সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ঢাকা

ভোটের মাঠে থাকবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে ৭ লাখ সদস্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২৩, ০৮:৪২ পিএম

শেয়ার করুন:

ভোটের মাঠে থাকবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে ৭ লাখ সদস্য
ফাইল ছবি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় সাড়ে সাত লাখ সদস্য মোতায়েনের প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তবে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা এর বাইরে। যদিও সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হবে কি না এ ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁও নির্বাচন ভবনের সভাকক্ষে নির্বাচনকালীন বাজেট ও ব্যয় নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করে নির্বাচন কমিশন। ইসি সচিব জাহাংগীর আলমের সভাপতিত্বে ওই বৈঠকে বিভিন্ন বাহিনীর প্রতিনিধিরা অংশ নেন।


বিজ্ঞাপন


বৈঠক শেষে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ সাংবাদিকদের বলেন, দ্বাদশ নির্বাচনে ভোটের মাঠে নির্বাচনের সময়ে দায়িত্ব পালন করবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাত লাখ ৪৭ হাজার ৩২২ জন সদস্য। এরমধ্যে এক লাখ ৮২ হাজার ৯১ জন পুলিশ ও র‍্যাব সদস্য, আনসার বাহিনীর সদস্য থাকবেন পাঁচ লাখ ১৬ হাজার। এছাড়া বিজিবির সদস্য থাকবেন ৪৬ হাজার ৮৭৬ জন এবং কোস্টগার্ড সদস্য দুই হাজার ৩৫৫ জন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বরাদ্দ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, বিষয়টি যেহেতু চূড়ান্ত নয়, কাজেই এটা বলতে চাচ্ছি না। তবে কতসংখ্যক সদস্য দায়িত্ব পালন করবে, সেটা জানাতে পারি। পরে তিনি সেই সংখ্যা তুলে ধরেন।

Vote2
সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন ইসির অতিরিক্ত সচিব। ছবি: সংগৃহীত

জানা গেছে, পদমর্যাদা অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভাতা পেয়ে থাকেন। একজন পুলিশের সর্বনিম্ন ভাতা ৫৩৬ টাকা, সর্বোচ্চ ১২০০ টাকা। র‌্যাবও একই পরিমাণ ভাতা পেয়ে থাকেন। বিজিবি সর্বনিম্ন ৪০০ টাকা, সর্বোচ্চ ১২২৫ টাকা ভাতা পাবে। কোস্টগার্ড সর্বনিম্ন ৬৩৭ টাকা, সর্বোচ্চ ১৮০০ টাকা, আনসার সদস্যরা সর্বনিম্ন এক হাজার, সর্বোচ্চ এক হাজার ৫০ টাকা ভাতা পান।


বিজ্ঞাপন


গত ১৫ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল। আগামী ৭ জানুয়ারি একযোগে সংসদের ৩০০ আসনে অনুষ্ঠিত হবে ভোটগ্রহণ। নির্বাচন কমিশন ভোট আয়োজনে পুরোদমে প্রস্তুতি সম্পন্ন করছে। যদিও রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় নির্বাচনে সব দল অংশগ্রহণের বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হয়নি। শেষ পর্যন্ত ২০১৪ সালের মতো এবারও একতরফা নির্বাচনের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জেবি

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর