রোববার, ১৪ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

টিকেট ছাড়া রেলস্টেশনে ঢোকা যাবে না, ওঠা যাবে না ছাদে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২ এপ্রিল ২০২৩, ০৬:৪১ এএম

শেয়ার করুন:

টিকেট ছাড়া রেলস্টেশনে ঢোকা যাবে না, ওঠা যাবে না ছাদে
ঈদুল ফিতরে ট্রেনের ছাদে ওঠা ঠেকাতে প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রণের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে

নিবন্ধনের পর জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে যার টিকেট তাকে কাটতে হবে এমন নিয়ম চালুর পর এবার ঈদযাত্রায় ট্রেনে চলাচলে শৃঙ্খলা আনতে চায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এরই অংশ হিসেবে আসছে ঈদুল ফিতরে টিকিটবিহীন যাত্রীদের স্টেশনে প্রবেশ বন্ধ ও ট্রেনের ছাদে ওঠা ঠেকাতে প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রণের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

শনিবার (১ এপ্রিল) রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. হুমায়ূন কবির ও রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. কামরুল আহসান রাজধানীর বিমানবন্দর থেকে জয়দেবপুর স্টেশন পর্যন্ত পরিদর্শন করে এ নির্দেশ দেন।


বিজ্ঞাপন


আগামী ৭ এপ্রিল থেকে ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। এই টিকিট শুধুমাত্র অনলাইনে বিক্রি করা হবে। নতুন নিয়মে টিকেট দেওয়ায় অন্য সময়ের মতো এ বছর স্টেশনে দিনের পর দিন নির্ঘুম রাত কাটানোর প্রয়োজন হবে না বলে মনে করছে রেলওয়ের কর্মকর্তারা। অন্যদিকে যার টিকেট তাকে দেওয়ায় আগের টিকেট কালোবাজারির অভিযোগও নেই যাত্রীদের।

তাই এবার ঈদযাত্রা স্বস্তির করতে রেলওয়ে পুলিশ ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীকে এমন নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রেলওয়ে পুলিশের ঢাকা অঞ্চলের পুলিশ সুপার আলোয়ান হোসেন বলেন, ‘এবার যেহেতু ঈদের অগ্রিম টিকিট শতভাগ অনলাইনে দেওয়া হচ্ছে, তাই যাত্রীরা সচেতন হয়ে আগেই অগ্রিম টিকিট অনলাইন থেকে কিনবেন। কারণ, টিকিট ছাড়া কাউকে স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। তা ছাড়া ২৫ শতাংশ স্ট্যান্ডিং টিকিটের যাত্রীরা স্টেশনে ঢুকতে পারবেন। সেটাও কঠোর চেকিংয়ের মাধ্যমে ঢুকতে হবে। 

তিনি বলেন, স্টেশনগুলোতে এবার এক্সেস কন্ট্রোল (প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রণ) জোরদার করা হবে।’ এবার স্টেশনে বিনা টিকিটে কোনো যাত্রী প্রবেশ করতে পারবেন না জানিয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, তবে টিকিটধারী যাত্রীরা যাতে সুশৃঙ্খলভাবে স্টেশনে ঢুকতে পারে সেই বিষয়ে রেল পুলিশের সদস্যরা কাজ করবেন। একইসঙ্গে নিরাপত্তার জায়গায় যতটুকু করার দরকার, সেটা রেল পুলিশের পক্ষ থেকে করা হবে।

আলোয়ান হোসেন আরও বলেন, ‘বিমানবন্দর ও জয়দেবপুর স্টেশনে বাউন্ডারি আছে। এক্সেস কন্ট্রোলে এই স্টেশনে তেমন সমস্যা হবে না। তবে, টঙ্গী স্টেশনের দুই পাশে একেবারেই খোলা। ফলে সেই জায়গাটায় এক্সেস কন্ট্রোল করা আমাদের জন্য কিছুটা চ্যালেঞ্জ হতে পারে। যেহেতু সব টিকিট অনলাইনে, ফলে কাউন্টারে ভিড় হবে না। তা ছাড়া ট্রেনের ছাদেও কোনো যাত্রী উঠতে দেওয়া হবে না।’


বিজ্ঞাপন


বিইউ

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর