জুবায়ের আহমেদ সাব্বিরের স্বেচ্ছাসেবী হওয়ার গল্প

তানজিদ শুভ্র
প্রকাশিত: ০১ অক্টোবর ২০২২, ১২:৪১ পিএম
জুবায়ের আহমেদ সাব্বিরের স্বেচ্ছাসেবী হওয়ার গল্প

জুবায়ের আহমেদ সাব্বির, তরুণ এই শিক্ষার্থী একজন স্বেচ্ছাসেবক হিসাবেই বেশি পরিচিত। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করছেন তিনি। 

পড়াশোনার পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে স্বেচ্ছাসেবী প্লাটফর্মের সঙ্গে সাব্বিরের যাত্রা শুরু মাধ্যমিকের পাঠ শেষে। সফিপুর আইডিয়াল পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে তখন এসএসসি পাস করেছেন সবে। 

sabbir

বিডি ক্লিন নামে সংগঠনের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছেন সাব্বির। সাধারণ সদস্য থেকে শুরু করে আইটি ও মিডিয়া টিমে নানাসময়ে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসেই গাজীপুর জেলা টিমের সহ-সমন্বয়ক হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন সাব্বির। 

রোভার সাব্বির তরুণদের নেতৃত্ব দিয়ে স্বপ্ন জয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। গত রোজায় অসচ্ছলদের মাঝে ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিতে দুটো প্রজেক্ট সফলভাবে সম্পন্ন করে এই তরুণ। 

sabbir

সাব্বির বলেন, ‘আমি গরিব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই এবং মানবিক একটি সমাজ গড়ার উদাহরণ সৃষ্টি করতে চাই। এক নাগরিক হিসেবে অপর একজনকে সাহায্য করা আমার সাংবিধানিক দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।’

স্বেচ্ছাসেবী কাজের শুরুর গল্প জানাতে গিয়ে সাব্বির বলেন, ‘২০১৮ সালের মাঝামাঝি সময়ে আমি সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে এই কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছি। একটি দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা থেকে শুরু করে প্রায় বিভিন্ন ধরনের সমস্যা নিয়েই কাজ করে থাকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো। দেশের সংকটময় মুহূর্তে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর ভূমিকা আমাকে বেশি অনুপ্রাণিত করেছে এই কাজে যুক্ত হতে। উচ্চমাধ্যমিকে পড়াশোনার পাশাপাশি আমি স্বেচ্ছাসেবী কাজে সময় দিতে থাকি নিয়মিত। আগামী দিনগুলোতেও আমি মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে প্রস্তুত।’

sabbir

কখনো কোনো প্রতিবন্ধকতার শিকার হয়েছেন কি না এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবী কাজের শুরুতে আমাকে অনেকেই বিভিন্ন রকম নেতিবাচক মন্তব্য করত। আমি এতে বিচলিত হইনি। বর্তমানে এই মানুষগুলো এবং বন্ধুরা সবাই উৎসাহ দেয়। তাদের এই উৎসাহ এখনো ভালো কাজে সবার আগে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করে।’

কালিয়াকৈর হেল্পলাইন নামে একটি ফেসবুক প্লাটফর্মও গড়ে তুলেছেন সাব্বির। যার মাধ্যমে সহজেই বিভিন্ন তথ্য সহায়তা, রক্তের খোঁজ করাসহ নানা জনসেবামূলক কাজে সক্রিয় প্রভাব ফেলছে। 

sabbir

তরুণ এই স্বেচ্ছাসেবকের দারুণ আগ্রহ ফুটবলের প্রতি। বসুন্ধরা কিংসের এই ভক্ত গাজীপুর অঞ্চলে বিভিন্ন ফুটবল টুর্নামেন্টেও সক্রিয়। বাংলাদেশ ফুটবল সাপোর্টার্স ইউনিয়ন এর তথ্য ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বও পালন করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করা পছন্দের দলকে সমর্থন জানাতে এএফসি কাপের খেলায় ভারতে গিয়ে গ্যালারিতে বসে উৎসাহ দিয়েছেন।’

সাব্বির বিভিন্ন সময় যৌক্তিক বিষয়ে আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ২০১৮ সালের ছাত্র আন্দোলন অংশগ্রহণ তাকে যৌক্তিক বিষয়ে লিখতে এবং রাস্তায় দাঁড়িয়ে ব্যানার ফেস্টুন হাতে প্রতিবাদ করতে অনুপ্রাণিত করেছে। তিনি একজন ন্যায় নীতিবোধ সম্পন্ন আদর্শ নাগরিক হওয়া চর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন। 

bbir

সাব্বির সরকারি বিজ্ঞান কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে পড়াশোনা করছেন ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজে। কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করলেও শৈশব কেটেছে গাজীপুরের টঙ্গিতে আর কৈশোর থেকে পরবর্তী সময় কাটছে একই জেলার সফিপুরে। সাব্বিরের এমন কাজের কারণে বন্ধুমহলেও ব্যাপক প্রশংসিত তিনি।

লেখক: শিক্ষার্থী ও ফিচার লেখক

এনএম