ধর্ম যার যার কিন্তু বাংলাদেশ আমাদের সবার: প্রধান বিচারপতি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৫৬ পিএম
ধর্ম যার যার কিন্তু বাংলাদেশ আমাদের সবার: প্রধান বিচারপতি

যে কোনো ধর্ম অবমাননা বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন, ধর্ম মানুষকে দৈনন্দিন জীবনে পথ দেখাতে সাহায্য করার পাশাপাশি আধ্যাত্মিকতার পরিপূর্ণতা দান করে। প্রত্যেক ধর্মের মানুষ যদি নিজ নিজ ধর্মগ্রন্থ সঠিকভাবে, খোলা মন নিয়ে পাঠ করে, সেই সঙ্গে ধর্মীয় বিধানগুলো হৃদয়াঙ্গম করে, তাহলে অজ্ঞতার অন্ধকার কেটে যাবে। ধর্ম যার যার কিন্তু বাংলাদেশ আমাদের সবার।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতিতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

বিজয়া পুনর্মিলনী, ২০২২ উপলক্ষে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অজ্ঞতা বিপজ্জনক উল্লেখ করে তিনি বলেন, অজ্ঞতাই মানুষের সঙ্গে মানুষের বিভেদ তৈরি করে। প্রত্যেক ধর্মের মানুষ যদি নিজ নিজ ধর্মের ধর্মগ্রন্থ সঠিকভাবে, খোলা মন নিয়ে পাঠ করে, সেই সাথে ধর্মীয় বিধানগুলো হৃদয়াঙ্গম করে, তাহলে অজ্ঞতার অন্ধকার কেটে যাবে। ধর্ম যার যার কিন্তু বাংলাদেশ আমাদের সবার। রাষ্ট্র সকলের না হলে নাগরিকগণ রাষ্ট্রের সঙ্গে একাত্বতা অনুভব করতে পারবে না। ফলে রাষ্ট্র নাগরিকদের থেকে আনুগত্য আশা করতে পারবে না।

হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেন, আমাদের সংস্কৃতি সকল ধর্মকে ও মানুষকে এক সারিতে আনতে পেরেছে বলে সব ভেদাভেদ ভুলে ভাষার জন্য আন্দোলন করে আমরা জয়ী হয়েছি। বাংলাদেশের সকলের গৌরবদীপ্ত অহংকার হচ্ছে মহান মুক্তিযুদ্ধ। এই মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ খ্রিষ্টানসহ সকল সম্প্রদায়ের মানুষ।

>> আরও পড়ুন: শহীদ আইনজীবীদের তালিকা চেয়েছে হাইকোর্ট

প্রধান বিচারপতি বলেন, দেশের মানুষকে নিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ বা লগিষ্ঠ যারা বলে, তারা সংবিধানের স্প্রিটের বিরুদ্ধে বলে। সকল বিভেদ ভুলে একসঙ্গে সৌহার্দভাবে এই দেশে আমাদের বসবাস করতে হবে। সব সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

অ্যাডভোকেট দীপায়ন চন্দ্র সাহার সঞ্চালনায় ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোমতাজ উদ্দিন ফকিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম, অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ রেজাউর রহমান প্রমুখ।

এ দিন আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

এআইএম/আইএইচ