ইভিএম প্রকল্প পাস না হলেও কমিশন হতাশ নয়: সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:২১ পিএম
ইভিএম প্রকল্প পাস না হলেও কমিশন হতাশ নয়: সিইসি

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের জন্য ২ লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কিনতে নির্বাচন কমিশনের প্রকল্প পাস না হলেও কমিশন হতাশ নয় বলে জানিয়েছেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল।

বুধবার (২৫ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সময় এমন মন্তব্য করেন তিনি।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে সর্বোচ্চ দেড়শ আসনে ইভিএম ব্যবহার করার চিন্তা ছিল নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। এজন্য ৮ হাজার ৭১১ কোটি টাকায় নতুন প্রায় দুই লাখের মতো ইভিএম কেনার প্রস্তাব দিয়েছিল ইসি। কিন্তু অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে ইভিএম কেনার এই প্রকল্পটি স্থগিত করায় দেড়শ আসনে ইভিএম ব্যবহার করার চিন্তা বাদ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

তবে প্রকল্প পাস না হলেও নির্বাচন কমিশন হতাশ নয় জানিয়ে সিইসি হাবিবুল আউয়াল বলেন, নির্বাচন কমিশনের বিদ্যমান সক্ষমতায় ভোটের আয়োজন করা হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘হতাশ হওয়ার প্রশ্নই আসে না। আমাদের যে ইভিএম আছে তা দিয়ে ৫০,৪০,৩০ আসনে হবে? এ বিষয়ে আমরা এখনও সিদ্ধান্ত নেইনি। আমাদের কাছে যে ইভিএম আছে তা যদি কার্যকর থাকে, আমরা কিউসি করছি, যতটা সম্ভব নির্বাচন করবো। এ বিষয়টা এখনও নিশ্চিত নই। কত আসনে ইভিএমে ভোট করতে পারব সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে পরে।’

হাবিবুল আউয়াল বলেন, দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে নতুন করে আরও দুই লাখ ইভিএম কেনায় সরকার সায় দেয়নি। প্রকল্পটি স্থগিত হলেও তাতে হতাশ হইনি। সে সঙ্গে বিদ্যমান কার্যকর ইভিএম দিয়ে কত আসনে ইভিএমে ভোট করবে তা নিয়ে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

‘ইভিএমের বিষয়টি আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার নয়, হতাশার কিছু নেই। একটা সিদ্ধান্ত এসেছে, সার্বিক অর্থনীতির কারণে সরকার ইভিএম দিতে পারছে না। এখানে আমাদের রিয়েকশনের কিছু নেই।-বলেন সিইসি।

এ সময় দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তফসিল অনুযায়ী ১৯ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হবে। সেদিন দুপুর দুইটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত জাতীয় সংসদের সংসদ কক্ষে চলবে ভোটগ্রহণ।

তফসিল অনুয়ায়ী, রাষ্ট্রপতি পদে মনোনয়নপত্র দাখিল আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি (রোববার)। ওইদিন সকাল দশটা থেকে চারটা পর্যন্ত প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কর্তার কক্ষে মনোনয়ন জমা দেওয়া যাবে।

মনোনয়নপত্র বাছাই ১৩ ফেব্রুয়ারি (সোমবার)। ওইদিন সকাল দশটা থেকে শুরু হবে বাছাই। আর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৪ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার)। ওইদিন বিকেল চারটা পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা হবে।

রাষ্ট্রপতি কার্যভার গ্রহণের তারিখ থেকে পরবর্তী পাঁচ বছর তার পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারেন। বর্তমান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল কার্যভার গ্রহণ করেন। সে মোতাবেক তার দায়িত্বের পাঁচ বছর মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ২৩ এপ্রিল।

এমআর