সালাম মুর্শেদীর বাড়ি: গণপূর্তের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:২১ পিএম
সালাম মুর্শেদীর বাড়ি: গণপূর্তের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ

খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদীর গুলশানের বাড়ি সংক্রান্ত নথি ও প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এ সংক্রান্ত নথি আদালতে দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও রাজউককে এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে। এই সময় পর আর কোনো অজুহাত চলবে না।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। রিটের পরবর্তী আদেশের জন্য ২০২৩ সালের ১৬ জানুয়ারি দিন ঠিক করা হয়েছে।

আজ আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনীক আর হক। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। সালাম মুর্শেদীর পক্ষে ছিলেন সাঈদ আহমেদ রাজা।

গত ৩০ অক্টোবর সকালে সরকারের সম্পত্তি নিজের নামে লিখে নিয়ে বাড়ি বানানোর অভিযোগে খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদীর বিরুদ্ধে রিট করেন। দুর্নীতি দমন কমিশনসহ (দুদক) সংশ্লিষ্টদের রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, সালাম মুর্শেদীর গুলশানের বাড়িটি পরিত্যক্ত হিসেবে তালিকাভুক্ত। ওই বাড়ি সালাম মুর্শেদী দখল করে বসবাস করছেন। বিষয়টি নিয়ে গণপূর্ত মন্ত্রণালয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাউজক) চেয়ারম্যানের কাছে ২০১৫ ও ১৬ সালে জানতে চাইলেও কোনো জবাব দেওয়া হয়নি। এছাড়া ওই জমির নামজারি ও দলিলের বিষয়ে জানতে চেয়ে চলতি বছরের ৪ জুলাই রাজউকে আবারও চিঠি দেয় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এখনও যার জবাব মেলেনি।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, সংসদ সদস্য হওয়ার সুযোগে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বা রাজউকের সহায়তায় আবদুস সালাম মুর্শেদী ওই বাড়ি দখল করে রয়েছেন। বিষয়টি অনুসন্ধান করে আবদুস সালাম মুর্শেদী এবং রাজউক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে রিট করেন তিনি।

এআইএম/এমআর