রোববার, ২৬ মে, ২০২৪, ঢাকা

ভোটে না এলে জনগণও সেই দলকে স্যাংশন দেবে, মনে করেন আউয়াল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০২:৫৪ পিএম

শেয়ার করুন:

ভোটে না এলে জনগণও সেই দলকে স্যাংশন দেবে, মনে করেন আউয়াল

কোনো রাজনৈতিক দল আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে জনগণ তাদের স্যাংশন দেবে বলে মনে করেন ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য লায়ন এম এ আউয়াল।

তিনি বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ঘণ্টা বেজে উঠেছে। একদিকে কেউ নির্বাচন প্রতিহত করবে, কেউ নির্বাচন করবে। এর মধ্যে দেশে স্যাংশন আর পাল্টা স্যাংশনের বক্তব্য শুনতে পাই। কিছু সরকারি ও কিছু বিরোধী দলের নেতাদের ওপর স্যাংশন দিয়েছে আমেরিকা।


বিজ্ঞাপন


বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় অবস্থিত ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এম এ আউয়াল এসব কথা বলেন। 

পবিত্র ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী (সা.) ও পার্টির চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির ঢাকা দক্ষিণ মহানগর শাখা।

4

ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টি ও প্রগতিশীল ইসলামী জোটের চেয়ারম্যান এমএ আউয়াল বলেন, টেলিভিশন খুললেই দেখা যায়, এক দল আরেক দলকে শুধু স্যাংশন দিয়ে যাচ্ছে। অথচ দেশের মানুষের আজকে কী অবস্থা, সেদিকে কিন্তু কারো কোনো বক্তব্য নেই। হাসপাতালে যেভাবে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে, চলছে আহাজারি, দ্রব্যমূল্য ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে, যেভাবে মানুষের জীবনযাত্রার মান কমে যাচ্ছে, মানুষ কষ্টে আছে, সেদিকে কারো খেয়াল নেই।


বিজ্ঞাপন


তিনি বলেন, দেশের এই পরিস্থিতিতে আবার জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে দেশের মানুষ যেনো ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, একটি সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আশা করছে। সেই নির্বাচন অবশ্যই যথা সময়ে হতে হবে, যদি না হয় তাহলে দেশে একটি সাংবিধানিক সংকট সৃষ্টি হবে। এটা দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে না।

ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, আমরা মনে করি, এই বিষয়টি উপলব্ধি করতে পেরেছি। দেশে আইনের শাসন, ন্যায় বিচার এবং মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে হলে, জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে নির্বাচনে যাওয়ার কোনো বিকল্প নেই। আমরা ১৫টি ইসলামি দল নিয়ে প্রগতিশীল ইসলামী জোট গঠন করেছি। এই জোট আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। সরকারসহ সকল রাজনৈতিক দলকে বলব, আসুন আলাপ-আলোচনার মধ্য দিয়ে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি।

তিনি আরও বলেন, আজকের এই দিনটি এক ঐতিহাসিক দিন। আজকের এই দিনে আমাদের প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (স) জন্মদিবস। যাকে সৃষ্টি না করলে এই পৃথিবী সৃষ্টি হতো না। আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও জন্মদিন। আমাদের দলের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা দক্ষিণ মহানগর শাখার সভাপতি কাজী মাসুদ আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন— ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির মহাসচিব ও প্রগতিশীল ইসলামী জোটের সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট মো. নূরুল ইসলাম খান প্রমুখ।

বিইউ/এএস

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর