লাগেজ চুরি

সাফ জয়ীদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আহ্বান ব্যারিস্টার সুমনের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:০৪ পিএম
সাফ জয়ীদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আহ্বান ব্যারিস্টার সুমনের

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বিজয়ী নারী ফুটবলারদের লাগেজ চুরির ঘটনায় ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টম্বর) দুপুরে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে লাইভে এসে এই আহ্বান জানান তিনি।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, যারা আমাদের দেশকে গর্বিত করেছে তাদের লাগেজ ভেঙে এয়ারপোর্ট থেকে টাকা চুরি করে নিয়ে গেছে। সবমিলিয়ে প্রায় আড়াই থেকে তিন লাখ টাকার মতো (নেপালি রুপি) লাগেজ ভেঙে নিয়ে গেছে। আরও কয়েকজনের লাগেজ ভাঙা পাওয়া গেছে। এই হচ্ছে আজকের দিনের বাস্তবতা।

সুপ্রিম কোর্টের এই আইজনীবী বলেন, যাদের কোনোভাবে নিরাপত্তা নাই। আমরা বলি নিরাপত্তা আছে, প্রবাসীদের জন্য। কিন্তু কই নিরাপত্তা? মেয়েরা দেশে আসার পর সব নেতারা ছুটে গেছেন এয়ারপোর্টে। চলে গেছেন তাদের সফলতার ভাগ নেওয়ার জন্য। টিভিতে দেখলাম ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী সামনে বসে আছেন। সবই ঠিক আছে, আপনারা গেলেন এয়ারপোর্টে সফলতার ভাগ নিতে। সফলতার ভাগ তো সবাই তো নিতে চায়। কিন্তু এগুলোর নূন্যতম নিরাপত্তার কথা কেউ চিন্তা করলেন না।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, বিমান মন্ত্রণালয়ের সামান্য বিবেকও কাজ করে না যে সাফ ফুটবলাররা সবচেয়ে বেশি আলোচিত। সারা বাংলাদেশের মানুষ এদের দিকে তাকিয়ে আছে। আপনাদের কি মনে হলো না এদের ব্যাগটা অন্তত নিরাপত্তা দিতে। সামান্য নিরাপত্তা দিতে পারলেন না। আর সিকিউরিটি যদি নাই দিতে পারেন, তাহলে কত বড় ক্ষতি করলেন সরকারের ইমেজ নষ্ট হলো। এদের টাকাটা দিয়ে দিতে পারলেন না, মাফ চাইতে পারলেন না। বলতে পারলেন না প্লিজ এ খবরটা আর দিয়েন না, এটা আমাদের জন্য লজ্জাকর। সারা বিশ্বের মানুষেরা যখন জানতে পারবে আমাদের মেয়েদের চ্যাম্পিয়ান হওয়ার পর তাদের ব্যাগ এরকম কাটাকাটি হয়েছে।

এই আইনজীবী বলেন, সারা বিশ্বের মানুষ যখন জানতে পারবে, তখন তারা বলবে এটা একটি চোর বাটপারের দেশ। সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যে ইমেজটা বাড়ছিল, তা একটি চুরির মধ্য দিয়ে বিমানবন্দর বিমান মন্ত্রণালয়ের ইমেজ শেষ করে দিলেন।

‘বিমান ও ক্রীড়া মন্ত্রীকে বলব, এদেরকে দ্রুত ক্ষতিপূরণ দিন। মাফ চান ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এই ক্ষমা প্রার্থনায় আপনাদের কোনো ইজ্জত যাবে না। কারণ এটা আমাদের সামগ্রিক ব্যাপার। দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা হিসেবে আপনারা ক্ষমা চাইলে তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।’-বলেন সুমন।

সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী আরও বলেন, ‘ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি এদেরকে ক্ষতিপূরণ দেন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যারা চুরির সঙ্গে জড়িত তাদেরকে বের করেন। তাদেরকে শাস্তি দেন।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সাফ জয়ী নারীরা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছলে তাদের ব্যাগ থেকে খোয়া যায় টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র। সেই সঙ্গে বেশ কয়েকজনের লাগেজের তালা ভাঙা অবস্থায় পাওয়া যায়। দুইজন খেলোয়াড়ের লাগেজ থেকে ডলার হারানোর অভিযোগও উঠেছে।

এআইএম/এমআর