ভারতীয় কাশ্মিরে বহিরাগতরা পাবেন ভোটাধিকার, তীব্র প্রতিবাদ 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০২২, ১১:২০ এএম
ভারতীয় কাশ্মিরে বহিরাগতরা পাবেন ভোটাধিকার, তীব্র প্রতিবাদ 
ভোটাধিকার প্রশ্নে ফের উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে জম্মু ও কাশ্মির পরিস্থিতি

এখন থেকে ভারতের জম্মু ও কাশ্মির অঞ্চলের স্থানীয় বাসিন্দা না হলেও সেখানকার নির্বাচনে ভোট দেওয়া যাবে। ভারতীয় নির্বাচন কমিশনের বুধবারের এমন ঘোষণার পর ফের উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে জম্মু ও কাশ্মিরের পরিস্থিতি। সেখানকার বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলোর পাশাপাশি উপত্যকার মূল ধারার রাজনৈতিক দলগুলোও ভারতীয় নির্বাচন কমিশনের এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কাশ্মিরের বিভিন্ন এলাকায় শুরু হয়েছে বিক্ষোভ।

চলতি বছরের শেষে ভারতের জম্মু ও কাশ্মিরে বিধানসভা নির্বাচন হতে পারে। তার আগে বুধবার কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটির মুখ্য নির্বাচনী কর্মকর্তা হৃদেশ কুমার জানান, সেখানে বসবাসকারী বিভিন্ন রাজ্যের মানুষও বিধানসভা নির্বাচনে ভোটাধিকার পাবেন। এর ফলে নয়া ভোটার তালিকায় আরও ২৫ লাখ নাম যুক্ত হবে।

এ বিষয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বুধবার জম্মু ও কাশ্মিরের প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা হৃদেশ কুমার নভেম্বরে হতে যাওয়া স্থানীয় নির্বাচনের আগে এলাকাটিতে ২০ লাখের বেশি নতুন ভোটার নিবন্ধিত হবে বলে সাংবাদিকদেরকে তার প্রত্যাশার কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘ভোটারদের চূড়ান্ত তালিকায় ২০ থেকে ২৫ লাখ নতুন ভোটার যুক্ত হতে পারে বলে ধারণা করছি আমরা। এর মধ্যে অঞ্চলটিতে বসবাসরত অ-কাশ্মিরিরাও আছেন।’

বর্তমান এ অঞ্চলটিতে ভোটার প্রায় ৭৬ লাখ। কিন্তু নতুন নিবন্ধিতরা এ সংখ্যা এক তৃতীয়াংশের বেশি বাড়িয়ে দিতে পারে। এ বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় কাশ্মিরিরা উদ্বিগ্ন।

স্থানীয়দের ভয়, রাজ্যের মর্যাদা তুলে নতুন নিয়মকানুন আরোপের মধ্য দিয়ে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপির কেন্দ্রীয় সরকার কাশ্মিরের কয়েক দশকের স্বাধীনতা আন্দোলনকে দমাতে চায়। এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কাশ্মিরের বিভিন্ন এলাকায় শুরু হয়েছে বিক্ষোভ।

নতুন করে বিপুল সংখ্যক ভোটার নিবন্ধনের সুযোগ দেওয়ার পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা এসেছে কাশ্মিরের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে।

এ বিষয়ে জম্মু ও কাশ্মিরের দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ওমর আবদুল্লা ও পিডিপির মেহবুবা মুফতি দু’জনেই কমিশনের এমন উদ্যোগকে ‘বিপজ্জনক’ বলে চিহ্নিত করেছেন। ওমর টুইটারে লেখেন, ‘জম্মু ও  কাশ্মিরের প্রকৃত ভোটদাতাদের সমর্থন পাওয়ার বিষয়ে বিজেপি কি এতটাই সন্দিগ্ধ যে বাইরে থেকে ভোটার আমদানি করতে হচ্ছে?’

অন্য দিকে পিডিপির মেহবুবার টুইট করে বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মিরে দীর্ঘ দিন ধরে ভোট স্থগিত রাখার কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের ফলে চাপে পড়েছে বিজেপি। তাই ভোটের ফলাফল প্রভাবিত করার জন্য বহিরাগতদের ভোটাধিকার দিতে চাইছে।’

তার অভিযোগ, ‘বিজেপির এখন একটাই উদ্দেশ্য। তাহলো যেকোনো পদ্ধতি অবলম্বন করে ভারতের সকল রাজ্যে সরকার গঠন করা। তারা একটি ভুয়া নির্বাচন করে এখানে ফ্যাসিবাদী শাসক বসাতে চায়। এর মাধ্যমে নির্বাচনী গণতন্ত্রের কফিনে সর্বশেষ পেরেক পোঁতা হলো। কাশ্মির একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্য, যা ভারতের সঙ্গে থাকতে চেয়েছে। রাজ্যটি মূলত, ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের অংশ হতে চেয়েছিল। কিন্তু মানুষ এখন ভোটে আস্থা হারিয়েছে। সবকিছুই বিজেপির স্বার্থে করা হচ্ছে।

সূত্র : রয়টার্স, টাইমস নাউ

এমইউ