আ.লীগকে হটিয়ে ক্ষমতায় বসতে চান মান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৪৪ পিএম
আ.লীগকে হটিয়ে ক্ষমতায় বসতে চান মান্না

আওয়ামী সরকার পতনের আন্দোলনে সফল হলে রাষ্ট্রক্ষমতায় যাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি ও গণতন্ত্র মঞ্চের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না।

শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর শাহবাগে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

রাজনৈতিক সভা-সমাবেশে বাধা, হামলা-মামলা, দমন-পীড়ন, গুলি ও হত্যা বন্ধের দাবিতে ওই সমাবেশের আয়োজন করে গণতন্ত্র মঞ্চ।

আজকের সমাবেশে দু’একজন বক্তা বলেছেন যে- তারা আওয়ামী লীগকে হটিয়ে অন্য কাউকে ক্ষমতায় বসাতে আন্দোলন করছেন না। আমি তাদের সঙ্গে একমত নই। জালিম আওয়ামী লীগকে সরিয়ে পারলে আমি ক্ষমতায় বসতে চাই। তবে সেটা একাই নয়, এই মঞ্চে যতজন আছে, সবাইকে নিয়ে ক্ষমতায় যেতে চাই। সমাবেশে মাহমুদুর রহমান মান্না

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি বলেন, বাংলাদেশে আজ আট কোটি মানুষ গরিব। চার কোটি মানুষের চাকরি নেই। এক কোটি শিক্ষিত যুবক বেকার। একটা মধ্যবিত্ত পরিবারের একজনের যদি মাঝারি বা বড় অসুখ হয়, হাসপাতালে ঢুকলে সেই মধ্যবিত্ত পরিবার একেবারে গরিব-নিঃস্ব হয়ে বাড়িতে ফিরে। আমি বা এই মঞ্চ ক্ষমতায় গেলে সমস্ত গরিব মানুষ, যাদের অসুখ হলে চিকিৎসা করার ক্ষমতা নেই, তাদের বিনা পয়সায় চিকিৎসা দিতে চাই। এটাকে আমি মিশন মনে করি।

আওয়ামী লীগের সাবেক এই নেতা বলেন, একটা টকশোতে আওয়ামী লীগের এক নেতা আমাকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, আপনারা যে বড় বড় কথা বলেন, ক্ষমতায় গেলে দেশের ভালো করতে পারবেন? আমি তাকে বললাম- আপনাদের মতো খারাপরা দেশ কীভাবে চালায়? আওয়ামী লীগ দেশের যত খারাপ করেছে, এর চাইতে খারাপ করবার জায়গা নেই। কাজেই, যে কেউ ক্ষমতায় গেলে তাদের চেয়ে দেশ ভালো চালাতে পারবে।

সবাইকে সরকার পতনের আন্দোলনের ডাকে সারা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমি আজ ক্ষমতার কথা বলছি, লড়াইয়ের কথা বলছি, কারণ এই সমাজকে বদলাতে চাই, মানুষকে অন্যায়ের হাত থেকে বাঁচাতে চাই, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে চাই, তাই জালিমকে সবার আগে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে হবে। তাছাড়া পরিবর্তনের কোনো সম্ভাবনা নেই। হামলা-মামলা, দমন নিপীড়ন করে আন্দোলন দমন করা যাবে না। সবাইকে রাজপথে নামতে হবে।

সমাবেশে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, গণঅধিকার পরিষদের সদস্যসচিব নুরুল হক নুর, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকিসহ দলীয় জোটের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

টিএই/আইএইচ