আইপিএলে আমাকে ৩-৪ বার থাপ্পড় মারা হয়: রস টেইলর  

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ আগস্ট ২০২২, ০৬:৩৬ পিএম
আইপিএলে আমাকে ৩-৪ বার থাপ্পড় মারা হয়: রস টেইলর  

'দ্য ওয়াল' খ্যাত ক্রিকেটার রাহুল দ্রাবিড়। তিনি ব্যাটে নামা মানেই ছিল বোলারদের একের পর এক ওভার করে ক্লান্ত হয়ে পড়া। কিছুইতে যেন আউট হতে চাইতেন না তিনি। বলের লাইনে গিয়ে ব্যাট এমনভাবে চালাতে পারদর্শী ছিলেন সাবেক ভারতীয় ব্যাটার যে সেটা 'ইনসাইড এজ' আর 'আউটসাইড এজ' হতো না বললেই চলে। এ ডানহাতি ব্যাটারের সমালোচক খুঁজে পাওয়া ভার। বিপরীতে তার প্রশংসা করার লোকের জুড়ি নেই। এবার  দ্রাবিড়কে প্রশংসায় ভাসালেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক কিংবদন্তি ব্যাটার  রস টেইলর। 

টেইলর যে শুধু প্রশংসাসূচক কথা বর্ণনা করেছেন তা নয়। আইপিএলে খেলার সময় তিক্ত অভিজ্ঞতার কথাও জানিয়েছেন তিনি। 

দ্রাবিড়কে দেখে রীতিমতো মুদ্ধ কিউই ব্যাটার। নিজের আত্মজীবনী ‘ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট’-এ দ্রাবিড়কে নিয়ে মন্তব্য করেছেন নিউজিল্যান্ডের হয়ে ১০০-র বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলা টেইলর। ভারতে দ্রাবিড়ের যে জনপ্রিয়তা সেটা দেখে হতবাক হয়েছিলেন টেইলর। সে কথাই জানালেন তিনি।

২০১১ সালে আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে খেলেছিলেন টেইলর। সেই সময় রাজস্থান দলে ছিলেন দ্রাবিড়। সেই সুবাদেই দ্রাবিড়কে কাছ থেকে দেখেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৪০ টি শতকের মালিক। 

দ্রাবিড়ের সঙ্গে একবার জঙ্গল সাফারিতে গিয়েছিলেন টেইলর। তখনই ভারতের সাবেক অধিনায়কের জনপ্রিয়তার আঁচ করতে পারেন তিনি।

টেইলর তার আত্মজীবনীতে লেখেন, ‘আমরা কয়েকজন জঙ্গল সাফারিতে গিয়েছিলাম। ভাগ্যক্রমে একটা বাঘ দেখতে পেয়েছিলেন। আমাদের থেকে ১০০ মিটার দূরে দাঁড়িয়েছিল সেটা। বাঘ দেখার জন্য দ্রাবিড় জিপ থেকে মাথা বের করতেই আমি দেখি, আশপাশের গাড়ি থেকে সবাই বাঘ না দেখে দ্রাবিড়কে দেখছে। সব ক্যামেরা দ্রাবিড়ের দিকে তাক করা। আসলে জঙ্গলে তো ৪ হাজার বাঘ আছে। কিন্তু পৃথিবীতে একটাই দ্রাবিড় আছে।’

তবে রাজস্থানে থাকাকালীন খারাপ ঘটনাও ঘটেছিল টেইলরের সঙ্গে। সে কথাও নিজের আত্মজীবনীতে উল্লেখ করেছেন তিনি। লিখেছেন, ‘মোহালিতে ২০১১ সালের আইপিএল ম্যাচে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে যখন আমি ০ রানে আউট হয়েছিলাম, তখন গোটা দলের সামনে রাজস্থানের এক মালিক এসে আমাকে ৩-৪ বার চড় মেরেছিল। বলেছিল তোমাকে লাখ লাখ ডলার দিয়ে শূন্য রান করার জন্য নিয়ে আসিনি। খুব জোড়ে থাপ্পড় দেয়নি, কিন্তু পেশাদার ক্রীড়া পরিবেশে এটি ঘটবে তা আমি কল্পনাও করতে পারিনি।’ 

এসও