রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত হলো ইউক্রেনের চার অঞ্চল, পুতিনের ঘোষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:৫৪ পিএম
রাশিয়ার অন্তর্ভুক্ত হলো ইউক্রেনের চার অঞ্চল, পুতিনের ঘোষণা
রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

রাশিয়ার চারটি 'নতুন অঞ্চল' অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে ঘোষণা দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শুক্রবার তিনি এ স্বীকৃতিমূলক ঘোষণা দেন। এর মাধ্যমে ওই চার ইউক্রেনীয় অঞ্চল আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ার দখলে এলো।

আল-জাজিরার প্রতিবেদন অনুসারে, ক্রেমলিনে এক অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে পুতিন বলেন যে এ অঞ্চলগুলোকে রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্ত করা ছিলো লাখো মানুষের ইচ্ছা।

এ সময় তিনি আংশিকভাবে রুশ অধিকৃত ইউক্রেনীয় অঞ্চলে রাশিয়ার দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দেন। তিনি রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্তির জন্য ওই অঞ্চলে আনুষ্ঠিত গণভোটের পর এমন সিদ্ধান্ত নেন।

রুশ প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেছেন যে দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন ও জাপোরিঝিয়া অঞ্চল এখন থেকে রাশিয়ার। তিনি এগুলোকে নতুন রুশ অঞ্চল বলে ঘোষণা দেন। 

তিনি এমন মন্তব্য করার পর উপস্থিত দর্শকরা তাকে উচ্ছ্বসিত করতালির মাধ্যমে স্বাগত জানান। ওই  উপস্থিত দর্শকদের মধ্যে ওই চারটি ইউক্রেনীয় অঞ্চলের নেতারাও ছিলেন। তারা রুশপন্থী হিসেবে পরিচিত।

জাতীয়তাবাদী ভাষণ

রাশিয়ার চারটি 'নতুন অঞ্চল' অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে এ স্বীকৃতিমূলক অনুষ্ঠানে প্রচণ্ড জাতীয়তাবাদী ও পশ্চিমাবিরোধী ভাষণ দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

 এ ভাষণে রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমি নিশ্চিত যে ফেডারেল অ্যাসেম্বলি রাশিয়ার চারটি নতুন অঞ্চল, রুশ ফেডারেশনের চারটি নতুন অংশকে সমর্থন করবে ... কারণ এটা লাখ লাখ মানুষের ইচ্ছার বহিঃপ্রকাশ।

rr

প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, তিনি চান কিয়েভ সরকার এবং পশ্চিমা বিশ্বের সবাই জানুক যে ডনবাস অঞ্চলের লোকেরা চিরতরে রাশিয়ার নাগরিক হয়ে যাবে।

কিয়েভ কর্তৃপক্ষের উচিৎ জনগণের এ ইচ্ছার অভিব্যক্তিটিকে সম্মান দেখানো।

'পশ্চিমা বিশ্ব লোভী'

ভাষণে পশ্চিমা বিশ্বকে 'লোভী' হিসেবে বর্ণনা করে পুতিন বলেন, তারা রাশিয়াকে 'উপনিবেশ' বানাতে চায়। ওই কারণেই পশ্চিম দেশগুলো রাশিয়ার বিরুদ্ধে একটি ‘হাইব্রিড যুদ্ধ’ চালাচ্ছে বলে ভাষণে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ‘তারা আমাদের স্বাধীন সমাজ হিসেবে দেখতে চায় না। তারা আমাদেরকে একদল দাস হিসেবে দেখতে চায়।’

তিনি একই সাথে অভিযোগ করেন যে পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার বিরুদ্ধে অন্তর্ঘাতমূলক তৎপরতা চালাচ্ছে।

ব্রিটেনকে অ্যাংলো-স্যাক্সন হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বলকান অঞ্চলে রুশ গ্যাস পাইপলাইনের সাম্প্রতিক বিস্ফোরণে ব্রিটেন সহায়তা করেছে।

গত সপ্তাহে ইউক্রেনের দখলকৃত এলাকায় পাঁচ দিন ধরে রাশিয়া যে গণভোটের আয়োজন করেছিল ইউক্রেনের সরকার শুরু থেকেই তার ফলাফলকে নাকচ করে আসছে। তারা একে ‘জালিয়াতির ভোট’ বলে বর্ণনা করছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন বৃহস্পতিবার বলেছেন, "নেভার নেভার নেভার", অর্থাৎ কোন মতেই তারা এটা মেনে নেবেন না।

জাতিসংঘের মহাসচিবও বলেছেন, এমন করে ভূমি দখল অবৈধ।

সূত্র : আল-জাজিরা, বিবিসি

এমইউ