তাইওয়ান সংকট: মার্কিন সেনাবাহিনীর সঙ্গে চীনের যোগাযোগ স্থগিত 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫ আগস্ট ২০২২, ০৭:৫৪ পিএম
তাইওয়ান সংকট: মার্কিন সেনাবাহিনীর সঙ্গে চীনের যোগাযোগ স্থগিত 
তাইওয়ানের পিংটান দ্বীপের আকাশে চীনা যুদ্ধবিমান

যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের সঙ্গে সমস্ত যোগাযোগ এবং সংলাপ স্থগিত করেছে চীন। মার্কিন কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরে ক্ষুব্ধ হয়ে এমন পদক্ষেপ নেয় দেশটি।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে দু’দেশের সেনাবাহিনীর সিনিয়র কম্যান্ডার পর্যায়ে নিয়মিত যে সংলাপ চলে তা স্থগিত করা হচ্ছে।

একইসাথে জলবায়ু পরিবর্তন, আন্তঃসীমান্ত অপরাধ দমন এবং অবৈধ অভিবাসী প্রত্যর্পণসহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান সহযোগিতাও স্থগিত করার কথা ঘোষণা করেছে চীন।

মাত্র গত বছর স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে জলবায়ু সম্মেলনে দু’দেশ বিশ্বের তাপমাত্রা কমাতে একটি চুক্তি করেছিল। জলবায়ু পরিবর্তন সামলানোর আন্তর্জাতিক চেষ্টায় সাফল্যের জন্য চীন-মার্কিন সহযোগিতাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়েছে চীন, কারণ তাইওয়ানকে তারা অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে গণ্য করে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির ওপর নিষেধাজ্ঞা

মার্কিন সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যোগাযোগ ও সহযোগিতা স্থগিত করার পাশাপাশি পেলোসি ও তার ঘনিষ্ঠ স্বজনদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বেইজিং।

শুক্রবার এমন নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত জানানোর পর চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেন, ‘পেলোসি চীনের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে নাক গলিয়েছেন, চীনের সার্বভৌমত্ব ও ভৌগলিক অখণ্ডতা খর্ব করেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের 'এক চীন নীতি' পায়ে দলেছেন এবং তাইওয়ান প্রণালীর শান্তি ও স্থিতিশীলতাকে মারাত্মক হুমকিতে ফেলে দিয়েছেন।’

ন্যান্সি পেলোসির এ সফরের পর চীন তাইওয়ানের চারদিকে বৃহস্পতিবার যে নজিরবিহীন সামরিক মহড়া শুরু করেছে তার নিন্দা করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন।

তিনি বলেন, চীনের এমন প্রতিক্রিয়া মাত্রাতিরিক্ত ও অযৌক্তিক। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ানের এক বৈঠকে ব্লিনকেন বলেন, ‘চীন যা করছে তার কোনো যৌক্তিক কারণ নেই।’

তাইওয়ানের সমুদ্র ও আকাশ সীমা লঙ্ঘন

শুক্রবার তাইওয়ানের চারদিকের সমুদ্র ও আকাশে চীনের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী দ্বিতীয় দিনের মতো ব্যাপক মহড়া শুরু করেছে।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয় বলছে, তাইওয়ান প্রণালীতে একাধিক চীনা যুদ্ধ জাহাজ ও যুদ্ধবিমান তাদের সীমানা লঙ্ঘন করেছে।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা দপ্তরের সূত্র উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, শুক্রবার সকালে ১০টি চীনা যুদ্ধ জাহাজ তাইওয়ান প্রণালীতে তাইওয়ানের সীমানার মধ্যে ঢুকে সেখানে অবস্থান করছে। এছাড়া, ২০টি চীনা যুদ্ধ বিমানও ওই এলাকায় তাইওয়ানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে।

তবে তাইওয়ান প্রণালীতে দু’দেশের সীমানা আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃত নয় । প্রণালীর মাঝ বরাবর একটি সীমারেখা - যা মেডিয়ান লাইন হিসেবে পরিচিতি - ধরে নিয়ে তার দু’পাশের অংশকে দু’দেশের নিয়ন্ত্রিত সীমানা হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

সূত্র : বিবিসি

এমইউ