শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

বাংলাদেশের পেসারদের তোপে অল্পতেই থামল দক্ষিণ আফ্রিকা

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ জুন ২০২৪, ১০:০৭ পিএম

শেয়ার করুন:

বাংলাদেশের পেসারদের তোপে অল্পতে থামল দক্ষিণ আফ্রিকা

চলছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। যেখানে শ্রীলঙ্কা ও নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে শুরু করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। অন্যদিকে লঙ্কানদের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ দল। আজ ডি গ্রুপের ম্যাচে একে অপরের প্রতিপক্ষ এই দুই দল। এমন ম্যাচে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন প্রোটিয়া অধিনায়ক এইডেন মার্করাম। আগে ব্যাট করতে নেমে টাইগার বোলারদের তোপে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রানের সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। 

নাসাউ কাউন্টি ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে প্রোটিয়াদের হয়ে ইনিংস শুরু করতে নামেন কুইন্টন ডি কক ও রেজা হেনড্রিকস। গত ম্যাচের মতোই বাংলাদেশের বোলিং ইনিংস আজও ওপেন করেন তানজিম হাসান সাকিব। প্রথম ওভারে কুইন্টন ডি ককের কাছে টানা ছয়-চার হজম করেন তানজিম হাসান সাকিব।


বিজ্ঞাপন


শেষ বলে স্ট্রাইকে আসেন রেজা হেনড্রিক্স। বাংলাদেশি বোলারের মুখোমুখি হয়ে নিজের প্রথম বলেই আউট হন তিনি। তানজিমের এলবিডব্লিউর আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। দলীয় ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকার। নিজের দ্বিতীয় ওভারে বল হাতে নিয়ে আরেকবার দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং অর্ডারে আঘাত করলেন তানজিম হাসান সাকিব।

382566

আগের ওভারে তাকে টানা ছয়-চার মারা কুইন্টন ডি ককের অফস্টাম্প ভাঙেন বাংলাদেশি পেসার। তৃতীয় বলে পুল করতে গিয়ে প্রোটিয়া ব্যাটার বলে ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। ১১ বলে ১৮ রান করেন ডি কক। তাতে প্রোটিয়াদের ১৯ রানে দ্বিতীয় উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ।

এরপর প্রোটিয়া অধিনায়ক এইডেন মার্করাম ও ট্রিস্টান স্টাবস মিলে শুরু ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে দলীয় ২৩ রানে আরও জোড়া উইকেট হারিয়ে বিশাল চাপে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৮ বলে ৪ রান করা মার্করামকে সাজঘরে ফেরান তাসকিন আহমেদ। আর স্টাবসকে নিজের তৃতীয় শিকার বানান তানজিম সাকিব।


বিজ্ঞাপন


382560 তাতে ২৩ রানে চার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে প্রোটিয়ারা। সেখান থেকে চাপ সামলিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন হেনরিখ ক্লাসেন ও ডেভিড মিলার। ৭৯ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। তবে দলীয় ১০২ রানে ক্লাসেনকে আউট করে বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু এনে দেন তাসকিন। সাজঘরে যাবার আগে ৪৬ রান করেন তিনি। 

এরপর রিশাদের ঘূর্নিতে দ্রুত ফেরেন মিলারও প্যাভিলিয়নে যাবার আগে ২৯ রান করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রান সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন তানজিম সাকিব। 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর