রোববার, ১৪ জুলাই, ২০২৪, ঢাকা

রুশ যুদ্ধবিমান কিনছে ইরান, কতটা শক্তিশালী সুখোই-৩৫?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০২৩, ০১:৫১ পিএম

শেয়ার করুন:

রুশ যুদ্ধবিমান কিনছে ইরান, কতটা শক্তিশালী সুখোই-৩৫?

রাশিয়ার থেকে সুখোই-৩৫ ফাইটার জেট কেনার এই চুক্তি চূড়ান্ত করেছে ইরান। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এক খবরে এই তথ্য জানিয়েছে।

নানা ধরনের আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক অবরোধের মধ্যে থাকা ইরানের বিমানবহর বেশ পুরাতন। অবরোধের কারণে নতুন যুদ্ধবিমান তো বটেই পুরাতন বিমানের জন্য নতুন যন্ত্রপাতি কেনাটাও ইরানের জন্য বেশ কষ্টকর হয়ে পড়েছিল।


বিজ্ঞাপন


অন্যদিকে রাশিয়াও ইউক্রেন আক্রমণের পর থেকে পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলোর অবরোধের মুখে পড়েছে। ফলে একদিকে এমন চুক্তি ইরানের জন্য যেমন অবরোধ এড়িয়ে সামরিক শক্তি আরও বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগ হিসাবে হাজির হয়েছে, রাশিয়াও পশ্চিমো রাষ্ট্রগুলোকে এড়িয়ে খুঁজে নিতে পারছে সামরিক ভাণ্ডারের নতুন বাজার।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আইআরএনএ এ বিষয়ে ইরান সরকারের একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'রাশিয়া জানিয়েছে, তারা বিমানগুলো বিক্রির জন্য প্রস্তুত।' 

জাতিসংঘের ২২৩১ রেজল্যুশন অনুযায়ী অস্ত্র কেনায় ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। কিন্তু সে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে ২০২০ সালের অক্টোবরেই। কেবল সামরিক নয়, অন্য নানা খাতেই গত বছর থেকেই রাশিয়ার সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ট সম্পর্ক গড়ে তুলেছে ইরান৷

ইরান রাশিয়াকে শাহেদ-১৩৬ 'কামিকাজে' ড্রোন সরবরাহ করেছে। গত বছর ইউক্রেন অভিযোগ করে, এসব ড্রোন ইউক্রেনে বেসামরিক স্থাপনায় হামলার কাজে রাশিয়া ব্যবহার করছে। তবে ইরান এমন অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে।


বিজ্ঞাপন


ইরান এবং রাশিয়ার মধ্যে বাড়তে থাকা সামরিক সহযোগিতা বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি গত ডিসেম্বরেই ‘রাশিয়া ইরানের কাছে ফাইটার জেট বিক্রি করতে পারে', এমন তথ্য জানিয়েছিলেন।

তিনি জানিয়েছিলেন, ইরানের পাইলটরা সুখোই বিমান উড্ডয়নের প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। এই বিমান পেলে ইরান তার 'প্রতিবেশীদের তুলনায় আকাশ যুদ্ধে তুলনামূলক শক্তিশালী হয়ে উঠবে' বলেও সতর্ক করে দিয়েছিলেন কিরবি।

এখন ইরানের বিমানবহরে যে মিগ এবং সুখোই বিমানগুলো রয়েছে, তার বেশিরভাগই সোভিয়েত আমলের। এফ-সেভেনসহ কিছু চীনা বিমান এবং ১৯৭৯ সালের ইসলামিক বিপ্লবের আগের কিছু মার্কিন যুদ্ধবিমানও (এফ-ফোর এবং এফ-ফাইভ) ইরানের কাছে রয়েছে।

পরমাণু চুক্তি থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের একতরফা যুক্তরাষ্ট্রের নাম সরিয়ে নেয়ার পর ২০১৯ সালে আবার ইরানের ওপর অবরোধ আরোপ করতে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র।

iran sukhoi 35

কতটা শক্তিশালী সুখোই-৩৫?
সুখোই-৩৫ হচ্ছে সু-২৭ আকাশ প্রতিরক্ষা যুদ্ধ বিমানের উন্নত সংস্করণ। এগুলো একক আসন ও জোড়া ইঞ্জিনের সুপারম্যানিউভেরেবল বিমান, সুখোই ডিজাইন ব্যুরো এটি ডিজাইন করেছে এবং কমসোমলস্ক-অন-আমুর এয়ারক্রাফট প্ল্যান্টে নির্মিত হয়েছে।

যুদ্ধ বিমানের এ টাইপটি মূলত সোভিয়েত ইউনিয়ন সু-২৭ থেকে তৈরি করেছিল এবং এটি সু-২৭ এম নামে পরিচিত ছিল। এটিতে মাল্টি-ফাংশন রাডার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যা এটিকে মাল্টি-রোল ক্ষমতা দেয়। প্রথম প্রোটোটাইপ ১৯৮৮ সালের জুনে প্রথম উড্ডয়ন করেছিল। সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পরে সুখোই এর রফতানি করার জন্য এটিকে আবার সু-৩৫ হিসাবে আপগ্রেড করা হয়।

সুখোই-৩৫ সংস্করণটিতে একটি নতুন নকশাকৃত ককপিট এবং অস্ত্র-নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা রয়েছে এবং ক্যানার্ডের জায়গায় থ্রস্ট-ভেক্টরিং ইঞ্জিন রয়েছে। এটি ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার প্রথম ওড়ানো হয়। যদিও এটি রফতানির জন্য ডিজাইন করা হয়েছিল, তারপরও রাশিয়ান এয়ার ফোর্স ২০০৯ সালে এটি বহরে যুক্ত করে। 

চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি এয়ার ফোর্স এবং ইন্দোনেশিয়ান বিমানবাহিনীও এর ক্রয়াদেশ দিয়েছে।

সূত্র: রয়টার্স

একে

ঢাকা মেইলের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন

সর্বশেষ
জনপ্রিয়

সব খবর