মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ঢাকা

সাইকেল সম্পর্কে এই তথ্যগুলো জানেন কি? 

নিশীতা মিতু
প্রকাশিত: ০৩ জুন ২০২২, ১২:৫৩ পিএম

শেয়ার করুন:

সাইকেল সম্পর্কে এই তথ্যগুলো জানেন কি? 
ছবি ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

কম সময়ে স্বল্প দূরত্ব পার হওয়ার বাহন হিসেবে সাইকেলের ব্যবহার বেশ পুরনো। একসময় গ্রামাঞ্চলে বাজার, স্কুল-কলেজ কিংবা আত্মীয়র বাড়িতে যাওয়ার জন্য বেশিরভাগ পুরুষই এটি ব্যবহার করতেন। সময়ের পরিবর্তনে এখন শহরেও অনেকে সাইকেল চালান। জ্যাম পার হয়ে কম সময়ে অফিসে পৌঁছানোর জন্য এর জুড়ি নেই। নারী ও পুরুষ উভয়েই নিয়মিত সাইকেলিং করছেন। 

দুই চাকার এই বাহনটি যে কেবল দূরত্ব ঘোচাতে সাহায্য করে তা নয়। স্বাস্থ্যের জন্যও এটি বেশ উপকারি। ওজন কমানো, শারীরিক ব্যথাসহ অনেক রোগের সমাধান মেলায় এটি। সেসব বলার আগে উপকারি বাহনটি সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য চলুন জেনে নেওয়া যাক। 


বিজ্ঞাপন


c7ঘোড়াবিহীন গাড়ি

আগে যাতায়াতের জন্য ঘোড়ার গাড়ি ব্যবহার করা হতো। ১৮১৭ সালে কার্ল ফন ড্রেস নামে একজন জার্মান ব্যারন একটি ঘোড়াবিহীন গাড়ি আবিষ্কার করেছিলেন যা তাকে দ্রুত এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে সাহায্য করবে। দুই চাকার, প্যাডেলহীন এই ডিভাইসটি চালাতে হতো পা মাটিতে ঠেলে ঠেকে। ড্রাইসাইন নামে এটি পরিচিত হয়ে ওঠে। আধুনিক দিনের সাইকেলের ভাবনা এই গাড়ি থেকেই আসে। 

রাইট ভাতৃদ্বয় 

অরভিল রাইট এবং উইলবার রাইটের কথা মনে আছে? ছোটবেলায় সাধারণ জ্ঞানের বইতে তাদের নাম পড়েছিলেন নিশ্চয়ই। তারা প্রথম উড়ন্ত বিমান তৈরি করেছিলেন। এই দুই ভাই ওহিওর ডেটনে একটি ছোট বাইক মেরামতের দোকান পরিচালনা করেছিলেন। তারা তাদের ওয়ার্কশপ ব্যবহার করে ১৯০৩ সালে রাইট ফ্লায়ার তৈরি করেন। 


বিজ্ঞাপন


cycleসাইকেল চালিয়ে বিশ্বভ্রমণ 

১৯৩৫ সালে ২৫ বছর বয়সী ফ্রেড এ. বার্চমোর সাইকেল চালিয়ে পৃথিবী প্রদক্ষিণ করেন। ইউরোপ, এশিয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য দিয়ে পুরো ৪০ হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়েছিলেন তিনি। প্রায় ২৫ হাজার মাইল পথ প্যাডেল ঘুরিয়েছিলেন এই তরুণ। বাকি পথ ভ্রমণ করেছিলেন নৌকায়। পুরো ভ্রমণে তার ৭ সেট টায়ার লেগেছিল। 

নেদারল্যান্ডে সাইকেল 

নেদারল্যান্ডে যত ভ্রমণ হয় তার প্রায় ৩০ শতাংশই হয় সাইকেলে। দেশটিতে ১৫ বছরের বেশি বয়সী প্রতি আটজনের মধ্যে ৭ জনেরই সাইকেল রয়েছে। 

cycleসাইকেলের জনপ্রিয়তা 

প্রতিবছর বিশ্বে কতগুলো সাইকেল তৈরি হয় জানেন? এই সংখ্যা প্রায় ১০০ মিলিয়ন। এতেই বোঝা যায় পৃথিবীজুড়ে এই যানটির জনপ্রিয়তা কেমন। 

একটি গাড়ি= ১৫টি সাইকেল 

একটি গাড়ি পার্ক করতে যে পরিমাণ জায়গা প্রয়োজন, তাতে ১৫টি সাইকেল রাখা সম্ভব। একটি গাড়ির তুলনায় সাইকেল রক্ষণাবেক্ষণ করা ২০ গুণ সস্তা।

cycleসড়ক দুর্ঘটনা কমানো 

এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, সাইকেল আরোহীর সংখ্যা যদি তিন গুণ বাড়ানো যেত, তবে মোটরসাইকেলের কারণ ঘটা সড়ক দুর্ঘটনার মাত্রা অর্ধেকে নামিয়ে আনা সম্ভব হতো। 

সাইকেল সম্পর্কে অজানা তথ্য তো জানা হলো। এবার চলুন এর স্বাস্থ্য উপকারিতাগুলো জানি। 

cycleক্যালোরি ক্ষয়ের পরিমাণ 

প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণ সাইকেল চালানোর মাধ্যমে ৬৫০ ক্যালোরি ক্ষয় করা সম্ভব। একজন ৮০ কেজি ওজনের ব্যক্তি রোজ ১ ঘণ্টা সাইকেল মাধ্যমে এই ক্যালোরি ক্ষয় করতে পারেন। এতে ধীরে ধীরে ওজন কমে। 

ব্যথা সারাতে 

অনেকেই হাঁটু, গোড়ালি ব্যথা বা কোমর ব্যথার ভোগেন। নিয়মিত সাইকেল চালালে এসব সমস্যা অনেকটা দূর হয়। কারণ সাইকেল চালানোর মাধ্যমে নিয়মিত হাঁটুর ব্যায়াম হয়। 

cycleমেজাজ ফুরফুরে 

সাইকেল চালাতে মন স্থির রাখতে হয়, ব্যালেন্স রাখতে হয়। মনোবিদদের মতে, এতে মন থেকে অবসাদ দূর হয়। মেজাজ থাকে ফুরফুরে।

সুস্থ থাকতে এবং সময় বাঁচাতে চাইলে নিয়মিত সাইকেল চালানোর অভ্যাস করুন। 

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর