প্রতিমা বিসর্জনে জনস্রোত, কৈলাসে ফিরলেন দেবী দুর্গা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৩৬ পিএম
প্রতিমা বিসর্জনে জনস্রোত, কৈলাসে ফিরলেন দেবী দুর্গা

মহাষষ্ঠীর উৎসবের মধ্যদিয়ে গত শনিবার পাঁচ দিনব্যাপী যে সার্বজনীন দুর্গোৎসব শুরু হয়েছিল, আজ বিষাদের সুরে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে তা শেষ হলো। সেই সঙ্গে স্বর্গলোকের কৈলাসে স্বামীর ঘরে ফিরলেন দেবী দুর্গা।

বুধবার (৫ অক্টোবর) বিজয়া দশমী হওয়ায় বিকেল থেকেই প্রতিমা বিসর্জনকে ঘিরে মানুষের ঢল নামে। পরে বিষাদের সুরে নেচে-গেয়ে দেবী দুর্গাকে বিদায় জানান ভক্তরা। তবে আগামী শরতে আবার তিনি ফিরবেন এই ধরণীতে, যা তার বাবার ঘর।

Pujaবিসর্জনকে ঘিরে এ দিন ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছিল। সেই সঙ্গে সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে শেষ হয় দশমীর বিহিত পূজা। এরপর নেচে-গেয়ে দেবী দুর্গাকে বিদায়ের পালা শুরু হয়। পরে বিকেল ৪টার দিকে শুরু হয় বিজয়া শোভাযাত্রা।

শারদীয় দুর্গাপূজার বিজয়া দশমী উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটির দিন থাকায় এই শোভাযাত্রায় মানুষের ঢল নামে। সেই সঙ্গে প্রতিমা বিসর্জন দিতে বিকেল থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে ট্রাকযোগে প্রতিমা নিয়ে বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাটের অদূরে আসতে দেখা যায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের। ওই সময় বুড়িগঙ্গার দক্ষিণ দিকের ফরিদাবাদের ওয়াইজঘাটে প্রচণ্ড ভিড় সৃষ্টি হয়।

Puja

বিকেল ৪টা থেকে একের পর এক প্রতিমা বিসর্জন শুরু হয়। ওই সময় ট্রাক থেকে নামিয়ে নৌকায় তুলে বুড়িগঙ্গা নদীতে নিয়ে বিসর্জন দেওয়া হয় দেবী দুর্গার প্রতিমা। একই সময় মাঝ নদীতেও নৌ পুলিশের কড়া পাহারা লক্ষ্য করা যায়।

এদিকে, ঢাকেশ্বরী থেকে বিকেল ৪টায় শোভাযাত্রাটি বের হয়ে পলাশী মোড়, দোয়েল চত্বর, গুলিস্তান, রায় সাহেব বাজার, নবাবপুর হয়ে সদরঘাটের ওয়াইজঘাটের স্নানঘাটে এনে প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়। সবমিলিয়ে রাত ১২টা পর্যন্ত বিসর্জন চলবে ওয়াইজঘাটে।

এর আগে বিসর্জনের জন্য মণ্ডপ থেকে প্রতিমা নেওয়ার সময় সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠেন তরুণ-তরুণীরা। সেই সঙ্গে ঢোল-তবলা আর নাচে-গানে সবাই বিদায় জানান দেবী দুর্গাকে।

Pujaপ্রতিমা বিসর্জন দিতে লক্ষীবাজারের শুভাসিস সাহা ঢাকা মেইলকে বলেন, দেবী দুর্গা এসেছেন আনন্দের সমারোহ নিয়ে। সকল অপসংস্কৃতি দূর করে দিয়ে দেবী দুর্গা আজ বিদায় নিচ্ছেন। সকল অপশক্তি দূর হয়ে, আনন্দের সমারোহ বছরজুড়ে থাকুক এই কামনা করি।

নারিন্দা এলাকার সুভাসচন্দ্র বলেন, এবার মা দুর্গা আমাদের মাঝে এসেছিলেন দোলায় চড়ে যা ছিল অশুভ। অশুভ শক্তির পরাজয় ঘটিয়ে মা বিদায় নিচ্ছেন। বছরের প্রতিটা দিন শুভলক্ষণে কাটতে পারি এই প্রার্থনা মায়ের কাছে।

/আইএইচ