ঈদে রেলের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু ১ জুলাই

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ জুন ২০২২, ০৪:১৭ পিএম
ঈদে রেলের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু ১ জুলাই
ফাইল ছবি

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি আগামী ১ জুলাই থেকে শুরু হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, আগামী ১০ জুলাই ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ধরে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি হবে। ট্রেনে ঈদযাত্রার ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে।

বুধবার (২২ জুন) দুপুরে রেল ভবনে যমুনা কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

রেলমন্ত্রী বলেন, প্রতিবারের মতো এবারও ঈদযাত্রার পাঁচ দিন আগের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। সে অনুযায়ী, ট্রেনের ৫ জুলাইয়ের টিকিট ১ জুলাই, ৬ জুলাইয়ের টিকিট ২ জুলাই, ৭ জুলাইয়ের টিকিট ৩ জুলাই, ৮ জুলাইয়ের টিকিট ৪ জুলাই এবং ৯ জুলাইয়ের টিকিট ৫ জুলাই বিক্রি হবে।

এছাড়া ১১ জুলাইয়ের ট্রেনের ফিরতি টিকিট ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট ১১ জুলাই বিক্রি করা হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন মোবাইল অ্যাপ ‘রেল সেবা’ উন্মোচন করেন তিনি। এই অ্যাপ তৈরি ও ব্যবস্থাপনার কাজ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ের টিকেটিং পার্টনার সহজ-সিনেসিস-ভিনসেন জেভি। এখন থেকে রেলযাত্রীরা বাংলাদেশ রেলওয়ের ই-টিকেট ওয়েবসাইট [eticket.railway.gov.bd] এর পাশাপাশি ‘রেল সেবা’ অ্যাপ ব্যবহার করে ট্রেন টিকেট কাটতে পারবেন।

নতুন ‘রেল সেবা’ অ্যাপটি বর্তমানে গুগল প্লে স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে। টিকেট কাটার জন্য যাত্রীদের অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিজের নাম, মোবাইল: নম্বর, ইমেইল অ্যাড্রেস, জাতীয় পরিচয়পত্র/ জন্ম নিবন্ধন নম্বর ইত্যাদি তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তবে কোনো যাত্রী যদি ইতোমধ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ের ই-টিকেট ওয়েবসাইটে রেজিস্টার করে থাকেন তাহলে তাকে আর দ্বিতীয়বার রেজিস্ট্রেশন করতে হবে না। শুধুমাত্র মোবাইল নম্বর ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করলেই হবে।

train2

‘রেল সেবা’ অ্যাপ ব্যবহার করে টিকেট কাটার জন্য যাত্রীকে তার পছন্দনুযায়ী যাত্রা শুরুর স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন, পছন্দনুযায়ী ট্রেনের ক্লাস ও যাত্রার তারিখ সিলেক্ট করতে হবে। একই সাথে 'ট্রেন ডিটেইলস' থেকে সহজেই ট্রেনের বিস্তারিত তথ্য দেখতে পারবে। তারপর এভাইলেবল ট্রেন থেকে পছন্দমতো বগি এবং সিট সিলেক্ট করে অনলাইন পেমেন্টের (ডেবিট/ ক্রেডিট কার্ড অথবা এমএফএস) মাধ্যমে টিকেট কেটে ফেলতে পারবেন। এরই মাধ্যমে ই-টিকেট যাত্রীর রেজিস্টারকৃত ইমেইলে সেন্ড হয়ে যাবে। একই সাথে যাত্রী ই-টিকেট অ্যাপ থেকে নিজের সুবিধামতো ডাউনলোড করে নিতে পারবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. হুমায়ূন কবীর, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার প্রমুখ।

টিএই/জেবি