতিরিক্ত সময়ে গড়িয়ে অমীমাংসিত থাকে। ফলে পেনাল্টি শুটআউটে গড়ানো ম্যাচটি ৪-২ গোলে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে মোহামেডান। সেই সঙ্গে দীর্ঘ ১৪ বছর পর ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিতল সাদা-কালোরা। ম্যাচ হারের পর শিরোপা বঞ্চিত আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ ম্যারিও ল্যামোস নিজের উপর সব দায় নিলেন। 


বিজ্ঞাপন


আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ ম্যারিও ল্যামোস বলেন, 'এই হারের দায়ভার আমিই নিচ্ছি। আমাদের এই ম্যাচে জয় পাওয়ার কথা ছিল। আমরা শিরোপা জয়ের জন্য যোগ্য দল ছিলাম। তবে আমরা পারিনি।'

খেলোয়াড় নির্বাচন ও পরিবর্তনে খুব একটা মুন্সিয়ানা দেখাতে পারেননি দুই দফা এগিয়ে থাকা ল্যামোস। খেলোয়াড় পরিবর্তন ও নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, 'রাফায়েল আগুস্তো পুরো ফিট ছিলেন না। তবে সে আমাদের অধিনায়ক। তাই তাকে খেলানো হয়েছে।'

ম্যাচটি আবাহনীর কাছ থেকে দুই দফা কেড়ে নিয়েছেন মোহামেডানের মালির অধিনায়ক সুলেমান দিয়াবাতে। প্রতিপক্ষ কোচের দৃষ্টিতে সুলেমান নায়ক, 'বাংলাদেশে দিয়াবাতে অন্যতম সেরা একজন স্ট্রাইকার। সে আজ তার সেরাটা দিয়েছে। সকলকে নিজের সক্ষমতা দেখিয়েছে।' 

১২০ মিনিটে সমানে সমান লড়লেও টাইব্রেকারে হারের কারণ সম্পর্কে বলেন, 'টাইব্র্রেকারে দুটি শট মিস হবে এটা আমাদের প্রত্যাশার বাইরে ছিল। তবে এখানে গোলরক্ষককে কৃতিত্ব দিতে হয়। সে দারুন সেভ করেছেন।'


বিজ্ঞাপন


এমএএম 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর