রাষ্ট্রকে মেরামত করতে হবে: ন্যাপ মহাসচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১১ পিএম
রাষ্ট্রকে মেরামত করতে হবে: ন্যাপ মহাসচিব
ছবি: সংগৃহীত

ব্যক্তি ও দলীয় স্বার্থে রাষ্ট্রকে জিম্মি করে শাসকগোষ্ঠীকে জাতীয় স্বার্থবিরোধী অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুইয়া। তিনি বলেছেন, ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করতে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে সর্বনাশা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আইনগত ও নৈতিকভাবে ধ্বংসের শেষ সীমায় নিয়ে গেছে। এভাবে চলতে থাকলে রাষ্ট্রের অস্তিত্ব বড় ধরনের ঝুঁকিতে পড়বে। তাই রাষ্ট্রকে মেরামত করতে রাজনৈতিক নেতৃত্বকে দায়িত্ব নিতে হবে। 

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত কেক কাটা ও আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, রাষ্ট্র পুনর্গঠন ও পুননির্মাণসহ গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা এবং সর্বোপরি রাষ্ট্র মেরামতের প্রয়োজনে ‘জাতীয় ঐক্য’ প্রতিষ্ঠা অনিবার্য হয়ে উঠেছে। কোনো একক বা দলীয় সরকার বিদ্যমান দুর্বৃত্তপূর্ণ রাষ্ট্রের আর্থসামাজিক ও রাজনৈতিক সংকট মোকাবিলা করতে পারবে না। সেজন্য রাজনৈতিক দলগুলোর মাধ্য কার্যকর জাতীয় ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই।  

তিনি আরো বলেন, রাষ্ট্রীয় গভীর সংকটে মৌলিক করণীয় উপেক্ষা করে শুধুমাত্র রাষ্ট্রক্ষমতা দখল কোনো লক্ষ্য হতে পারে না। ঔপনিবেশিক রাষ্ট্রকাঠামোর আমূল সংস্কার, নিপীড়নমূলক আইন বাতিল, দুর্নীতি প্রতিরোধ, সর্বোপরি স্বাধীন দেশের উপযোগী রাষ্ট্রকাঠামো গড়ে তোলার মাধ্যমে রাষ্ট্র মেরামত করা এই মুহূর্তের মৌলিক কর্তব্য। 

তিনি বলেন, সাম্য মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা তথা শোষণ মুক্তির লড়াইকে বেগবান করতে হবে। আগামী প্রজন্মের জন্য রাজনৈতিক দিকনির্দেশনা রেখে যেতে হবে।

বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান হামদুল্লাহ আল মেহেদীর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব আবদুল্লাহ আল মামুনের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএলডিপি চেয়ারম্যান এম নাজিমউদ্দীন আল আজাদ, এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্তজা, জাতীয় পার্টি-জেপি প্রেসিডিয়াম সদস্য সাদেক সিদ্দিকী, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, গণআজাদী লীগ মহাসচিব মুহাম্মদ আতাউল্লাহ খান, বাংলাদেশ কংগ্রেস মহাসচিব অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম প্রমুখ।

টিএই/এইউ