ডিপিডিসি’র ‘আন্ডারগ্রাউন্ড ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক’ নির্মাণ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৩৪ এএম
ডিপিডিসি’র ‘আন্ডারগ্রাউন্ড ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক’ নির্মাণ শুরু

ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ এবং শক্তিশালীকরণ শীর্ষক প্রকল্প (জি টু জি) এর অন্তর্ভুক্ত ‘‘ধানমন্ডি আন্ডারগ্রাউন্ড ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক’’ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এ কাজের উদ্বোধন করেন।

ডিপিডিসি জানায়, ঢাকা শহরের দৃশ্যমান তারের জঞ্জাল থেকে মুক্ত করে পরিচ্ছন্ন ও উন্নত ঢাকা সিটিতে রূপান্তর এবং একই সাথে নিরবচ্ছিন্ন ও গুণগত বিদ্যুৎ সেবা প্রদানের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর নিদেশনা মোতাবেক “ডিপিডিসি’র আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ধানমন্ডি এলাকার ওভারহেড বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থাকে আধুনিক বিশ্বের ন্যায় আন্ডারগ্রাউন্ড বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় রূপান্তরের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। এই কাজের ফলে ওভারহেড তারের লাইন থেকে মুক্ত হয়ে ধানমন্ডি এলাকার আকাশ হবে উন্মুক্ত।

ডিপিডিসি আরও জানায়, ধানমন্ডি এলাকাকে আন্ডারগ্রাউন্ড বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় রূপান্তরের জন্য এই এলাকার আগামী ২৫ বছরের বিদ্যুৎ চাহিদা বিবেচনা করে ডিজাইন করা হয়েছে। ফলে আগামী ২৫ বছরে নতুন সংযোগ ব্যতিত বিদ্যুৎ লাইন নির্মানের জন্য রাস্তা খননের প্রয়োজন হবে না। এছাড়া ঝড়বৃষ্টিতে ওভারহেড বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার ন্যায় আন্ডারগ্রাউন্ড বিতরণ ব্যবস্থায় ব্রেকডাউন অথবা তার ছিড়ে পড়ে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা বিকল হওয়া বা জনমানুষের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

এছাড়াও প্রস্তাবিত ধানমন্ডি এলাকায় চারটি ৩৩/১১ কেভি উপকেন্দ্র হতে বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। ভবনগুলিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়েছে আধুনিক আরএমইউ মাধ্যমে এবং এই আরএমইউ গুলিকে নিজেদের মধ্যে আন্তসংযোগের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে, ফলে কোন স্থানের আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন কাটা পড়লে বা কোনো আরএমইউ বিকল হলে, ঐ আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন বা আরএমইউ বাদে বাকি অংশ বিকল্প ব্যবস্থায় চালু থাকবে, ফলে বর্তমানের ন্যায় অল্প সমস্যার জন্য বৃহৎ এলাকা বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় থাকবে না। 

অপরদিকে আন্ডারগ্রাউন্ড বিতরণ ব্যবস্থার যন্ত্রাংশে অত্যাধুনিক অটোমেশন ও কমিউনিকেশন সিস্টেম অন্তর্ভুক্ত আছে, যা অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে সেন্ট্রাল কন্ট্রোল সিস্টেমের সাথে সংযুক্ত থাকবে, ফলে অল্প সময়ের মধ্যে ফল্ট শনাক্তকরণ ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থা রিস্টোর করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে ডিপিডিসি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন— ঢাকা ১০ আসনের সংসদ সদস্য শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, ডিপিডিসি পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যন মো. হাবিবুর রহমান, ডিপিডিসি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান প্রমুখ।

টিএই/এএস