ড্রোন বিধ্বস্ত এলাকায় রুশ যুদ্ধজাহাজ, যা বলল যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ মার্চ ২০২৩, ১১:২১ এএম
ড্রোন বিধ্বস্ত এলাকায় রুশ যুদ্ধজাহাজ, যা বলল যুক্তরাষ্ট্র

কৃষ্ণ সাগরে মার্কিন নজরদারি ড্রোন বিধ্বস্ত এলাকায় পৌঁছেছে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ। সেখানকার পরিস্থিতি যাছাই করছে তারা। এমন অবস্থায় ড্রোনটি উদ্ধার করা চ্যালেঞ্জিং হবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একজন সিনিয়র জেনারেল।

ইউএস জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি বলেছেন, ক্রুবিহীন এমকিউ-৯ রিপার ড্রোনের অবশিষ্টাংশ ১২১৯ থেকে ১৫২৪ মিটার (৪০০০ ফুট থেকে ৫০০০ ফুট) পর্যন্ত গভীরে ডুবে গেছে। যুক্তরাষ্ট্র দাবি করেছে যে, রাশিয়ার যুদ্ধবিমানের সঙ্গে সংঘর্ষের কারণে মার্কিন ড্রোনটি বিধ্বস্ত হয়। সে সময় আন্তর্জাতিক জলসীমায় কাজ করছিল ড্রোনটি।

মার্কিন ওই সিনিয়র জেনারেল বলেন, এটি সম্ভবত উল্লেখযোগ্য গভীরতায় ডুবে গেছে। তাই প্রযুক্তিগত দৃষ্টিকোণ থেকে যেকোনও পুনরুদ্ধার অপারেশন খুব কঠিন হবে। তিনি আরও বলেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ধ্বংসাবশেষের আকার সম্পর্কে নিশ্চিত হতে কয়েক দিন সময় লাগবে।

তবে রাশিয়া সংঘর্ষের কারণে ড্রোনটি বিধ্বস্তের মার্কিন দাবি অস্বীকার করেছে। রাশিয়া আগেই জানিয়েছিল যে, ড্রোনটি রাশিয়ার সীমান্তের দিকে উড়ে যাচ্ছিল। পরে হঠাৎ বাঁক নিতে গিয়ে নিজে নিজেই বিধ্বস্ত হয়।

মস্কো ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ পুনরুদ্ধার করার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার মার্কিন কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন যে রাশিয়ান জাহাজ দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে।

এবিসি নিউজের সিনিয়র পেন্টাগন রিপোর্টার লুইস মার্টিনেজ টুইট করেছেন যে, দুই মার্কিন কর্মকর্তা কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত হওয়ার স্থানে রাশিয়ান জাহাজের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছেন।

কৃষ্ণ সাগর রাশিয়া এবং ইউক্রেন উভয়ের সীমানা। রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের সেক্রেটারি নিকোলাই পাত্রুশেভ বুধবার বলেছেন যে, রাশিয়া মার্কিন গুপ্তচর ড্রোন পুনরুদ্ধারের অভিযানের চেষ্টা করবে।

তিনি বলেন, 'আমি জানি না আমরা এটি পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হব কি না তবে এটি করতে হবে। আমরা অবশ্যই এটিতে কাজ করব। আমি আশা করি, অবশ্যই সফলভাবে হবে।

এদিকে মার্কিন সিনিয়র জেনারেল মিলি বলেন, রাশিয়ার হাতে ড্রোনটি উদ্ধার করা হলে সংবেদনশীল বুদ্ধিমত্তার কোনো ক্ষতি হবে না তা নিশ্চিত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ব্যবস্থা নিয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মস্কোর রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনোভ বলেছেন, ওয়াশিংটন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে হাজার হাজার কিলোমিটার দূরে এবং রাশিয়ার সীমান্তের কাছাকাছি একটি ড্রোন মোতায়েন করা প্রমাণ করেছে যে এটি রাশিয়ান বাহিনীর উপর হামলা চালাতে সহায়তা করার জন্য ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর জন্য গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করছে।

সূত্র: আল জাজিরা

একে