রাবাদার বোলিং তোপের পর প্রোটিয়াদের শতরানের লিড

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০২২, ১০:০৬ এএম
রাবাদার বোলিং তোপের পর প্রোটিয়াদের শতরানের লিড

তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে লর্ডসে শেষ হয়েছে দুই দিনের খেলা। কাগিসো রাবাদার বোলিং তোপে নিজেদের প্রথম ইনিংসে মাত্র দেড়শ রান পার করতেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকদের ইনিংস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শতরানের বেশি লিড নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে সফরকারী  দক্ষিণ আফ্রিকা। 

প্রথম দিনে বৃষ্টির বাগড়ায় কেবল এক সেশনের মতো খেলা মাঠে গড়ায়। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রোটিয়া পেসারদের তোপের মুখে পড়ে বেন স্টোকসের দল। ১১৬ রানের ৬ উইকেট নিয়ে গতকাল দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে স্বাগতিকরা। কিন্তু কাগিসো রাবাদার বোলিং তোপে ১৬৫ রানে গুটিয়ে যায় জো রুটরা। এ ডানহাতি বোলার নেন ৫টি উইকেট। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে মাঝপথে খানিকটা খেই হারালেও প্রোটিয়ারা দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ৭ উইকেটে ২৮৯ রানে। স্টোকসের দারুণ বোলিংয়ের পরও ১২৪ রানে এগিয়ে থাকার পথে ব্যক্তিগত অর্ধশতকের দেখা পান সারেল জোহানেস এরউই। ক্রিজে ৪১ রানে আছেন মার্কো ইয়ানসেন আর সঙ্গী রাবাদার রান ৩।

প্রথমদিনে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপাকে পড়ে ইংলিশরা। দলীয় ২৫ রানে দুই ওপেনার সাজঘরে ফিরে যান। মার্কো ইয়ানসেন ও কাগিসো রাবাদার বোলিং তোপে টপ অর্ডার ব্যাটাররা ব্যর্থ হন। 

ইনিংস মেরামতের বদলে উল্টো বিপাকে পড়ে ইংলিশ ব্যাটাররা। ৫৫ রানে দলের চার জন টপ অর্ডার ব্যাটার সাজঘরে ফেরেন। সাবেক অধিনায়ক জো রুটও ব্যর্থ ছিলেন। মাত্র ৮ রান করে ইয়ানসেনের বলে লেগ বি ফোরের ফাঁদে পড়েন তিনি। 

অপরদিকে রানের খাতায় খুলতে পারেননি দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জনি বেয়ারস্টো। ৫ বল থেকে শূন্য রানে এনরিখ নরকিয়ার গতিতে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান।

পঞ্চম উইকেট জুটিতে ওলি পোপ ও অধিনায়ক বেন স্টোকস ইনিংস এগিয়ে নিতে থাকে। কিন্তু তাদের ৪৫ রানের জুটি ভাঙেন ডানহাতি পেসার নরকিয়া। প্রথমদিন ৩২ ওভার শেষে ১১৬ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারায় স্টোকসের দল। বৃষ্টির বাগড়ায় পড়ে আর মাঠে গড়ায়নি খেলা।

দ্বিতীয় দিনে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ইংলিশরা। পোপের ৭৩ রানে ভর করে শেষ পর্যন্ত ১৬৫ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। প্রোটিয়াদের হয়ে রাবাদার ৫ উইকেটের পাশাপাশি নরকিয়া নেন ৩ উইকেট আর ইয়ানসেন ২টি ।

ব্যাট হাতে দলকে দারুণ শুরু এনে দেন দুই প্রোটিয়া ওপেনার ডিন এলগার ও সারেল এরউই। প্রথম উইকেট জুটিতে ১৩৫ বল থেকে ৮৫ রান যোগ করার পর অ‍্যান্ডারসনের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক এলগার। ভাগ্য ভালো ছিল না এ বাঁহাতি ব্যাটারের। 

বল গায়ে লাগার পর সেটা স্টাম্পের দিকে যাচ্ছিল। এমন অবস্থায় পা দিয়ে সরিয়ে দিতে যান প্রোটিয়া দলপতি। তাতেও কাজ হয়নি। বলের আঘাতে স্টাম্পের বেলস পড়ে যায়। আউট হওয়ার আগে ৮ চারের সাহায্যে ৪৭ রান করেন তিনি। 

অধিনায়ক ফিরে গেলেও দ্বিতীয় উইকেটে কিগার পিটারসেনকে নিয়ে আরেকটি শক্ত জুটিতে নাম লেখান এরউই। ৫৩ রান তুলেন এ দুই ব্যাটার। ম‍্যাথু পটসের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে স্লিপ ক‍্যাচে ধরা পড়েন পিটারসেন।

পরের জুটিকে বেশিক্ষণ টিকতে দেননি জ্যাক লিচ। এইডেন মারক্রামকে দ্রুতই ফেরান এ বাঁহাতি স্পিনার। এক সময় ২ উইকেটে ১৬০ রানে থাকা সফরকারীদের ইনিংস ২১০ রান তুলতেই হারায় ৭ উইকেট। তাতে বিপদে পড়ে দল। 

ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি এইডেন মারক্রাম, রাসি ফন ডার ডাসেন ও কাইল ভেরেইনা। বেন স্টোকসের বাউন্সারে ১৪৬ বলে ৬ চারে ব্যক্তিগত ৭৩ রান করে ক্যাচ আউট হন এরউই। ডাসেনকেও অল্পতেই ফেরান ইংলিশ অধিনায়ক। 

লোয়ার অর্ডারে ৭ম উইকেট জুটিতে ৭৫ বলে ৭২ রান তুলে দলকে চালকের আসনে নিয়ে আসেন ইয়ানেমান ও মহারাজ। দারুণ ব্যাট করতে থাকা মহারাজকে হাফ-সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতেই ফেরান স্টোকস। 

দিনের বাকিটা সময় রাবাদাকে নিয়ে পার করে দেন ইয়ানেমান। আজ তৃতীয় দিনে লিড বড় করে ইংলিশদের চাপে ফেলার লক্ষ্যেই ব্যাটে নামবে দক্ষিণ আফ্রিকা। 

এসও